আসুস এক্স৪৫৩এমএ : ডিজাইন দারুণ হলেও গতিতে ধীর

Evaly in News page (Banner-2)

শাহরিয়ার হৃদয়, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : আসুসের কমদামের নেটবুকগুলো তুলনামূলক ভালো পারফর্ম্যান্সের জন্য বেশ জনপ্রিয়। দামের তুলনায় ডিসপ্লে সাইজ, ভালো ব্যাটারি ইত্যাদি খুবই আকর্ষণীয়। ঘোরাঘুরির মধ্যে যাদের প্রচুর ল্যাপটপ ব্যবহার করতে হয়, তাদের জন্য এটি চমৎকার অপশন হতে পারে।

ডিজাইন
প্রথমেই এর আউটলুক ও আকারের প্রশংসা করতে হবে। সাদা রঙের কারণে পেয়েছে পরিচ্ছন্ন চেহারা। ওজন কিছুটা বেশি, ২ কেজির মতো হবে। তবে এইটুকু ওজন বহন করতে বা ব্যাগে ঢুকিয়ে নিতে কোনো সমস্যা হবে না।

asus 2

ডিসপ্লে
এর স্ক্রিন বেশিরভাগ নেটবুকের চেয়ে বড়, ১৪ ইঞ্চি। রেজ্যুলেশন ১৩৬৬*৭৬৮ পিক্সেল, যা সাধারণত ১৫ ইঞ্চি স্ক্রিনের ল্যাপটপে বেশি দেখা যায়। তাই ডিসপ্লে কোয়ালিটি খুবই উন্নত।

কিন্তু ব্রাইটনেস দুর্বল, ভিউয়িং অ্যাঙ্গেলও সন্তোষজনক নয়। বেশি আলোতে স্ক্রিন অনেকটা অন্ধকার দেখাবে।

কানেক্টিভিটি
এতে রয়েছে একটি ইউএসিবি ৩.০ পোর্ট, একটি ইউএসবি ২.০ পোর্ট, ইথারনেট, এইচডিএমআই, ভিজিএ, ডিভিডি রাইটার ও কম্বো অডিও পোর্ট। স্ক্রিনের ওপর ওয়েবক্যামও আছে।

কনফিগারেশন
নেটবুকে ইন্টেল ২.১৬ গিগাহার্জ ডুয়াল কোর সেলেরন প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে। র‌্যাম ৪ গিগাবাইট। বিল্ট-ইন ইন্টেল এইচডি গ্রাফিক্স রয়েছে। ৫০০ গিগাবাইট হার্ডডিস্ক ও এসএসডি আছে।

টাচপ্যাড ও কিবোর্ড গতানুগতিক নেটবুকের চেয়ে উন্নতমানের। কিবোর্ডের প্রতিটি কি পৃথক ও বেশ রেসপন্সিভ। টাচপ্যাডে গেশ্চারসহ সব মাউস কমান্ড মসৃণভাবে দেওয়া যাবে।

asus 3

পারফর্ম্যান্স
যদিও এতে ইন্টেলের বাজেট প্রসেসর সেলেরন ব্যবহার করা হয়েছে, কিন্তু দামের তুলনায় এর পারফর্ম্যান্সকে খারাপ বলা যাবে না। দৈনন্দিন সাধারণ কাজকর্ম ভালোই করা যাবে।

তবে হাই-গ্রাফিক্সের কোনো সফটওয়্যার বা ভারী গেইম চালানো যাবে না। ব্রাউজিং, কম্পোজ ইত্যাদি কাজের মধ্যেও মাঝে মাঝে ল্যাগ হতে পারে।

ব্যাটারি
এর ব্যাটারি লাইফ আহামরি না হলেও সন্তোষজনক। সাধারণভাবে ব্যবহার করলে প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টার কাছাকাছি চার্জ থাকবে। এর সাথে দুই বছরের ওয়ারেন্টি রয়েছে।

দেশের বাজারে এর দাম ২৭ হাজার টাকা।

এক নজরে ভালো
– আকর্ষণীয় ডিজাইন
– হাই রেজ্যুলেশন ডিসপ্লে
এক নজরে খারাপ
– পারফর্ম্যান্স সম্পূর্ণ মসৃণ নয়

*

*

আরও পড়ুন