Samsung IM Campaign_Oct’20

পেওনিয়ারের ‘বিশৃঙ্খল’ অনুষ্ঠান, ক্ষুব্ধ অনলাইন পেশাদাররা

Evaly in News page (Banner-2)

তুসিন আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : রাতভর বাসযাত্রায় সিলেট হতে ঢাকায় এসেছেন রুমান সরকার। উদ্দেশ্য ঢাকা রিজেন্সি হোটেলে অনলাইন আর্থিক সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান পেওনিয়ারের ‘পেওনিয়ার ফোরাম ঢাকা’ অনুষ্ঠানে অংশ নেয়া।  কিন্তু নির্ধারিত সময়ের এক ঘন্টা আগে অনুষ্ঠানস্থলে এসেও প্রবেশ করতে পারেননি তিনি।  কারণ ভেতরে জায়গা নেই।

এবার চেয়ে দেখেন তিনি একা নন। নিবন্ধিত হয়ে আমন্ত্রণ নিয়ে পেওনিয়ারের এই ফোরাম ঢাকায় অংশ নিতে পারছেন না আরও অনেক অনলাইন পেশাদাররা। আনুমানিক তা তিন শতাধিক। আর এক পর্যায়ে পরিস্থিতি এমন যে অতিথিদের ‘তাড়াতে’ গেইটে পুলিশকে হস্তক্ষেপ করতে হয়।

রুমান সরকার টেকশহরডটকমকে জানান, পেওনিয়ারের নিয়ম মেনে  অনুষ্ঠানে অংশ নিতে নিবন্ধন করেন তিনি। পেওনিয়ার কর্তৃপক্ষ তা নিশ্চিতও করে। অথচ বিকাল ৩টার অনুষ্ঠানে ২টার আগে  আসলেও ঢুকতে দিল না। আমন্ত্রণ জানিয়ে আমাদের তাড়িয়ে দিলো পেওনিয়ার।

আউটসোসিংয়ের কাজ করেন জসিম উদ্দিন। তিনিও নিবন্ধন করে আমন্ত্রিত ছিলেন এই অনুষ্ঠানে। নিজের ক্ষুব্ধ হয়ে নিয়ে অভিজ্ঞতা জানাতে বলেন, ‘শনিবার দুপুর ২টা হয়ে লাইনে দাঁড়িয়ে ছিলাম। তিন’শর বেশি মানুষ দাঁড়িয়ে ছিলো হোটেলের বাইরে। হোটেলের নিরাপত্তা কর্মীরা অনলাইন পেশাদারদের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করেছে।’

‘পেওনিয়ার আমাদের দাওয়াত দিয়ে অপমান করল। যদি ওনাদের আসন সংখ্যা কম থাকে তাহলে কেনো সবাইকে কনফার্ম করবে? এটা অনেকটা বাড়িতে অতিথি ডেকে ঘাড় ধাক্কা দেয়ার মত আচরণ।’

অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে হেনস্থা হন ইমরান মন্ডল। ফেইসবুকে তিনি জানান, ‘আমি ঢাকা রিজেন্সির হেড অব সিকিউরিটির ধাক্কা খেয়েছি। আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি যে জীবনে আর কোনো ফ্রি ইভেন্টে জয়েন করবো না।

Payoneer-Bangladesh-techshohor

পেওনিয়ারের এসব বিষয় নিয়ে অনলাইন পেশাদার ও মার্কেটএভারের প্রতিষ্ঠাতা আল-আমিন কবির টেকশহরডটকমকে জানান, ‘পেওনিয়ার আন্তজার্তিক নিয়ম মেনে অনুষ্ঠানটি করতে চেয়েছিল। কিন্তু বাংলাদেশের ক্ষেত্র কিছুটা ভিন্ন সেটা তারা বুঝতে পারেনি। আসন সংখ্যা থেকে অধিক মানুষকে আমন্ত্রণ জানানোর কারণে এই ঘটনা হয়েছে। পেওনিয়ার কর্তৃপক্ষের বিষয়টি নিয়ে আরও বেশি সচেতন থাকা দরকার ছিল।’

পেওনিয়ার বাংলাদেশ ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর শোয়েব মোহাম্মদ টেকশহরডটকমকে জানান, ‘পেওনিয়ার অনেকগুলো দেশে কার্যক্রম চালাচ্ছে এবং নিয়মিত অনুষ্ঠান করছে। সেই নিয়ম মেনেই বাংলাদেশে অনুষ্ঠানটি হয়েছে। সবগুলো দেশে গড় হিসাব করে একটা ডাটা থাকে যাকে ‘শো আপ রেশিও’ বলা হয়। এর মানে হল নিবন্ধন করার পরে কত শতাংশ মানুষ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকতে পারে। অন্য দেশে এই রেশিও ১০ থেকে ২০ শতাংশর মত। সেই হিসেবে পেওনিয়ার আসন সংখ্যা নিধারণ করেছিল। কিন্তু শনিবারের আয়োজনে সেই রেশিও ৬০ শতাংশে বেশি হয়ে যায়। তাই এই অসুবিধার সম্মুখীন হতে হয়েছে।”

তিনি জানান, ‘নিবন্ধন করার সম্পূর্ণ প্রক্রিয়া পেওনিয়ার কর্তৃপক্ষ পরিচালনা করেছেন। ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে আমরা অনুষ্ঠানে সাহায্য করেছি। সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ ছিল পেওনিয়ার কর্তৃপক্ষের কাছে।’

শোয়েব মোহাম্মদ জানান, ইভেন্টের আগের দিন (শুক্রবার) রাত ১টায় সবাইকে মেইল করেছে পেওনিয়ার। গভীর রাতের ওই মেইলে ‘আগে আসলে আগে আসন পাবেন’ জানানো হয়েছে। যদি অাসন পূর্ণ হয়ে যায় তাহলে হোটেলের গেইট বন্ধ করে দেয়ার কথাও বলা হয়েছে।

পেওনিয়ার বাংলাদেশের ব্যবসায় উন্নয়ন বিভাগের প্রধান ও সাবেক ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর রিফাত আহমেদ টেকশহরডটকমকে জানান, ‘আমি এই অয়োজন করিনি। তাই আয়োজন সম্পর্কে কোনো অফিসিয়াল বক্তব্য নেই আমার। এ বিষয়ে পেওনিয়ার কর্তৃপক্ষের অফিসিয়াল বক্তব্য সোমবার দেয়া হবে।’

অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারীদের নিয়ন্ত্রণ করতে হোটেলের গেটের সামনে পুলিশ মোতায়েন করা হয়। পুলিশের সাথে কয়েকজনের ধাক্কাধাক্কির ঘটনার ঘটেছে-এসব নিয়ে ফেইসবুকে স্ট্যাটাসে রিফাত আহমেদ বলেন, ‘যারা অনুষ্ঠানে প্রবেশ করতে পারেনি তাদের মধ্যে ৯৫% লোক শান্ত ছিলেন।কিন্তু কিছু লোক পেছন থেকে উস্কানি দিচ্ছিল। একটা সময় হোটেল কতৃপক্ষ তাদের প্রপার্টি সেইফ রাখার জন্য হোটেল থেকে পুলিশকে কল দেয়, সাথেই খিলক্ষেত থানা, সাথেসাথেই বেশ কিছু পুলিশ আসে। হোটেল কর্তৃপক্ষের জন্য যারা দায়িত্বে নিয়জিত থাকে যাতে হোটেল এর কোনো ক্ষতি না হয়।’

তবে যারা প্রবেশ করতে পেরেছেন তারা অনুষ্ঠান কক্ষে আসন পেয়েছেন।

অনলাইন পেশাদার মোহম্মদ আসিফ টেকশহরডটকমকে জানান, ‘ভাগ্যবান যারা অনুষ্ঠানে প্রবেশ করতে পেরেছিল তারা ঠিকভাবে আয়োজন উপভোগ করেছে।’

কয়েকদিন আগে অনলাইন পেশাদারদের নিয়ে খুলনায় এমন অনুষ্ঠান করেছিল পেওনিয়ার। সেখানেও একই ঘটনা ঘটেছিল। নিবন্ধন নিশ্চিত করে আমন্ত্রণ পাওয়ার পরেও অনেকেই অনুষ্ঠানে প্রবেশ করতে পারেনি। একই ঘটনা আবারও ঘটায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পেওনিয়ারকে নিন্দা জানাচ্ছে অনেক অনলাইন পেশাদাররা।

*

*

আরও পড়ুন