Samsung IM Campaign_Oct’20

মোদি কি পারবেন ওবামাকে হারাতে!

narendra-modi-barack-techshohor
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : সোশ্যাল মিডিয়াতে কে বেশি জনপ্রিয় নরেন্দ্র মোদি নাকি বারাক ওবামা? এ নিয়ে চলছে হিসাব নিকাশ, এমনকি গবেষণাও । সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুক ও টুইটারে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের পরেই জনপ্রিয় সরকার প্রধানদের মধ্যে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রীর নামই আসে ।

প্রতিদিনের সব কাজের আপডেট দেওয়ার সঙ্গে চমকে দেওয়ার মতো তথ্য প্রকাশ করে মোদি প্রায়ই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সাড়া ফেলে দেন।

এই যেমন সোনিয়া গান্ধীর খোঁজ খবর নেওয়া কিংবা গত ডিসেম্বরে হঠাৎ লাহোরে গিয়ে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করার খবর টুইটারে প্রথম দিয়েছিলেন তিনি ।

Narendra modi-obama-techshohor

২০১৪ সালের নির্বাচনে জয়ী হওয়ার পর ‘ভারত জিতেছে’- এ টুইট এখনও রিটুইট হয়। তার নিজস্ব মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড হয়েছে দুই কোটির ও বেশি। আরও গুছিয়ে কাজের জন্য গত ৬ আগস্ট প্রধানমন্ত্রী মোদি তার অফিসিয়াল অ্যাপ চালু করেন ।

বিশ্লেষণ বলছে, মাত্র এক মাসে তার ফেইসবুকে ৪০ কোটি লাইক, শেয়ার, কমেন্ট ও ১৭ থেকে ২১ কোটি ফলোয়ার রয়েছে। আর টুইটারে এ সংখ্যা হয় ১ কোটি ৭০ লাখ। জুলাইয়ে তার অ্যাপ প্রতিদিন এক লাখ ইউজার দেখেন। গড়ে একজন মানুষ ১৫ মিনিট করে অ্যাপটিতে ভিজিট করে ।

দু’বছর পূর্তি উপলক্ষে মোদির ‘দেশ বাদল রাহা হে’ গানটি ৮০ লাখ মানুষ সোশ্যাল মিডিয়াতে দেখেছে। ওবামার বাইরে তিনিই একমাত্র নেতা যিনি নতুন এ মাধ্যমকে দারুণভাবে ব্যবহার করছেন ।

দুটি উদ্দেশ্যে মোদির এ ডিজিটাল কৌশল। জনগণের সঙ্গে সহজে যোগাযোগ এবং ২০১৯ সালের নির্বাচন।

narendra-modi-barack-techshohor

সবচেয়ে ক্ষমতাধর দেশের প্রেসিডেন্ট ওবামা দিয়েছেন ফেইসবুক প্রজন্মের নেতৃত্ব। আর সবচেয়ে জনবহুল দেশের প্রধানমন্ত্রী মোদি হলেন অ্যাপ প্রজন্মের নেতা।

ফেইসবুকে ৪ আগস্ট প্রিয় বন্ধু বারাক ওবামাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাতে ভোলেননি তিনি । তেমনি তার ও দলের সবচেয়ে বড় সমালোচক দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে ফলো করেন।

মোদির চেয়ে ওবামা ফেইসবুক লাইকস (৪৯ কোটি) ও টুইটার ফলোয়ারে (৭৬ কোটি) এগিয়ে রয়েছেন। জানুয়ারিতে ওবামার দুই বারের মেয়াদ শেষ হয়ে গেলে মোদির জনপ্রিয়তা আরও বাড়বে। তখন তিনিই হবেন বিশ্বের এক নম্বার রাজনিতিক বলে দাবি করেছে তার কার্যালয়ের কর্মকর্তারা।

পোর্টল্যন্ড কমুনিকেশন সফট পাওয়ার ইনডেক্স রিপোর্ট-২০১৬ অনুযায়ী, মোদির যে কোনো আপডেট বিশ্বের অন্য কোনো নেতার চেয়ে অনেক বেশি আকর্ষণীয় হয় ।

বৈশ্বিক জনসংযোগ ও যোগাযোগ প্রতিষ্ঠান বারসন মারস্তেলার গত জুনে প্রকাশিত এক গবেষণায় দেখা যায়, সোশ্যাল মিডিয়ার কল্যাণে মোদির জনপ্রিয়তা আরও বাড়ছে।

যুক্তরাষ্ট্রের সম্ভাব্য প্রেসিডেন্ট হিলারি ক্লিনটন বা ডোনাল ট্রাম্পের টুইটার ফলোয়ার যথাক্রমে ৮ ও ১০ কোটি, ফেইসবুক লাইকস ৫ কোটি ও ১০ কোটি। সেই হিসাবে ২০১৭ সালে নরেন্দ্র মোদিই হবেন সোশ্যাল মিডিয়ার প্রেক্ষপটে বিশ্বের শীর্ষ নেতা ।

ইন্ডিয়া টাইমস থেকে তাহমিনা তানিয়া

*

*

আরও পড়ুন