আইসিআর দিয়ে ২৫ কোটি পৃষ্ঠা ডিজিটাল নথি তৈরি

আইসিআর/ওবিয়ার প্রয়োজন-টেকশহর.কম
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ইনটেলিজেন্ট ক্যারেক্টার রিকগনিশন (আইসিআর) ব্যবহার করে দেশে হাতে লেখা ২৫ কোটি প্রয়োজনীয় নথিকে ডিজিটাল ফরম্যাটে রূপান্তর করা হয়েছে। বর্তমানে এটি ইংরেজ লেখা শনাক্ত করতে পারলেও আগামী দুই বছরের মধ্যে এর বাংলা সংস্করণ আনার চেষ্টা চলছে।

আইসিআর এমন এক প্রযুক্তি যা হাতের লেখা পড়তে পারে। এটি ওসিআর (অপটিক্যাল রিকগনিশন) এর উন্নত প্রযুক্তি।

সোমবার রাজধানীতে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান বুরোতে (বিবিএস) এ কর্মশালায় আইসিআর ব্যবহার করে দেশে নথি তৈরির এ তথ্য জানানো হয়।

আরো পড়ুনঃ ডিজিটাল বাংলাদেশ তৈরির অংশীদার হবে এরিকসন

আইসিআর/ওবিয়ার প্রয়োজন-টেকশহর.কম

রাজধানীর আগারগাঁয়ে বিবিএস এবং ডেভনেটের যৌথ আয়োজনে ‘ওয়ার্কশপ অন আইসিআর/ওবিআর বেসড অটোমেটিক ডাটা ক্যাপচার টেকনোলজি’ শীর্ষক এক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।

কর্মশালায় বিবিএস মহাপরিচালক গোলাম মোস্তফা কামাল বলেন,  বিশ্ব চলছে কম্পিউটার ভিত্তিক নথি ব্যবস্থাপনায়। আমাদেরও সেদিকে যেতে হবে। এজন্য দেশের সরকারী-বেসরকারী অফিসগুলোর আইসিআর প্রযুক্তি ব্যবহার করা উচিত।

মহাপরিচালক আরও বলেন, তথ্য-প্রযুক্তির এই যুগে পুরনো দলিল দস্তাবেজের স্থান নেই। এখন আইসিআর এর মতো নতুন প্রযুক্তিতে অভ্যস্থ হতে হবে। এ প্রযুক্তি সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের কাজকে সহজ করবে।

কর্মশালায় মূল বক্তব্যে ডেভনেটের চেয়ারম্যান একে সাব্বির মাহবুব ‘এবে ফ্লেক্সিক্যাপচার ১০’ নামের আইসিআর ডিভাইসটির বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন।

তিনি বলেন, ‘এবে ফ্লেক্সিক্যাপচার ১০’ হাতে লেখা নথিকে কাম্পিউটারাইজড নথিতে রূপান্তরিত করে থাকে। এটি এ পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন সরকারী ও বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের ২৫ কোটি পৃষ্টাকে ডিজিটাল নথিতে রূপান্তরিত করেছে। এছাড়াও এটি ওসিআর, ওবিআর এর যেকোন ফাইল পড়তে পারে।

সাব্বির জানান, আপাতত আইসিআরটি ইংরেজি ভার্সনে কাজ করলেও এর বাংলা ভার্সন আনার প্রক্রিয়া চলছে। ২০১৬ সালের মাঝামাঝি বাংলা ভার্সন আসবে।

কর্মশালায় আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর বিভিন্ন শাখার কর্মকর্তারা ।

ফখরুদ্দিন মেহেদী।

*

*

আরও পড়ুন