Techno Header Top and Before feature image

ইস! মার্গারিটার হাতে আজ বাংলাদেশের পতাকা থাকতো!

margarita-mamun_Techshohor
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : রিও অলিম্পিকে রিদমিক জিমন্যাস্টিকসে প্রথম হয়ে স্বর্ণ জিতেছে বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত মার্গারিটা মামুন।

মার্গারিটা মামুনকে ফেইসবুকে অভিনন্দন জানিয়ে পোস্ট করেছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম।

ওই পোস্টে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আক্ষেপ করে জানিয়েছেন মার্গারিটা বাংলাদেশের হয়েও এবার অলিম্পিকে সোনা জিততে পারতো। তিনি লেখেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় (২০০৭-২০০৮) তার পিতা বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনে যোগাযোগ করেছিলো তার মেয়েকে বাংলাদেশের হয়ে অংশগ্রহণ করানোর জন্য। কিন্তু তখনকার প্রশাসন আগ্রহ প্রকাশ করেনি।

margarita-mamun_Techshohor
তবে এতো কিছুর পরেও অলিম্পিকে সোনা জেতায় মার্গারিটা মামুনকে অভিনন্দন জানিয়ে তিনি লেখেন, যাইহোক তবুও আমরা তার এই অর্জনে আনন্দিত তো হতেই পারি।

এছাড়াও একটি পোস্টে শাহরিয়ার আলম বাংলাদেশে অচিরেই রিটা আসবেন জানিয়ে লেখেন, মামুন ভাই কথা দিয়েছেন অলিম্পিকের পরে মেয়েকে নিয়ে বাংলাদেশে আসবেন। তখন ‘বাংলার বাঘীনি’র জন্য ফুলের তোড়াটা নিশ্চয় আরও অনেক বড় হবে।

বাংলাদেশের পতাকা বহন করেনি ঠিকই, তবে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত রিটাকে অভিনন্দন। হয়তো সুযোগটা আমরা বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের (বিওএ) জন্যই মিস করেছি, লিখেছেন আমিন শাহাবুদ্দিন।

তবে আবার অনেকেই বিওএকে কটাক্ষ করে প্রতিমন্ত্রীল পোস্টে মন্ত্রব্য করেছেন যে, তাকে হয়তো বাংলাদেশে নিয়ে আসা হলে ব্যর্থতাই দেখা যেত। কারণ সৎ সঙ্গে সর্গ বাস, অসৎ সঙ্গে সর্বনাশের মতো হতো।

মার্গারিটা মামুনের পিতা রাজশাহীর পুঠিয়ার আবদুল্লাহ আল মামুন পেশায় একজন প্রকৌশলী। ১৯৮৩ সালে শিক্ষাবৃত্তি নিয়ে রাশিয়া (তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়ন) যাওয়ার পর সেখানেই বিয়ে করে স্থায়ী হন। রিটার মা আনা সাবেক রিদমিক জিমন্যাস্ট। রিটার জন্মও রাশিয়াতেই।

তবে সেই রিটা এখন লাল-সবুজের পতাকা না উড়িয়ে ওড়ায় রাশিয়ার পতাকা।

ইমরান হোসেন মিলন

*

*

আরও পড়ুন