যশোর, খুলনা ও রাজশাহীতে হলো প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা

NHSPC_ICTD_Raj-Khu-Jes-Techshohor
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : প্রযুক্তির অগ্রগতির সঙ্গে সঙ্গে বিশ্বব্যাপী চাহিদা বাড়ছে কম্পিউটার প্রোগ্রামারের। তাই দেশেও বিশ্বমানের কম্পিউটার প্রোগ্রামার তৈরি করতে হবে। বিশ্বমানের প্রোগ্রামার হতে গণিত, বিজ্ঞান ও ইংরেজির মতো ছোটবেলা থেকেই কম্পিউটার প্রোগ্রামিংয়ে নিজেকে দক্ষ করে তুলতে হবে। দেশের হাইস্কুল শিক্ষার্থীদের এ আহ্বান জানিয়েছেন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও গুনীজনেরা।

যশোর, খুলনা ও রাজশাহী অঞ্চলে অনুষ্ঠিত জাতীয় হাইস্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতার আঞ্চলিক পর্বে এই আহ্বান জানানো হয়।

৯ মার্চ যশোরের যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে আঞ্চলিক পর্বের প্রতিযোগিতা দিয়ে পর্দা ওঠে ২০১৭ সালের জাতীয় হাইস্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতার।

NHSPC_ICTD_Raj-Khu-Jes-Techshohor

পরে ১০ ও ১২ মার্চ যথাক্রমে খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে কুইজ ও প্র্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা। তিনটি আঞ্চলিক প্রতিযোগিতায় অংশ নেয় তিন হাজারের বেশি শিক্ষার্থী।

বিভিন্ন আঞ্চলিক প্রতিযোগিতার উদ্বোধনী ও সমাপনী পর্বে উপস্থিত ছিলেন যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর মোহাম্মদ আবদুস সাত্তার, খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর মোহাম্মদ আলমগীর, কম্পিউটার বিজ্ঞান বিভাগের প্রফেসর এম এম এ হাশেম, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য প্রফেসর চৌধুরী সারওয়ার জাহান, রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. রফিকুল আলম বেগ, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ও অতিরিক্ত সচিব বনমালী ভৌমিকসহ প্রমূখ।

প্রতিযোগিতায় ষষ্ঠ থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থীরা তথ্যপ্রযুক্তি কুইজ ও প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছে। এর মধ্যে যশোর, খুলনা ও রাজশাহী অঞ্চলের বিজয়ী মোট ২০৩ জন শিক্ষার্থী জাতীয় পর্যায়ের জন্য নির্বাচিত হয়েছে। প্রতিযোগিতায় তিন ক্যাটাগরিতে কুইজ ও দুই ক্যাটাগরিতে শিক্ষার্থীরা কুইজ ও প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতায় অংশ নিচ্ছে।

দেশের হাইস্কুলের শিক্ষার্থীদের মধ্যে কম্পিউটার প্রোগ্রামিংকে জনপ্রিয় ও তাদের দক্ষতা বাড়ানোর জন্য সরকারের তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ তৃতীয়বারের মতো জাতীয় হাইস্কুল আইসিটি কুইজ ও প্রোগ্রমিং প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছে।

এবার ১৬টি আঞ্চলিক ও তিনটি উপজেলা পর্যায়ের বিজয়ীরা ঢাকায় জাতীয় পর্যায়ে অংশ নেবে। এর পর ধারাবাহিক নির্বাচনের মাধ্যমে ইরানের তেহরানে অনুষ্ঠেয় আন্তর্জাতিক ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াডের জন্য বাংলাদেশের সদস্যদের নির্বাচন করা হবে।

বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক (বিডিওএসএন) প্রতিযোগিতার বাস্তবায়ন সহযোগী হিসেবে এবং কোড মার্শাল জাজিং প্ল্যাটফর্ম হিসাবে রয়েছে।

সোমবার পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ও হাজি মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে যথাক্রমে পাবনা ও দিনাজপুর অঞ্চলের প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে।

প্রতিযোগিতার সময়সূচী জানা যাবে এই ঠিকানায়। এছাড়াও প্রতিযোগিতার ফেইসবুক পেইজ থেকে বিস্তারিত জানা যাবে।

ইমরান হোসেন মিলন

*

*

আরও পড়ুন