সাইবার সন্ত্রাস দমনে প্রযুক্তি বিশ্বের সাথে লড়বে বাংলাদেশও

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ইন্টারনেট সার্বভৌমত্বে পরস্পরের প্রতি সম্মান রেখে সাইবার সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে একসাথে লড়বে পুরো বিশ্ব। বাংলাদেশও এ লড়াইয়ের অন্যতম সহযোগি।

শুক্রবার চীনের উওজেন শহরে ওয়ার্ল্ড ইন্টারনেট সম্মেলনের শেষ দিনে চীন, রাশিয়ার মতো বড় দেশগুলোর সাথে মধ্যআয় এবং উন্নয়শীল দেশের তথ্য প্রযুক্তি সেক্টরের প্রতিনিধিরা সাইবার সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে একসাথে লড়াইয়ের প্রত্যয়ের কথা জানান।

বাংলাদেশ থেকে এ সম্মেলনের প্রতিনিধিত্ব করছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী  জুনাইদ আহমেদ পলক

Techshohor Youtube

আরো পড়ুনঃ ব্রডব্যান্ডের সহজলভ্যতা জীবনমান উন্নত করবে : পলক

p

গত বুধবার এ সম্মেলন শুরু হয়। রাষ্ট্রীয় প্রতিনিধির পাশাপাশি এতে ফেইসবুক, অ্যাপল, অ্যামাজন, মাইক্রোসফট, মজিলা, স্যামসাং, লিঙ্কডইন, এইচপি, বাইডু, সিসকো সহ বিশ্বখ্যাত প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের শীর্ষ প্রতিনিধিরা অংশ নেন।

শুক্রবার শেষ দিনে সম্মেলন ঘোষণায় ঠিক করা হয়, ইন্টারনেটের সার্বভৗমত্বের প্রতি সম্মান রেখে সব দেশ অনলাইন পর্ণোগ্রাফিতে কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ এবং ইন্টারনেটে সহিংস সন্ত্রাস দমন ও এ বিষয়ে প্রচারণার সকল চ্যানেল ধ্বংস করতে একসাথে কাজ করবে।

ইন্টারনেট নিয়ে বিশ্ব নেতাদের এ সম্মেলনে জুনাইদ আহমেদ পলক বক্তব্য রেখেছে। ওয়ার্ল্ড ইন্টারনেট সম্মেলনের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে স্পীকার হিসেবে তার নাম ও ছবিও রয়েছে। বিশ্বের অর্ধশতাধিক প্রতিনিধি সম্মেলনে ইন্টারনেট ও তথ্যপ্রযুক্তি নিয়ে বক্তব্য রেখেছেন।

এছাড়া তিনি মিনিস্ট্রিয়াল ফোরামেও বক্তব্য রাখেন।

তিনি তার ফেইসবুক স্ট্যাটাসে জানান, শান্তিপূর্ণ, নিরাপদ, উম্মুক্ত এবং সহযোগিতামূলক সাইবার স্পেস গঠনে সকল দেশের তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রীদের নিয়ে মিনিস্ট্রিয়াল বৈঠকে আলোচনা করেছি।

সাইবার স্পেস নিয়ে ব্যাপক বিধিনিষেধের দেশ চীনে অনুষ্ঠিত এই ওয়ার্ল্ড ইন্টারনেট কনফারেন্স প্রযুক্তি বিশ্বে বেশ গুরুত্বের সাথে মূল্যায়ন করা হচ্ছে। সম্মেলন চলা কালে চীন নিজ দেশে ইন্টানেটের উপর সকল বিধিনিষিধ তুলে নিয়েছিল।

সম্মেলনে নিউ ইন্টারনেট মিডিয়া, মোবাইল ইন্টারনেট ফোরাম, আন্তর্জাতিক ই-কমার্স, ইন্টারনেট শাসন, সাইবার সন্ত্রাস, অর্থনৈতিক উন্নয়নে ইন্টারনেটসহ ১৪টি সেশন অনুষ্ঠিত হয়।

– আল আমীন দেওয়ান

আরো পড়ুনঃ

*

*

আরও পড়ুন