কম্পিউটারের মুক্তিপণ এক মিলিয়ন ডলার

ransom-money-hacking-techshohor
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দক্ষিণ কোরিয়ার ওয়েব হোস্টিং ফার্ম নাইয়ানা হ্যাকিংয়ের শিকার কম্পিউটারের লক খুলতে হ্যাকারদেরকে এক মিলিয়ন ডলার মুক্তিপণ দিতে রাজি হয়েছে।

নাইয়ানার চিফ এক্সিকিউটিভ জানিয়েছেন, হ্যাকাররা প্রথমে ৪ দশমিক ৪ মিলিয়ন ডলার দাবি করেছিল। আর এই পরিশোধ করতে বলেছিল বিট কয়েনের মাধ্যমে। হ্যাকারদের সঙ্গে দর কষাকষির ৫ লাখ ডলারে মধ্যস্থতা হলেও শেষ মুহূর্তে এসে হ্যাকাররা দ্বিগুণ অর্থ দাবি করে বসে।

তবে নিরাপত্তা বিশ্লেষকদের মতে, হ্যাকারদের সঙ্গে সাইবার হামলায় আক্রান্ত ফার্মগুলোর কোনো লেনদেন বা সমঝোতায় যাওয়া উচিত নয়।

হ্যাকারদের হাতে এতো বেশি পরিমাণ অর্থ তুলে দেওয়ার নজির এই প্রথম। তবে এমনও অনেকে লেনদেন হয়ে থাকে যার কথা গণমাধ্যমে কখনোই প্রকাশ পায় না।

নাইয়ানা যে র‌্যানসমওয়ারের শিকার হয়েছে সেটি ইরেবাস নামে পরিচিত। যা মাইক্রোসফট ও লিনাক্স অপারেটিং সিস্টেম চালিত কম্পিউটারে সাইবার হামলা চালাতে সক্ষম।

Hacker-techshohor

হ্যাকাররা প্রতিষ্ঠানটির ১৫৩টি লিনাক্স সার্ভারের নিরাপত্তা ভেদ করে। এর পাশাপাশি ৩৪০০ গ্রাহকের ওয়েবসাইটেও হামলা চালায়।  প্রকৌশলীরা আক্রান্ত কম্পিউটারগুলোর তথ্য উদ্ধারের কাজে নামলেও তারা জানিয়েছেন এটা সময় সাপেক্ষ ব্যাপার।

নাইয়ানার চিফ এক্সিকিউটিভ এই ক্ষতির জন্য গ্রাহকদের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন। এক বিবৃতির মাধ্যমে তিনি জানিয়েছেন, হ্যাকাররা তার ব্যাঙ্ক ব্যালন্সেও শূণ্য করে দিয়েছে।

নিরাপত্তা বিশ্লেষক অ্যাঞ্জেলা সাসের মতে, দুই বছর আগেও হ্যাকাররা ছোট ছোট প্রতিষ্ঠানকে টার্গেট করতো। কিন্তু এখন তারা বুঝে গেছে বড় বড় প্রতিষ্ঠানে হামলা চালালে বেশি পরিমাণ অর্থ পাওয়া যায়। এটা এখন একটি লাভজনক ব্যবসায়ে পরিণত হয়েছে।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি ওয়ানাক্রাই র‌্যানসমওয়্যার সাইবার হামলায় বিশ্বের ১৫০টি দেশের প্রায় দুই লাখ কম্পিউটার সিস্টেম হ্যাকিংয়ের শিকার হয়।

বিবিসি অবলম্বনে আনিকা জীনাত

*

*

আরও পড়ুন