Samsung IM Campaign_Oct’20

প্রশ্ন ফাঁস ঠেকাতে মোবাইল-ফেইসবুক বন্ধের হুমকি!

Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগে তুমুল সমালোচনায়  মোবাইল ফোন ও ফেইবসুক বন্ধ করে দিতে চান শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে ২০১৫ সালের এসএসসি পরীক্ষা নিয়ে এক সভায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের এ বিষয়ে ‘আইন খতিয়ে দেখারও’ নির্দেশ দিয়েছেন মন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

সভায় শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আগামী প্রজন্ম মোবাইল ফোনের জন্য নষ্ট হয়ে যাবে তা ঠিক নয়। প্রয়োজনে আইন দেখেন, প্রয়োজনে পরীক্ষার দিন মোবাইল ফোন বন্ধ করে দেব। প্রয়োজনে ফেইসবুকও বন্ধ করে দেব।

nurunahid

গত রোববার থেকে শুরু হওয়া প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনীর বাংলা ও ইংরেজি পরীক্ষার আগে হুবহু প্রশ্ন পাওয়া যাওয়ার খবর গণমাধ্যমে ও সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমসহ সারাদেশে জনসাধারণে ব্যাপক সমালোচনা হচ্ছে।

তবে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় এ ধরনের সংবাদকে ‘গুজব’ বলে উড়িয়ে দিয়েছে। আর মন্ত্রণালয়টির দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান কোনো জেলাতেই প্রশ্ন ফাঁসের প্রমাণ পাওয়া যায়নি দাবি করেছেন।

যদিও এরআগে জেএসসি পরীক্ষাতেও বিভিন্ন বিষয়ের প্রশ্ন আগেই ফেইসবুকে প্রকাশের খবর পাওয়া যায়। এসব ঘটনায় দেশের বিভিন্ন স্থানে কয়েকজনকে গ্রেপ্তারও করা হয়।

শিক্ষাবিদ অধ্যাপক মুহাম্মদ জাফর ইকবাল উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার সময় একটি বিষয়ের ‘ফাঁস হওয়া’ প্রশ্নপত্র ফেইসবুকে তুলে দিয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান। এজন্য পরীক্ষা চলাকালেই কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে অবস্থান কর্মসূচিও পালন করেছেন এই শিক্ষাবিদ।

এবারও চলতে থাকা প্রাথমিক সমাপনীর ‘বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচয়’ বিষয়ের ফাঁস হওয়া ও মূল প্রশ্নপত্রও মুহাম্মদ জাফর ইকবাল ফেইসবুকে তুলে ধরেছেন।

ফেইসবুকে তিনি লিখেছেন, গত বছর যখন পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস নিয়ে সবাই মিলে চিৎকার চেচামেচি করছিলাম, তখন একেবারে শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত শিক্ষা মন্ত্রণালয় বলে গেছে আসলে প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়নি, কিছু কিছু ‘‘সাজেশন’’ প্রশ্নপত্রের সাথে ঘটনাক্রমে মিলে গেছে মাত্র। যারা এটা বলেছেন তারা নিজেরাও জানেন, দেশের মানুষ এতো বড় নির্বোধ নয় যে তারা শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এই কথাগুলো বিশ্বাস করবে। আমরা ভেবেছিলাম যথেষ্ট চেচামেচি করার কারণে এবারে হয়তো সবাই একটু বাড়তি সতর্ক থাকবে, প্রশ্নপত্র হয়তো এবারে ফাঁস হবে না।
আবারো প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়েছে। আমার কাছে আগের রাতে পাঠানো হয়েছে। পরের দিন পরীক্ষার প্রশ্নপত্রের সাথে মিলিয়ে দেখেছি। কেউ যদি বিশ্বাস না করেন, নিজের চোখে দেখতে পারেন । আমি যখন এই লেখাটি লিখছি, তখন আবার আমার কাছে প্রশ্নপত্রসহ ই-মেইল এসেছে। ইচ্ছে করলে কালকে মিলিয়ে দেখতে পারব, কিন্তু আর রুচি হচ্ছে না।

তিনি বলেন,আমাদের শিশুদের লেখাপড়ার দরকার নেই, দোহাই আপনাদের, তাদের ক্রিমিনাল করে বড় করবেন না!

এর পরদিনই আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে সভায় শিক্ষামন্ত্রী ক্ষোভ প্রকাশ করেন । সভায় শিক্ষা সচিব মো. নজরুল ইসলাম খান, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতিনিধি ও সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

আল আমীন দেওয়ান

আরো পড়ুনঃ

*

*

আরও পড়ুন