Techno Header Top and Before feature image

বাংলাদেশে গুগল ম্যাপে ঠিকানা বিক্রি, অফিস খুলে প্রতারণা

তুসিন আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ম্যাপিং বাংলাদেশ কমিউনিটির গুগল ম্যাপ মেকারের চিফ এক্সিকিউটিভ ম্যানেজার হাসান শাহেদ। কয়েক মাস আগে তাঁর কাছে আসেন গুগল বাংলাদেশের এক কর্মকর্তা, যিনি কিনা গুগল ম্যাপে  অফিসের ঠিকানা যুক্ত দেবেন। আর এর জন্য গুগল নির্ধারিত ফি ৬৮ ডলার। বিস্ময়ের ঘোর কাটে না হাসান শাহেদের, এ কোন পর্যায়ের বাটপারি!

বাংলাদেশে গুগলের কোনো অফিস নেই, এখানে কার্যক্রম সব স্বেচ্ছাসেবী কমিউনিটি কেন্দ্রিক। সেই ম্যাপিং কমিউনিটির প্রধানের কাছেই ঠিকানা বিক্রি করতে ভুয়া গুগল কর্মকর্তা হাজির।

টেকশহরডটকমের অনুসন্ধানে বেরিয়ে আসে আরও অবাক করা তথ্য। রীতিমতো ঢাকঢোল পিটিয়ে বড় আয়োজনে নেমেছে এই প্রতারকরা। দেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন জব মার্কেটপ্লেস বিডিজবস ডটকমে বিশাল বিজ্ঞাপন দিয়ে বহু লোক নিয়োগ করে গুগল কর্মকর্তা পরিচয়ে মাঠে নামিয়ে দেয়া হয়। প্রথমে এই প্রতারণা শুরু করে ‘অল ব্র্যান্ডভিশন’ নামে একটি প্রতিষ্ঠান।

ss

‘গুগল ম্যাপে আপনার প্রতিষ্ঠানকে যুক্ত করতে চান? প্রয়োজন হবে মাত্র ৩ হতে ১০ হাজার টাকায়, তাও সরাসারি গুগলের বাংলাদেশ শাখা থেকে করা যাবে’-এমনি চটকদার বিজ্ঞাপন দিচ্ছে অল ব্র্যান্ডভিশন করপোরেশন। এরপর এই প্রতিষ্ঠান হতে প্রতারণার দীক্ষা নিয়ে শুরু করে টেকস্ট্রেইট কর্পোরেশন নামে আরেক প্রতিষ্ঠান।

অল ব্র্যান্ডভিশনের ওয়েবসাইটে গিয়ে দেখা যায়, কোনো প্রতিষ্ঠানের শো-রুম গুগল ম্যাপ যুক্ত করতে ৩ হাজার ৬৮০ টাকা, হেড অফিস যুক্ত করতে ৬ হাজার ৮৮০ টাকা, কোনো সিটি বা এলাকা যুক্ত করতে  ১০ হাজার ৫৬০ টাকা চার্জ নেয়া হয়ে থাকে।

গুগল ডেভেলপার গ্রুপ কমিউনিটির উপদেষ্টা আরিফ নিজামী টেকশহরডটকমকে জানান, ‘গুগল ম্যাপে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে  যেকোনো প্রতিষ্ঠানের ঠিকানা যুক্ত করা যায়। এর জন্য কোনো অর্থের প্রয়োজন হয় না। বাংলাদেশে গুগলের কোনো অফিস নেই। কিন্তু প্রতারকরা মানুষকে বোকা বানাচ্ছে। মানুষকে ভুল বুঝিয়ে গুগলের ভুয়া ভিজিটিং কার্ড ব্যবহার করে টাকা হাতিয়ে  নিচ্ছে প্রতিষ্ঠানগুলো।’

হাসান শাহেদ টেকশহরডটকমকে জানান, ‘পাঁচ মাস আগে গুগলের কর্মকতা পরিচয়ে তানভির আহমেদ নামে এক ব্যক্তি অাসেন। গুগল ম্যাপে অফিসের ঠিকানা যুক্ত করে দেবেন বলে টাকা দাবি করেন’।

তিনি বলেন, ‘খোঁজ নিয়ে বের হয় ওই প্রতারক অল ব্র্যান্ডভিশনের। প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নিবার্হী নুরুল ইসলামকে যখন ধরা হলো তখন আর টাকা না নেয়ার প্রতিশ্রুতিও দেন।’

নুরুল ইসলাম গুগল ম্যাপস বাংলাদেশ কমিনিউটির সাথেও যুক্ত নন বলেও উল্লেখ করেন গুগল ম্যাপ মেকারের এই চিফ এক্সিকিউটিভ ম্যানেজার।

all brand vision

তানভির আহমেদের ভিজিটিং কার্ডে হেড অফিস হিসেবে গুগলের ইউকে অফিসের ঠিকানা দেয়া। কার্ডে ব্যবহার করা হয়েছে গুগল ম্যাপের লোগো। সাধারণ মানুষ যা দেখে আসল গুগলের কার্ড ও কর্মকর্তা মনে করে সহজেই বিভ্রান্তিতে পড়বেন।

তানভির আহমেদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি টেকশহরডটকমকে জানান, ‘মূলত অল ব্র্যান্ডভিশন কোম্পানির মার্কেটিং ম্যানেজার তিনি। এসব কাজ এনে তিনি অল ব্র্যান্ডভিশনকে দেন। কোম্পানির নির্দেশনা অনুযায়ী তিনি কাজ করেছেন।’

তানভির বলেন, ‘কয়েকদিন আগে তিনি গুগল ম্যাপিং ব্যাপারে অনেক অভিযোগ পাওয়ায় তিনি ওই চাকরি ছেড়ে দেন।’

অল ব্র্যান্ডভিশনের প্রধান নিবার্হী নুরুল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে, প্রথমে তিনি প্রতারণার দায়  তানভির আহমেদের ওপর চাপান।

তিনি বলেন, ‘পার্ট-টাইমার হিসেবে তার প্রতিষ্ঠানে কাজ করে তানভির ভিন্ন নামে প্রতিষ্ঠান চালু করে গুগল ম্যাপিং নিয়ে প্রতারণা করত।  বিষয়টি  জানার পর তানভিরকে চাকরি থেকে চার মাস পূর্বেই বাদ দেয়া হয়।

কিন্তু তানভির তা অস্বীকার করেন। তিনি টেকশহরডটকমকে বলেন, ‘নুরুল ইসলামের অফিসে মার্কেটিং ম্যানেজার হিসেবে কাজ করতেন। মাত্র কয়েকদিন আগে তিনি স্বেচ্ছায় চাকরি ছেড়েছেন।’

যদিও তানভিরের গুগলের ভুয়া ভিজিটিং কার্ডে টেকস্ট্রেইট কর্পোরেশনের নাম ও ঠিকানা দেয়া হয়েছে।

এর পর প্রতারণার শিকার হওয়া ব্যক্তি-প্রতিষ্ঠান, অল ব্র্যান্ডভিশনের ওয়েবসাইটে গুগল ম্যাপিংয়ের বিস্তারিত প্রপোজাল লেটার থেকে শুরু করে তাদের ক্লায়েন্ট ও কত টাকা ফি নেয়া হয় তার বিস্তারিত প্রমাণ তুলে ধরলে ম্যাপিং করে টাকা নেয়ার কথা স্বীকার করেন নুরুল ইসলাম।

maps-local-fake-techshohor

নুরুল ইসলাম বলেন, ‘অল ব্র্যান্ডভিশন আগে গুগল ম্যাপিং করতে টাকা নিতো। মূলত ওয়েবসাইট তৈরির কাজ করে থাকে প্রতিষ্ঠানটি। যেখানে বাড়তি সার্ভিস হিসেবে ম্যাপিং যুক্ত করতে টাকা চার্জ করা হতো।’

বুধবার অল ব্যান্ডভিশনের ওয়েবসাইট অফ লাইনে পাওয়া যায়। প্রতারণার শিকার অনেকেই খোঁজ-খবর করতে ওই ওয়েবসাইট সাসপেন্ড দেখতে পান।

সম্প্রতি প্রতারণার শিকার হন স্বনামধন্য রেস্টুরেন্ট নানুস ফুড ফ্যাক্টরির স্বত্ত্বাধিকারী আদীবা জেরিন চৌধুরী। তিনি তাঁর ফেইসবুক স্ট্যাটাসে এই প্রতারণার বিষয়টি তুলে দেন।

তিনি টেকশহরডটকমকে জানান, ‘সোমবার নানুস ফুড ফ্যাক্টরিতে গুগলের দুই কর্মকর্তা এসে রেস্টুরেন্টের ‘লাইফ লং’ ম্যাপ মার্কিং করার কথা বলে। এরজন্য ৬৮০০ টাকাও নেয় তারা।’

‘বিষয়টি নিয়ে সন্দেহ হলেও নিজে উপস্থিত না থাকায় রেস্টুরেন্টের ম্যানেজার সরল বিশ্বাসে টাকা দিয়ে ম্যাপিং করে। পরে প্রতারকদের ফোন করে থানায় অভিযোগ করার কথা বললে তারা টাকা ফেরত দেয়। তখন প্রতিষ্ঠানের নাম বলে অল ব্র্যান্ডভিশন’।

আদীবা জানান, ‘প্রতারকরা বলছে গুগল তাদের দিয়ে লোকেশন মার্ক করায়, গুগল না নিলেও তারা ফি নেয়।’

আরও পড়ুন: 

১ টি মতামত

  1. D.M Pavel said:

    এই সব প্রতারক দের তাড়াতাড়ি আইন এর আওতায় আনা উচিত । এদের শাস্তি না হলে, আমরা সাধারন জনগন যারা গুগল এর বিভিন্ন সার্ভিস ফ্রি ব্যবহার করি তারা অচিরেই বিপদে পড়তে পারি। কারন গুগল এই বিষয় টা জানলে খুব কঠোর পদক্ষেপ নিতে পারে, যার মধ্যে আমরা সাধারন জনগন পড়তে পারি। এই গুরুত্বপূর্ণ খবর শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ।

*

*

আরও পড়ুন