প্রযুক্তিখাতে পলকের প্রশংসায় এমআইটির এমডি

palak
ফাইল ছবি
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ভারতীয় উপমহাদেশে তথ্যপ্রযুক্তিতে বাংলাদেশে অনেক এগিয়েছে। শুধু এই অঞ্চলেই নয়, বরং বিশ্বের অনেক দেশের অনুসরণীয় এখন বাংলাদেশ। সেই অগ্রগতিতে তরুণ নেতৃত্ব তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের অবদান অনেক বলে বলেছেন ম্যাসাচুসেট ইন্সটিটিউট অব টেকনোলজিসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান ফিনটেকের তথ্য বিশ্লেষক ডেভিড এম শায়ার।

তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে ক্ষুদ্র উদ্যোগ ও নতুন আইডিয়া তৈরি ও বাস্তবায়নে বাংলাদেশও যে এগিয়ে যাচ্ছে বলে একটি লেখায় বলেছেন ডেভিড শায়ার।

সম্প্রতি বাংলাদেশ ঘুরে গিয়ে ডেভিড লিংকডইনে একটি কলাম লেখেন। সেখানেই তিনি তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এবং বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের প্রশংসা করেছেন।

palak
ফাইল ছবি

তিনি এসেছিলেন তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের একটি উদ্ভাবনী কর্মশালায় যোগ দিতে। সেই কর্মশালায় এসে শায়ার নতুন অনেক কিছুই দেখে চমকিত হয়েছেন বলেও জানিয়েছেন।

এর আগে ওই কর্মকর্তা সম্প্রতি হং কংয়ে তথ্যপ্রযুক্তি নিয়ে একটি অনুষ্ঠানে অংশ নিলে দেশটির তরুণ উদ্যোক্তারা তার কাছে জানতে চান এই প্রযুক্তি ব্যবহারের নানা দিক সম্পর্কে।

সেখানেই প্রতিমন্ত্রী পলকের বিভিন্ন উদ্যোগ ও তা বাস্তবায়নের প্রক্রিয়া সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরেন তার কাছে।

তার লেখায় দেশে প্রযুক্তি খাতে পলকের উদ্যোগের প্রশংসা করেন। তিনি লেখেন, বাংলাদেশের তরুণ ও উদ্যমী তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক সিলিকন ভ্যালির একদল অভিজ্ঞ কর্মকর্তাকে নিয়োগ দিয়েছেন। এছাড়াও তার অন্যান্য উদ্যোগের মধ্যে রয়েছে, উদ্যোক্তাদের জন্য নতুন একটি স্টার্টআপ ভেঞ্চার ক্যাপিটাল ফান্ড গঠন ও তাদের জন্য প্রশিক্ষণ কর্মসূচি চালু করা।

Palak-david-Techshohor

শায়ার বলেন, এই মেধাবী মন্ত্রীর নেতৃত্বে প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় গবেষণাচালিত উদ্ভাবনী বিষয়ে আলোচনার জন্য অন্তত ২০ হাজার ফেইসবুক লাইভ স্ট্রিমিং করেছেন। এই গ্রুপটি একটি জায়গায় পৌঁছাচ্ছে এবং গ্রুপটি ঢাকায় প্রযুক্তি উদ্ভাবনীর বিষয়ে চিন্তা ও বাস্তবায়নে খুবই সক্রিয়।

এর আগে গত ১১ ফেব্রুয়ারি এমআইটির এমডি ডেভিড শায়ারের সঙ্গে দেশের তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ বিভিন্ন উদ্ভাবনী প্রকল্পে সহযোগিতাপূর্ণ কাজ করতেও সম্মত হয়েছে।

এই ঠিকানায় গিয়ে পুরো লেখাটি পড়া যাবে।

ডেভিড এম শায়ারের লিংকডইন অবলম্বনে ইমরান হোসেন মিলন

*

*

আরও পড়ুন