ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন : মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুর অবমাননায় যাবজ্জীবন

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : মুক্তিযুদ্ধ এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিরুদ্ধে প্রচার, প্রোপাগান্ডা চালালে বা মদদ দিলে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড, কোটি টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ডের বিধান রেখে ডিজিটাল সিকিউরিটি আইনের নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রীসভা।

সোমবার সচিবালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের খসড়ার অনুমোদন দেওয়া হয়। আইনটির নীতিগত অনুমোদন দেয়া হলেও সেটি আরও পর্যালোচনা ও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে আইনমন্ত্রীকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সাংবাদিকদের জানান,  মোবাইল বা কোনো ডিজিটাল ডিভাইসে জালিয়াতি, প্রতারণা ও হুমকি, প্রতারণা বা ঠকানোর উদ্দেশ্যে অন্যের তথ্য নিজের দেখানো, মানহানি, শত্রুতা,পনোগ্রাফি, আতংক সৃষ্টিসহ বিভিন্ন সাইবার অপরাধে শাস্তির বিধান রয়েছে এ আইনে।

cyber security law

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইন-২০০৬ (সংশোধিত-২০০৯ ও ২০১৩) এর ধারা-৫৪, ৫৫, ৫৬ ও ৫৭ বাতিলের সুপারিশ করা হয়েছে। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের উপযুর্ক্ত ধারাগুলো পুনর্গঠন ও পরিমার্জন করে এবং বাংলাদেশ দন্ডবিধি, ১৮৬০ এর রেফারেন্স উদ্ধৃত করে প্রস্তাবিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন এর ধারা-১৯, ধারা-২০ ও ধারা-২১ এ সন্নিবেশিত করা হয়েছে।

আইনির খসড়ায় মোট ৭ টি অধ্যায় ও ৪৪ টি ধারা রয়েছে।

অধ্যায়-১ এ প্রারম্ভিক (ধারা ০১-০৪), অধ্যায়-২ এ ডিজিটাল নিরাপত্তা এজেন্সি (ধারা ০৫-০৬), অধ্যায়-৩ এ অত্যাবশ্যকীয় তথ্য পরিকাঠামো (ধারা ০৭-০৮), অধ্যায়-৪ এ অপরাধ ও দণ্ড(ধারা ০৯-২৩), অধ্যায়-৫ এ তদন্ত ও তল্লাশি (ধারা ২৪-৩৮), অধ্যায়-৬ এ আন্তর্জাতিক ও আঞ্চলিক সহযোগিতা (ধারা ৩৯) ও অধ্যায়-৭ এ বিবিধ (ধারা ৪০-৪৪) রয়েছে।

আল-আমীন দেওয়ান

*

*

আরও পড়ুন