নেটওয়ার্ক প্রিন্টারকে সুরক্ষিত রাখতে যা করবেন

তুসিন আহমেদ,টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : কাগজবিহীন ডিজিটাল কার্যক্রম বাড়লেও অনেক কাজেই প্রিন্ট নেওয়ার প্রয়োজন হয়। এ কারণে বাসা বা অফিস-আদালতে প্রিন্টার এখনও গুরুত্বপূর্ণ। একই সঙ্গে একাধিক নেটওয়ার্কে অনেক প্রিন্টার যুক্ত করা হয়। তবে অনেকক্ষেত্রে এ ব্যবস্থা নিরাপদ নয়।

তাই নেটওয়ার্কে প্রিন্টারটি যুক্ত করার আগে প্রথমে সেটির নিরাপত্তা সম্পর্কে নিশ্চিত হতে হবে। কেননা তা না হলে তথ্য হারানোর মতো ক্ষতির মুখে পড়তে হতে পারে। বিশেষ করে যেসব সব অফিসে স্পর্শকাতর তথ্য ও আর্থিক লেনদেন নিয়ে হিসাব করা হয়, সেগুলোতে প্রিন্টারের সঙ্গে যুক্ত হওয়ার আগে সতর্ক হতে হবে। সামান্য বেখেয়ালে অনেক মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে।

নেটওয়ার্কে থাকা প্রিন্টারের নিরাপত্তা নিয়ে বিশ্লেষকদের চারটি পরমার্শ তুলে ধরা হলো এ টিউটোরিয়ালে।

Techshohor Youtube

images

পাসওয়ার্ড ব্যবহার
যে কোনো নেটওয়ার্ক প্রিন্টারের সঙ্গে সংযুক্ত হওয়ার জন্য পাসওয়ার্ড ব্যবহার করতে হবে। মনে রাখতে হবে সাধারণ পাসওয়ার্ডের পরিবর্তে শক্তিশালী গোপন কি ওয়ার্ড ব্যবহার করা উচিত। শুরুতেই ডিফল্ট পাসওয়ার্ডটি পরিবর্তন করে দিতে হবে।

ফার্মওয়্যার
নিয়মিত ফার্মওয়্যার আপডেট করতে হবে প্রিন্টারের। যখন নিরাপত্তা সংক্রান্ত কোনো ইস্যু ধরা পরবে, তখন প্রিন্টার নির্মাতারা ফার্মওয়্যার আপডেট করে থাকে।

প্রিন্টারটির ফার্মওয়্যার নিয়মিত আপডেট রাখতে হবে।  তবে শুধু আপ-টু-ডেট ফার্মওয়্যারের মাধ্যমে মুক্তি পেতে পারেন অনেক ঝামেলা থেকে।

তথ্য সুরক্ষিত করা
তথ্য প্রিন্টারে প্রেরণের জন্য সুরক্ষিত নেটওয়ার্ক ব্যবহার করতে হবে। এনক্রিপশন ব্যবহার করতে হবে যাতে মাঝপথ থেকে কেউ যেন তথ্য চুরি করতে না পারে।

সুরক্ষিত করুন প্রিন্টারটিকে
ডিফল্ট পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করা ছাড়াও অ্যাকসেস কন্ট্রোল চালু করার মাধ্যমে প্রিন্টারটিকে বাহ্যিক আক্রমণ থেকে রক্ষা করা যায়। স্পুলিং-এর জন্য যেসব প্রিন্টারে হার্ড-ড্রাইভ রয়েছে, সেগুলো এনক্রিপ্ট করতে হবে।

কোনো প্রিন্ট শেষ হয়ে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে যে ট্রেস সৃষ্টি হয়েছিল তাকে ড্রাইভ এবং মেমরি থেকে মুছে ফেলতে হবে।

আরও পড়ুন:

*

*

আরও পড়ুন