Techno Header Top and Before feature image

এক সপ্তাহে ৬০ দিন !

Evaly in News page (Banner-2)

তুসিন আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর :  চলতি বছরের জানুয়ারিতে ‘ওয়ালটন প্রিমো জিএফ’ স্মার্টফোনটি কিনেছিলেন চাকরিজীবী তোফাজ্জল হোসেন। ছয় মাস না যেতেই হ্যান্ডসেটটির ডিসপ্লেতে সমস্যা দেখা দেয়। আরও দু’মাস কোনোভাবে ব্যবহারের পর  বসুন্ধরা সিটির ওয়ালটন সার্ভিস সেন্টারে যান তিনি। সার্ভিস সেন্টার থেকে জানানো হয়, ফোনটি ঠিক করতে এক সপ্তাহ সময় লাগবে।

যথাসময়ে হ্যান্ডসেটটি আনতে গেলে আরও এক সপ্তাহ সময় নেন সার্ভিস সেন্টার কর্মীরা। পরের সপ্তাহে গেলে আরও এক সপ্তাহ। এভাবে সাতবার ফিরে আসেন তিনি। ঘুরতে ‍ঘুরতে প্রায় দুই মাস পর স্মার্টফোনটি ফেরত পান ওয়ালটনের এই গ্রাহক।

শুধু তোফাজ্জল হোসেন নন, দেশীয় হ্যান্ডসেট ব্র্যান্ড ওয়ালটনের বিক্রয়োত্তর সেবা নিয়ে এমন ভোগান্তির অভিযোগ ভুড়িভুড়ি।

মিরপুরের বিসিআইসি কলেজের ছাত্র শাওন শেখ ‘ওয়ালটন প্রিমো এইচএম’ ফোনে সফটওয়্যারের সমস্যা নিয়ে মিরপুরস্থ রূপনগরের সার্ভিস সেন্টার যান। কিন্তু প্রতিশ্রুত সময়ে ফোনটি মেরামত না করে তাকে চার-পাঁচবার ঘুরানো হয়।

ওয়ালটনের বিক্রয়োত্তর সেবা নিয়ে বিরক্তি প্রকাশ করে শাওন টেকশহরডটকমকে জানান, এমন ফালতু সার্ভিস জানলে ওয়ালটনের ফোন কিনতাম না।

আরও পড়ুন: কর্মী ছাঁটছে কেইমু, বন্ধ হচ্ছে বিভিন্ন বিভাগ

walton

হাসান আব্দুল্লাহ ‘প্রিমো এইচএম মিনি’ স্মার্টফোনটি সার্ভিস সেন্টারে দিয়ে দেড় মাসেও ফেরত পাননি বলে টেকশহরডটকমকে জানান। এ নিয়ে ওয়ালটনের ফেইসবুক গ্রুপে একটি পোস্ট দেন তিনি। এই পোস্ট দেখে ওয়ালটন কর্তৃপক্ষ তাকে ডেকে নিয়ে নতুন একটি ফোন দেয় এবং অনুরোধ করে, পোস্টটি যেন সরিয়ে করে দেয়া হয়।

তিনি জানান, ওয়ালটনের সার্ভিসে অনেকের মত আমিও হতাশ। যদিও আমি নতুন ফোনসেট পেয়েছি। কিন্তু অসংখ্য ভুক্তভোগী আছেন যারা দিনের পর দিন সার্ভিস সেন্টারে দৌড়াচ্ছেন।

ওয়ালটনের অপারেটিভ ডিরেক্টর উদয় হাকিম টেকশহরডটকমকে জানান, দেশে একমাত্র ওয়ালটনের সার্ভিস সেন্টারই আইএসও সার্টিফাইড। বিক্রয়োত্তর সেবা দিতে আমাদের উচ্চ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত অনেক কর্মী রয়েছেন।

বিক্রয়োত্তর সেবা নিয়ে ক্রেতাদের এমন অভিযোগের কথা স্বীকার করে তিনি বলেন, আমরা ক্রেতাদের অভিযোগ সবসময় গুরুত্বের সাথে নিয়ে থাকি। সম্প্রতি সার্ভিস সেন্টারগুলোর জন্য অফিসিয়াল নির্দেশনা দেয়া হয়েছে যে, গ্রাহককে যতদ্রুত সম্ভব সেবা দিতে হবে। কোনোভাবেই গ্রাহককে ঘোরানো যাবে না কারণ গ্রাহকই আমাদের কাছে প্রধান।

12169789_1020457104671290_1209262014_o (1)

তোফাজ্জল হোসেনের ভোগান্তি নিয়ে ৪৯ দিনের মাথায় টেকশহরডটকম বসুন্ধরাস্থ ওয়ালটনের সার্ভিস সেন্টারে যোগাযোগ করে। ওই সময় সাবরিনা ইসলাম নামের এক কর্মকর্তা জানান, ফোনটি ডিসপ্লেতে সমস্যা রয়েছে বলে সময় লাগছে। হার্ডওয়্যারে সমস্যা আছে এমন ডিভাইসের ক্ষেত্রে বেশি সময় লাগে। মূলত স্টকে মাদারবোর্ড বা ডিসপ্লে না থাকায় এই সমস্যা তৈরি হয়।

বিক্রয়োত্তর সেবা নিয়ে হয়রানীর শিকার এক নারী গ্রাহক নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, ফোন কেনার পর পাঁচ মাসে পাঁচ বার সার্ভিস সেন্টারে ছুটতে হয়েছে তাকে। সর্বশেষ ডিসপ্লের সমস্যা নিয়ে এসেছেন। ১৮ দিন হয়ে গেছে, কিন্তু এখনও তার ফোনটি হাতে পাননি।

মাসুম বিল্লাহ নামের আরেক ওয়ালটন গ্রাহকও তার ভোগান্তির কথা জানিয়েছেন। মাদারবোর্ড সমস্যা থাকায় সার্ভিস সেন্টারে ফোন নিয়ে যান তিনি। কিন্তু ২ মাস ৬ দিন পার হয়ে গেলেও ডিভাইসটি হাতে পাননি তিনি।

তোফাজ্জল হোসেন, মাসুম বিল্লাহসহ ভুক্তভোগীদের কয়েকজন ব্যঙ্গ করেই বললেন, বিক্রয়োত্তর সেবা দেয়ার ক্ষেত্রে ওয়ালটনের এক সপ্তাহ হয় ৬০ দিনে !

আরও পড়ুন: 

*

*

আরও পড়ুন