নিশ মার্কেটে লিডার হতে চায় এক্সপোনেন্ট ইনফোসিস্টেম

আবুল কাসেম-টেক শহর

ইসলামের ইতিহাসের ছাত্রের কাজ কারবার এখন অনলাইন নিয়ে। তীব্র অনলাইন প্রীতি ও উদোক্তা হবার নেশা থেকে গড়েছেন ব্যবসাসফল তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান এক্সপোনেন্ট ইনফোসিস্টেম। চট্টগ্রোমের উদ্যোমী এই উদ্যোক্তার গল্প জানাচ্ছেন ফখরুদ্দিন মেহেদী

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ইসলামের ইতিহাসে পড়াশোনা করলেও অনলাইন কাজকর্মের প্রতি অনেক ঝোঁক ছিল আবুল কাশেমের। অনেক দিন থেকে অনলাইন উদ্যোগ নেওয়ার কথা ভাবতেন। নিজের ব্যবসার দিকেই আগ্রহ ছিল তার। তাই সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং নিয়ে এপটেক থেকে তিন বৎসরের অ্যাডভান্স ডিপ্লোমাও করেন।

কোর্স শেষে কিছুদিন সেখানে শিক্ষকতা করেন কাশেম। এরপর ফুলটাইম শিক্ষক হিসেবে যোগ দেন গ্রামীণ কম্পিউটার এডুকেশনে। কিন্তু উদ্যোক্তা হবার নেশায় মন বসেনি সেখানে। শুরু করেন নতুন এক উদ্যোগ। যা সময়ের হাত ধরে চট্টগ্রামের সীমানা পেরিয়ে পরিচিতি পেয়েছে দেশজুড়ে। বিদেশেও ডানা মেলেছে কার্যক্রম।

আবুল কাসেম-টেক শহর

আবুল কাশেম বর্তমানে চট্টগ্রামভিত্তিক অনলাইন কোম্পানি এক্সপোনেন্ট ইনফোসিস্টেমের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে কাজ করছেন। এ কোম্পানির অঙ্গ প্রতিষ্ঠান বিডিহাইয়ার ডটকম এবং উইবিল্ডলিংক ডটকমেরও প্রধান ব্যক্তি তিনি। নিজের ব্যবসা পরিচালানার পাশাপাশি ওয়েব টেকনলোজি ও সল্যুশন নির্বাচন, ওয়েব স্ট্রাটেজি তৈরি ও অনলাইন মার্কেটিং পরামর্শক হিসাবেও কাজ করেন তিনি।

কাসেম বাংলাদেশে প্রথম সিমপোডটওআরজি সার্টিফাইড অ্যাডভান্স এসইও/এসইএম বিশেষজ্ঞ। এ ছাড়া বর্তমানে তিনি সফটওয়্যার রফতানিকারকদের সংগঠন বেসিসের ওয়েব কনটেন্ট ও ই- মার্কেটিং স্টান্ডিং কমিটির মনোনীত চেয়্যারম্যান।

যেভাবে শুরু
গ্রামীন ছেড়ে ২০০২ সালে শুরু করেন ফ্রিলান্সিং। পরে নিজের সফটওয়্যার ডেভালপমেন্ট হাউস চালু করেন কাসেম। স্থানীয় বাজারে বিশেষ করে শিপিংয়ে জড়িত অনেকগুলো মাল্টি ন্যাশানাল কোম্পানির জন্য সফটওয়্যারও তৈরি করেন। কিন্তু তার লক্ষ্য ছিলো অনলাইন নিয়ে স্বউদ্যোগে কোনো ব্যবসা শুরুর।

এরপর অনলাইনে ব্যবসা কিভাবে শুরু করতে হয়, মার্কেটিং করতে হয় তা নিয়ে পড়াশুনা শুরু করেন। প্রস্তুতি শেষে অনলাইন মার্কেটিং কোম্পানি এক্সপোনেস্ট গড়ে তোলার কাজে হাত দেন। ধীরে ধীরে বড় হতে থাকে কোম্পানিটি। এখন তার কোম্পানি ইন্টারনেট মার্কেটিং সার্ভিস ছাড়াও ওয়েবসাইট তৈরি, পরিচালনা, বিপননভিত্তিক বিভিন্ন সেবা ও ভিএ সার্ভিস দিয়ে থাকে।

Screenshot_1

নিজেকে অনলাইন পেশাজীবী পরিচয় দিতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করা কাসেম জানান, ২০০৬ সাল থেকে বিভিন্ন দেশের ক্লায়েন্টের জন্য তার কোম্পানি কাজ করেছে। তাদের মধ্যে নিশ মার্কেটার যেমন রয়েছে তেমনি বেশ কিছু বড় বড় সফটওয়্যার ও ওয়েব টেকনলোজি কোম্পানিও রয়েছে। ক্লায়েন্টদের মধ্যে ই-কমার্স কিংবা ইনফো মার্কেটারদের সংখ্যাই বেশি।

এ উদ্যোক্তা জানান, ক্লায়েন্ট বুঝতে গিয়ে বিভিন্ন বিষয়ে দক্ষতা অর্জন করেন। বিশেষ করে ব্লগিং, এসইও, সোস্যাল মিডিয়া, ওয়েব টেকনোলজি, এফিলিয়েট মার্কেটিং, নিশ মার্কেটিং, ইত্যাদি।

সামনের দিনের লক্ষ্য
আউটোর্সিংভিত্তিক ব্যবসার পাশাপাশি বাংলাদেশে কিছু পরামর্শভিত্তিক সাইট চালু করেছেন কাসেম। এর একটি পরামর্শ ও অপরটি এক্সপোনেন্ট একাডেমি। পরামর্শডটকম পরামর্শভিত্তিক ব্লগ। এখানে যে কেউ নিজের অভিজ্ঞতা ও জ্ঞান অন্যের সাথে শেয়ার করতে পারে। এক্সএকাডেমি মূলত ইন্টারনেট বিজনেস তৈরির কোর্স। এক অ্যামেরিকান অংশীদার মিলে এক্সাডেমি তৈরি করেছেন তিনি।

কাসেম বলেন, এ কোর্সের মাধ্যমে অনলাইন উদ্যোক্তারা সহায়তা পাবেন। নিজের ভালো লাগা কিংবা জনপ্রিয় বিষয়কে ঘিরে সাইট তৈরি করে ধীরে ধীরে সফল অনলাইন ব্যবসা তৈরি নিয়ে এই কোর্স। শিক্ষার্থী, গৃহিনী, চাকুরীজীবি কিংবা অনলাইন প্রফেশনাল নিজের ব্যবসা তৈরি করে সফল হবে এটা তার স্বপ্ন।

428125_10150648408930839_169737650_n

প্রচারণা
তরুন এ উদ্যোক্তা জানান, তার ব্যবসা মডেল একটু ভিন্ন। প্রতিটি গ্রাহকের জন্য মাসিক চুক্তিতে একজন কর্মী ডেডিকেটেডলি কাজ করেন। সাধারণত দীর্ঘমেয়াদে ক্লায়েন্ট তাদের সার্ভিস ব্যবহার করে। তাই প্রতিদিন সেলের প্রয়োজন হয় না। প্রমাশনের পেছনেও সময় দিতে হয় না। ক্লায়েন্ট তাদের কাজের সন্তুষ্ট হয়ে পরিচিতদের কাছে প্রশংসা করে। সেখান থেকে নতুন গ্রাহক আসে। এভাবেই পণ্য বা সেবা বিক্রি করেন তারা।

ভবিষ্যত পরিল্পনা
নিশভিত্তিক একটা মার্কেটপ্লেস করতে চান কাসেম। যে মার্কেটপ্লেসে দেশের প্রফেশনালরা তাদের বিশেষ সার্ভিস বিক্রি করবে। এক্সাডেমির অধীনে তাদের প্রশিক্ষত করা হবে। তারপর তারা তাদের সেই সেবা এ মার্কেটপ্লেসে বিক্রি করবে। তিনি বলেন, মার্কেটপ্লেসে টার্গেট ট্রাফিক রাখা হবে তাদের কাজ। অন্যদিকে বাংলাদেশেও নিশভিত্তিক একটা ই-কমার্স সাইট চালুরও পরিকল্পনা রয়েছে তার।

ভবিষতে উদ্যোগকে যেখানে দেখতে চান
অনলাইনে সফল এ পেশাজীবী বলেন, ব্যবসায় এমন একটা কাঠামো তিনি দাঁড় করাতে চান যাতে বর্তমানে নেয়া প্রকল্পগুলো প্রথমত টিকে থাকে ও তারপর ক্রমশ এগুতে থাকে। কিছু উদ্যোগ যেহেতু গ্লোবাল মার্কেটকেন্দ্রিক তাই দেশের বাইরে নিজেদের সেলস অফিস থাকবে এমন স্বপ্ন দেখেন তিনি। যে কোনো নিশে দেশে তার একটা উদ্যোগ থাকবে যেটা হবে মার্কেট লিডার- এমনটাই প্রত্যাশা তার।

সাফল্য ও ব্যর্থতা
অর্থনেতিকভাবে শুরু থেকেই কাসেম বেশ ভালো অবস্থায় পৌঁছে গিয়েছিলাম। ব্যবসা শুরু করতে কারও কাজ থেকে টাকা নেননি। শুরু থেকেই একাই ছিলেন। আর পরে দুই বছরে সেটা ৪০ জনের টিমে রূপান্তর হয়। শুরুতেই খুব দ্রুত ব্যবসা বাড়তে থাকে।
প্রতি ছয় মাস অন্তর অন্তর অফিস পরিবর্তন করতে হচ্ছিলো স্থান সংকুলান হচ্ছিলো না বলে। বিশ্বের অনেকগুলো বড় ফার্মের সঙ্গে তার দীর্ঘমেয়াদী চুক্তি হয়। কিছু না করেও খুব অনেক ভালো সেবা বিক্রি করেছেন তিনি।

163577_568705693162919_747713508_n

কাসেম বলেন, সেই সময় তিনি আলাদা সেলস টিম তৈরি করতে অনেক চেষ্টা করতে চেয়েও পারেননি ব্যক্তিগত কিছু কারনে। চট্টগ্রামে চাইলেই ভালো প্রফেশনাল পাচ্ছিলেন না। তাই এডমিনিস্ট্রেশন, সেলস টিম, মার্কেটিং টিম, এইচআরের মতো আলাদা বিভাগ তৈরি করতে পারেননি।
তরুন এ উদোক্তা বলেন, নিশে যে ধরনের ব্যবসা করেন তিনি তাতে একই ধরনের কাজে ফিলিপাইন বা ভারতে একটি প্রতিষ্ঠানের কর্মী ৫০০ থেকে দেড় হাজার। কিন্তু তিনি এখনও কর্মী পঞ্চাশের বেশি করতে পারেননি। তবে সময়ের মধ্যে এটা বাড়বে বলে তার বিশ্বাস।

ক্লায়েন্ট ম্যানেজম্যান্ট
ক্লায়েন্টের জন্য সেরা কাজটা করতে সব কিছু সিরিয়াসলি করেন কাসেম। অনেকগুলো অপশনের মধ্যে সবচাইতে শ্রেষ্ঠটি তিনি গ্রাহককে উপহার দিতে কাজ করেন। ক্লায়েন্টকে হ্যাপি নয় ডিলাইটেড করতে চেষ্টা করাই তার কাজের মূলমন্ত্র।
দেশে বিদেশে সব জায়গায় ক্লায়েন্ট আমাদের অন্যরকম মূল্য দেয়। তার প্রতিষ্ঠনের পরামর্শে সাদরে গ্রহণ করে। যেটাই তাকে কাজ এগিয়ে নিতে অনুপ্রেরণা যুগিয়েছে।

নতুনদের জন্য পরামর্শ
নিজেকে যুগোপযোগী রাখার জন্য ফ্রিল্যান্সিংকে প্রথম পছন্দ হিসাবে বেছে নেওয়া যেতে পারে বলে মনে করেন অভিজ্ঞ এ ফ্রিল্যান্সার। এটিকে ক্যারিয়ার করার আগে বিস্তারিত ভাবতে হবে। ক্যারিয়ার নিয়ে আগে পরিকল্পনা তৈরি করতে হবে। পরে সে অনুযায়ী কাজ শুরু করতে হবে।

অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্য কোনও কোম্পানিতে কাজও করার পরামর্শ দিয়েছেন সফল এ মার্কেটার। তার মতে শুরুতে সিনিয়র কারো সাথে কাজ করলে দক্ষতা পৌনঃপৌনিকভাবে বাড়বে। দক্ষ হলে উপার্জনও জ্যামিতিক হারে বাড়বে।

যোগাযোগ
xponent
sokhina mahbub mansion
sk mujib road, Chittagong 4100

www.xponentweb.com

fb.com/xponentweb

*

*

আরও পড়ুন