ফ্রিল্যান্সারদের জন্য নতুন পেমেন্ট গেটওয়ে সিস্টেম চালু

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ফ্রিল্যান্সারদের টাকা পেতে দেশে চালু হয়েছে নতুন পেমেন্ট গেটওয়ে সিস্টেম।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক গ্লোবাল পেইমেন্ট সলিউশন প্রতিষ্ঠান পেওনিয়ার ব্যাংক এশিয়ার সাথে দেশে এই অনলাইন পেইমেন্ট গেটওয়ে সেবা চালু করেছে। বৃহস্পতিবার রাজধানীর পূর্বানী হোটেলে এক অনুষ্ঠানে এই সেবার উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্ণর ড. আতিউর রহমান।

BBএরআগে গত ২৯ নভেম্বর ব্যাংক এশিয়ার সহায়তায় পেওনিয়ার বাংলাদেশী ফ্রিল্যান্সারদের সরাসরি নিজ ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা তোলার সুবিধা দেয়। পেওনিয়ার বিশেষ করে দেশের আউটসোর্সিং কর্মজীবীদের আন্তর্জাতিক অর্থ লেনদেনে এই সুবিধা আনে। ঐ ফিচারটি দিয়ে পেওনিয়ার অ্যাকাউন্টধারী একজন ফ্রিল্যান্সার যেকোন ব্যাংকে তার অ্যাকাউন্ট থেকে পৃথিবীর যেকোন দেশ থেকে পাঠানো টাকা সরাসরি তুলতে পারেন।

Techshohor Youtube

অবশ্য ২০১২ সাল থেকে দেশে অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে সেবা দিয়ে আসছে ব্যাংক এশিয়া। ওই বছরের মার্চে ‘পেইজা’ নামে দেশে প্রথম অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে সেবা চালু করে ব্যাংকটি।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, এবার অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে সেবার দ্বিতীয় সংযোজন পেওনিয়ার মাধ্যমে দ্রুত, সহজ ও তুলনামূলক কম খরচে সেবা দেওয়া হবে ।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন পেওনিয়ারের সিইও স্কট এইচ গ্যালিট, ব্যাংক এশিয়ার চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ চৌধুরী, বেসিস সভাপতি শামীম আহসান।

আতিউর রহমান বলেন, এক সময় ফ্রিল্যান্সারদের পাওনা অর্থ আনতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের অনুমোদন লাগতো। এখন আর তা লাগে না। এটা ছাড়াই একবারে ২ হাজার ডলার পর্যন্ত আনার সুযোগ তৈরী করা হয়েছে।

ব্যাংক এশিয়ার চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ চৌধুরী বলেন,ফ্রিল্যান্সারদের কষ্টার্জিত অর্থ সর্বোচ্চ নিরাপত্তার সঙ্গে দেশে আনতে ব্যাংক এশিয়া প্রতিশ্র“তিবদ্ধ।

স্কট এইচ গ্যালিট জানান, ২০০৫ সালে প্রতিষ্ঠিত নিউ ইয়র্কভিত্তিক পেয়োনিয়ারের ২০০টির বেশি দেশে কার্যক্রম রয়েছে।

শামীম আহসান বলেন, বাংলাদেশে ফ্রিল্যান্সাররা প্রতিবছর প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রা বিভিন্ন মাধ্যমে দেশে পাঠায়। পেওনিয়ারের মাধ্যমে ফ্রিল্যান্সাররা তাদের অর্জিত অর্থ ব্যাংক এশিয়া থেকে সরাসরি উত্তোলন করার সুবিধা পাওয়ায় অনেক ভোগান্তি কমে যাবে। তবে এক্ষেত্রে ফ্রিল্যান্সাররা যাতে আরও আগ্রহী হয় সেজন্য বিভিন্ন সার্ভিস চাজ কমানো প্রয়োজন।

আল আমীন দেওয়ান

*

*

আরও পড়ুন