একাডেমি-ইন্ডাস্ট্রি মিলেই হবে প্রযুক্তি উন্নত দেশ

Seminer
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ডিজিটাল দেশ গড়তে একাডেমিক এবং ইন্ডাস্ট্রি দুটোকে এক হয়ে কাজ করতে হবে। তাছাড়া কখনোই একটি দেশকে ডিজিটাল কিংবা প্রযুক্তিতে উন্নত দেশ হিসেবে গড়ে তোলা সম্ভব হবে না। এজন্য শিক্ষা ব্যবস্থার উপর জোরারোপের জন্য মতামত দিয়েছেন খাত দুটির সংশ্লিষ্টরা।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর বসুন্ধরা আন্তর্জাতিক কনভেনশন সিটিতে ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডের দ্বিতীয় দিনে ‘ইন্ডাস্ট্রি-একাডেমি ডায়ালগ ফর ডিজিটাল গ্রোথ’ শীর্ষক সেমিনারে এসব মতামত দেন তারা।

Seminer
সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। আর সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন প্রগতি সিস্টেম লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী ড. শাহাদাত হোসেন।

তিনি তার উপস্থাপনায় একাডেমিক পরিসরে কিভাবে শিক্ষা গ্রহণ করা হয় এবং তা যখন ইন্ডাস্ট্রিতে প্রয়োগ করা হয় তার একটা বিশাল ফারাকের কথা তুলে ধরেন।

তিনি তার উপস্থাপনায় দেখান, তথ্যপ্রযুক্তি শিক্ষার ক্ষেত্রে বাংলাদেশের অবস্থান এখন খুবই করুণ। বিশ্বের ১৬৬টি দেশে তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ে একাডেমিক শিক্ষা চালু রয়েছে। যেখানে বাংলাদেশের অবস্থান ১৫৫তম। এই অবস্থান দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে সবচেয়ে নীচের সারিতে।

এই অবস্থায় থেকে দেশে দক্ষ কিংবা সুশিক্ষিত তথ্যপ্রযুক্তি খাতে লোকবল আশা করা সম্ভব হবে না। এর জন্য একটি মানসম্মত শিক্ষার উপর গুরুত্বরোপ করতে হবে বলে মতামত দেন তিনি।

পরে ইন্ডাস্ট্রির পক্ষ থেকে বিডিজবস ও আজকের ডিলের প্রধান নির্বাহী ফাহিম মাশরুর আলোচনায় অংশ নেন।
প্রযুক্তির এই ব্যবসায়ী তার বক্তব্যে বলেন, ইন্ডাস্ট্রি কখনোই সুপ্রশিক্ষিত লোকবল চায় না। তবে তারা প্রকৃত শিক্ষিত লোক চায়। চার বছরে যে শিক্ষা দরকার সেই শিক্ষায় শিক্ষিত লোকই চায় ইন্ডাস্ট্রি।

তবে মাশরুর তার বক্তব্যে বলেন, একাডেমিক থেকে বের হওয়া শিক্ষার্থীরা যারা ইন্ডাস্ট্রিতে যায় তাদের টুল শেখানোর দায়িত্ব ইন্ডাস্ট্রির। কিন্তু যে মিথটা দেশে চালু আছে সেটা আসলে এই খাতের জন্য ভয়ংকর হতে পারে।
পরে তথ্যমন্ত্রী তার বক্তেব্যে বলেন, একাডেমিক এবং ইন্ডাস্ট্রি দুটি খাত আসলে দুটোর পরিপূরক। কারণ একাডেমি থেকে লোক ইন্ডাস্ট্রিতে কাজে আসে। এজন্য আসলে তর্কের কোনো অবকাশ নেই।

একাডেমি থেকে ইন্ডাস্ট্রিতে যখন আসে তখন তার কাজ হয় ইন্ডাস্ট্রিকে প্রমোট করতে কাজ করা। তার সুবিধা-অসুবিধা দেখা। তাই ইন্ডাস্ট্রিতে কাজের জন্য তাকে অবশ্যই প্রস্তুতির শিক্ষা পেতে হবে একাডেমি থেকে।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন শিক্ষাবিদ অধ্যাপক জামিলুর রেজা চৌধুরী, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সহযোগী অধ্যাপক তৌহিদ ভূঁইয়া, আইইউটি অধ্যাপক এম এ মোতালিব, অধ্যাপক রাহুল সন্দ্বীপ, এসআরআইআই সভাপতি কৃশ সিং, বিসিসি ডিরেক্টর এলামুল কবির, অ্যধাপক কায়কোবাদসহ আরও অনেকে।

ইমরান হোসেন মিলন

*

*

আরও পড়ুন