Techno Header Top and Before feature image

আই অ্যাম জিপিএ ফাইভ : ফেইসবুকে লজ্জার ভাইরাল

ssc-techshohor

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : সোমবার সকাল থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে ভাইরাল হয়েছে মাছরাঙ্গা টেলিভিশনের একটি সংবাদের ভিডিও। যেখানে সদ্য মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট বা এসএসসি পরীক্ষায় জিপিও ৫ প্রাপ্ত কয়েকজন শিক্ষার্থীর সঙ্গে প্রতিবেদক কথা বলছেন।

ভাইরাল হওয়া ওই প্রতিবেদনে শিক্ষার্থীদের কয়েকটি প্রশ্ন করেন প্রতিবেদক। যেখানে বেশিরভাগ প্রশ্নের উত্তর দিতে পারেননি শিক্ষার্থীরা। এমনকি যে প্রশ্নগুলোর উত্তর দিয়েছেন সেগুলোর বেশিরভাগ ছিল ভুল উত্তর।

ফলাফল যা হয়েছে কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে হাজারো শেয়ার আর কমেন্টে ফেইসবুকের ওয়াল ভারি হয়েছে।

ssc-techshohor

কেউ শিক্ষার্থীদের এমন না পারাকে দেখছেন চরম লজ্জা হিসেবে। কেউবা এটা নিয়ে হাসিঠাট্টায় মেতে উঠেছেন। তবে অনেকেই আবার এর বিপরীতেরও আছেন। অর্থাৎ ভাইরাল ভিডিওটি নিয়ে ইতি ও নেতি দু’ধরনের প্রতিক্রিয়ায় দেখা যাচ্ছে।

কেউ কেউ অবশ্য বলছেন এটা শুধু যে শিক্ষার্থীদের না পারার দোষ তা নয়, এটা সবার ঘাড়েই বর্তায়। শিক্ষার্থী, অভিভাবক এমনকি শিক্ষকদেরও।

তবে পুরো বিষয়টিকে শিক্ষার অপমান বলেও পোস্টে বলছেন অনেকেই। ফাহিম মাশরুর নামের একজন লিখেছেন, একদিকে শিক্ষকের অপমানে আমরা সবাই কান ধরেছি। আর ওদিকে ‘শিক্ষার’ অপমান আমরা বছরের পর বছর উদযাপন করছি!

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইন্সটিটিউটের অধ্যাপক মোহাম্মদ মজিবুর রহমান তার ফেইসবুক পোস্টে লিখেছেন, মাছরাঙা টিভির ৬.৩৮ মিনিটের ভিডিও ক্লিপটি ফেইসবুকের দেয়ালে দেয়ালে ঘুরছে। আমাদের শিক্ষার ভিত্তিমূলে কম্পন সৃষ্টি করেছে (দুঃখ ও লজ্জায় ভিডিও ক্লিপটি শেয়ার করতে পারলাম না)।

সর্বনাশা উন্নয়নের নেশা আমাদের কোথায় নিচ্ছে এই ভিডিও ক্লিপটি তার একটি ক্ষুদ্র দৃষ্টান্ত মাত্র। দয়া করে একে বিচ্ছিন্ন ঘটনা বলে শাক দিয়ে আর মাছ ঢাকবেন না। প্রজন্ম ধ্বংসের এই নিষ্ঠুর খেলায় আমরা সবাই কমবেশি অংশীদার। রোগ হলে তা লুকিয়ে না রেখে চিকিৎসা করতে হয়। অতিসত্বর যে যার অবস্থান থেকে এই উন্নয়ন উন্নয়ন খেলা থামান। এখনি।

শিক্ষাবিদরা বলছেন, শুধু সংখ্যা দিয়ে নয়, শিক্ষার গুনগত মান না বাড়ালে এই অবস্থা চলতেই থাকবে। তাই মেধার বিকাশে প্রকৃত জ্ঞানদান আর পাঠদানের ব্যবস্থা করা প্রয়োজন।

প্রকাশ রয় নামের একজন ফেইসবুকে পোস্ট করেছেন, তুইতো একটা জিপিএ ফাইভ এটা না আবার টিটকারি মারার অস্ত্র না হয়ে যায়…

ইমরান হোসেন মিলন

আরও পড়ুন: 

*

*

আরও পড়ুন