আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশি অ্যানিমেশন শর্টফিল্ম 'হ্যাপি ওয়ার্ল্ড'

তুসিন আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দ্যা উই আর্ট ওয়াটার ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভালের চূড়ান্ত পর্বের জন্য মনোনীত হয়েছে বাংলাদেশি অ্যানিমেশন শর্টফিল্ম ‘হ্যাপি ওয়ার্ল্ড’। প্রতিযোগিতার মাইক্রো অ্যানিমেশন ক্যাটাগরিতে এই শর্টফিল্মটি মনোনয়ন পেয়েছে।

হ্যাপি ওয়ার্ল্ডে আফ্রিকা ও বাংলাদেশে খাবার পানির বিভিন্ন সমস্যা ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। উই আর ওয়াটার ফাউন্ডেশন প্রতি বছর দ্য উই আর্ট ওয়াটার ইন্টারন্যশনাল ফিল্ম ফেস্টিভাল আয়োজন করে। এই ফেস্টিভালের মূল লক্ষ্য হলো, পৃথিবীজুড়ে খাবার পানির সমস্যা সম্পর্কে সচেতনতা তৈরি করা।

ভেস্টিভালের বিচারক বোর্ড প্রায় ৩০০ শর্টফিল্ম থেকে ৪০ টি শর্টফিল্ম চূড়ান্ত পর্বের জন্য বাছাই করেন। প্রায় ৮৮টি দেশ থেকে তিনটি ক্যাটাগরিতে এসব শর্টফিল্ম জমা হয়।

Final Poster

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির মাল্টিমিডিয়া ডিপার্টম্যান্টের কয়েকজন স্টুডেন্ট মিলে এই অ্যানিমেশন শর্টফিল্মটি প্রায় ৩ মাস সময় নিয়ে তৈরি করে।

হ্যাপি ওয়ার্ল্ড সম্পর্কে অ্যানিমেশন নির্মাতা হাসান যোবায়ের টেকশহরডটকমকে বলেন, আমাদের ইচ্ছে ছিল এমন কিছু করার, যেন শিখতে শিখতে অ্যানিমেশন শর্টফিল্ম তৈরি করতে পারি। এ অবস্থায় উই আর ওয়াটারের উদ্যাগটি আমাদের চোখে পড়ে। এটিকে টার্গেট করেই হ্যাপি ওয়ার্ল্ড তৈরি করা হয়েছে। অ্যানিমেশন শর্টফিল্মটি বানাতে সময় লেগেছে তিনমাস।

তিনি আরও জানান, শর্টফিল্ম তৈরি করতে সহযোগিতা করেছেন বাপ্পি, রাহাত ও তারেক। সময় স্বল্পতার কারণে কিছু ভুল থাকা সত্বেও আমরা শর্টফিল্মটি জমা দেই।

বিচারকদের রায়ের ভিত্তিতে তিনটি ক্যাটাগরিতে প্রতি টিমকে তিন হাজার ইউরো করে পুরস্কার দেয়া হবে। এছাড়া অডিয়েন্স অ্যাওয়ার্ডে আরও এক হাজার ইউরো পুরস্কার দেয়া হবে। ২০১৬ সালের মে মাসে স্পেনের রোকা মাদ্রিদ গ্যালারিতে বিজয়ীদের নাম ঘোষণা ও পুরস্কার প্রদান করা হবে।

ইতোমধ্যে শুরু হয়েছে ভোটিং পর্ব। ‘হ্যাপি ওয়ার্ল্ড’ কে ভোট দেয়া যাবে এই ঠিকানায় গিয়ে।

*

*

আরও পড়ুন