Samsung IM Campaign_Oct’20

সফটওয়্যার ও গেইমে বেশি আগ্রহ জাপানি কোম্পানির

Evaly in News page (Banner-2)

ফখরুদ্দিন মেহেদী, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : সফটওয়্যার সেবা আউটসোর্স করতে বাংলাদেশে অফিস খুলতে চায় জাপানের কয়েকটি কোম্পানি। ওয়েব ডেভেলপমেন্ট, গেইম ও অ্যাপস তৈরির ব্যাপারে বেশি আগ্রহ দেখিয়েছে কোম্পানিগুলো।

দেশি কোম্পানির ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, চীনা ও ভিয়েতনামের ফ্রিল্যান্সারদের মাধ্যমে আউটসোর্সিংয়ের কাজ করিয়ে থাকে জাপান। কিন্তু সম্প্রতি দেশ দু’টিতে খরচ বেড়ে যাওয়ায় তারা বিকল্প খুঁজতে মিয়ানমার যায়। কিন্তু সেখানকার দুর্বল অবকাঠামো এবং কাজের ভালো পরিবেশ না পেয়ে অবশেষে তারা বাংলাদেশে আসে।

BASIS Japan Focus Group 3

বুধবার দেশের ২৯টি আউটসোর্সিং কোম্পানির সাথে জাপানি কোম্পানিগুলোর বিজনেস টু বিজনেস(বিটুবি) বৈঠকের পর এ কথা জানিয়েছে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস)।

তবে জাপানিদের সাথে যোগাযোগ বড় এক সমস্যা হয়ে দেখা দিতে পারে বলে মনে করছেন ব্যবসায়ীরা।

জাপানের সাথে ম্যাচমেকিং বৈঠকে অংশগ্রহণকারী বাংলাদেশের সফটওয়্যার সেবা দানকারী প্রতিষ্ঠান ন্যাসেনিয়া লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী শেখ শায়ের হাসান বলেন, জাপানিদের সাথে যোগাযোগটা দেশের কোম্পানিগুলোর জন্য সমস্যা তৈরি করবে। যারা ভাষাগত বাধা পেরুতে পারবে কাজ পাওয়ার ক্ষেত্রে তারা এগিয়ে থাকবে।

বৈঠকে অংশ নেওয়া আরেক বাংলাদেশী কোম্পানি ফ্যান্টাস্টিক ল্যাব লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী এম নাসিরুদ্দিন সরদার বলেন, জাপানি দু’টি কোম্পানির সাথে আমার কথা হয়েছে। তারা এদেশে গেইম, অ্যাপস এবং ওয়েব ডেভেলপমেন্ট নিয়ে কাজ করতে চায়।

এ ব্যাপারে বেসিসের নির্বাহী পরিচালক সামি আহমেদ টেকশহরডটকমকে বলেন, আমাদের অবকাঠামোর তুলনায় খরচ কম হওয়ায় তারা বাংলাদেশের কোম্পানিগুলোর সাথে কাজ করার বিষয়ে আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

সামি আরও বলেন, এর আগে নেদারল্যান্ডের মতো কোম্পানি এদেশে ম্যাচমেকিং বৈঠক করে গেছে। কিন্তু তাদেরকে আনতে বাংলাদেশি কোম্পানিগুলোকেই সমস্ত ব্যয়ভার বহন করতে হয়েছে। কিন্তু জাপানি কোম্পানিগুলো নিজেদের খরচে এখানে এসেছে। আশা করছি, খুব কম সময়ের মধ্যেই তারা বাংলাদেশে অফিস খুলবে।

জাপানের ১২টি কোম্পানির সঙ্গে ২৯টি বেসিস সদস্য কোম্পানি দিনব্যাপী আলোচনা করে। জাপানি কোম্পানিগুলোর মধ্যে ছিলো রোবাতো, মনোসাস, জিএমও ক্লাউড, ইনটিগনেট, অ্যাটম ইঞ্জিনিয়ারিং, নেট রিয়েল, মুনস্টার ল্যাব, ক্লাইডিয়া জাপান, আই এন্টার, আর্থ লিংক, আইটি নেট এবং এক্সট্রান্স।

এছাড়া বাংলাদেশের পক্ষে বৈঠকে অংশ নেয় নাসেনিয়া লিমিটেড, মজুমদার আইটি লিমিটেড, গ্রাফিক পিপল, রেলিসোর্স টেকনোলজিস লিমিটেড, হাবিব ইনটেলিজেন্ট সফটওয়্যার লিমিডেট, এক্সেল কোম্পানি লিমিটেড, ফ্যান্টাস্টিক ল্যাব লিমিটেড, সূর্যমুখী রিমিটেড, ড্যাফোডিল কম্পিউটার লিমিটেড, ইনফিনিটি টেকনোলজি ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড, স্ট্রাকচার্ড ডাটা সিস্টেম লিমিটেড, গ্রামীণ সল্যুশন, এটিঅই লিমিটেড, বিজেআইটি লিমিটেড, লিডসফট বাংলাদেশ লিমিটেড, ডটাসফট সিস্টেমস বাংলাদেশ লিমিটেড, মোরিওঅ্যাপ লিমিটেড, জেনওয়েব২ লিমিটেড, টেকনোভিসতা লিমিটেড, আই কোড ইনকর্পোরেশন লিমিটেড, কোয়াডরোল্যাবস লিমিটেড, ব্রেইন স্টেশন ২৩, শাহেলা আইটি লিমিটেড, বাংলাফায়ার সল্যুশন লিমিটেড, টিম ক্রিয়েটিভ, টেক ক্লাউড লিমিটেড এবং স্টার কম্পিউটার সিস্টেম লিমিটেড।

*

*

আরও পড়ুন