vivo Y16 Project

ওয়ালটনের প্রিমো আরএক্স: ফ্ল্যাগশিপ ফোনের সস্তা বিকল্প

waltonrx_techshohor

শাহরিয়ার হৃদয়, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশী ব্র্যান্ড ওয়ালটনের অ্যান্ড্রয়েড ফোন সিরিজে সম্প্রতি যুক্ত হয়েছে হাইএন্ড স্মার্টফোন প্রিমো আরএক্স। কনফিগারেশন ও ফিচারে ভরপুর ফোনটি অনেক আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ডের ফ্ল্যাগশিপ ফোনের কমদামি বিকল্প হতে পারে।

waltonrx_techshohor

ডিজাইন

Techshohor Youtube

এর ডিজাইন প্রিমো সিরিজের অন্যান্য ফোনের মতো। ওজন ১২৭.৬ গ্রাম, পুরুত্ব ৭.৮ মিলিমিটার স্লিম।

ডিসপ্লে

পাঁচ ইঞ্চি প্রশস্ত পর্দার ফুল এইচডি ডিসপ্লে রয়েছে এতে। ডিসপ্লে রেজুল্যুশন অনেক উন্নত- ১৯২০*১০৮০ পিক্সেল, পিপিআই (পিক্সেল পার ইঞ্চি) ৪৪১। স্ক্রিনটি আইপিএস প্যানেলের এবং এর উপরে সুরক্ষার জন্য গরিলা গ্লাস ৩ এর প্রলেপ রয়েছে।

কানেক্টিভিটি

ফোনটি ডুয়াল ও থ্রিজি সাপোর্ট করে। অ্যান্ড্রয়েডের সব প্রয়োজনীয় কানেক্টিভিটি ফিচার রয়েছে। ওয়াই-ফাই, ব্লুটুথ ছাড়া ওয়্যারলেস ডিসপ্লে শেয়ারিং রয়েছে। সেন্সরের মধ্যে আছে জাইরোস্কোপ, অ্যাক্সেলেরোমিটার, প্রক্সিমিটি, গ্র্যাভিটি সেন্সর, কম্পাস ইত্যাদি।

ক্যামেরা

ওয়ালটনের অন্যতম সেরা ক্যামেরা ফোন বলা যেতে পারে একে। কারণ মূল ক্যামেরা ১৩ মেগাপিক্সেল, যা এইচডিআর মোড, বার্স্ট মোড, টাচস্ক্রিন ক্যামেরা, গেশ্চার, অটোফোকাস ইত্যাদি সাপোর্ট করে। ক্যামেরা দিয়ে ১০৮০ পিক্সেলে ভিডিও করা যাবে। এ ছাড়া ফ্ল্যাশ আছে। সামনের ভিডিও চ্যাটের ক্যামেরা ৫ মেগাপিক্সেল।

কনফিগারেশন

এতে রয়েছে ১.২ গিগাহার্জ কোয়াড কোর প্রসেসর ও পাওয়ারভিআর এসজিএক্স ৫৪৪ এমপি গ্রাফিক্স প্রসেসর। র‍্যাম কিছুটা কম, ১ জিবি। ইন্টারনাল মেমরি ১৬ জিবি, যা বাড়ানো যাবে ৩২ জিবি পর্যন্ত।

ফিচার

স্যামসাং বা অ্যাপলের ডিভাইসের অনুরূপ কিছু স্মার্ট গেশ্চার ফিচার রয়েছে এতে। হাতের ইশারায় ছবি ব্রাউজ, ভিডিও কন্ট্রোল, স্মার্টডায়াল, ফোনের উত্তর দেওয়া ইত্যাদি করা যাবে। কম দামে এত গেশ্চার সুবিধা অন্য কোনো ফোনে নেই।

পারফরম্যান্স

অ্যান্ড্রয়েড জেলি বিন ৪.২.২ ব্যবহার করা হয়েছে। শক্তিশালী কনফিগারেশনের কারণে চমৎকার উপভোগ করা যাবে অ্যান্ড্রয়েডের সব ফিচার। সাধারণ মাল্টিমিডিয়া ইউজার হোন কিংবা হার্ডকোর ইউজার হোন, সবাই অ্যাপ স্টোরের বেশিরভাগ অ্যাপ ভালো পারফরম্যান্সে চালাতে পারবেন। তবে, র‍্যাম মাত্র ১ জিবি হওয়ায় অনেক ক্ষেত্রে এটি হতাশ করবে।

এ ছাড়া স্মার্ট গেশ্চারগুলোও কাজের বেলায় পরিপূর্ণ নয়, ভুলভাল কমান্ড গ্রহণ করবে মাঝে মাঝে। অবশ্য যেহেতু স্যামসাং এর গ্যালাক্সি ডিভাইসগুলোর এ সুবিধাতেও ত্রুটি আছে। তাই ওয়ালটনের কথা না বলাই ভালো।

ব্যাটারি

২১৫০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার আওয়ারের ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়েছে এতে।

ফোনটির দাম ১৭ হাজার ৬৯০ টাকা।

এক নজরে ভালো

–     আকর্ষণীয় ডিসপ্লে, ক্যামেরা ও ভিডিও রেকর্ডিং

–     চমৎকার পারফরম্যান্স

এক নজরে খারাপ

–     র‍্যাম কম

–     স্মার্ট সুবিধাগুলো স্বাচ্ছন্দ্যকর নয়

*

*

আরও পড়ুন