Techno Header Top and Before feature image

গেইম নিয়ে টেকনেক্সটের প্রতিযোগিতা মেইড ইন বাংলাদেশ

“ডেক্সট্রিস হ্যালোইন-টেকশহর

তুসিন আহমেদ,টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : প্রথম দেখলে মনে হবে বিদেশি বিখ্যাত কোনো গেইম নিমার্তা প্রতিষ্ঠানের তৈরি এটি। খেলা শুরু করলে মনে পড়ে যাবে ফ্ল্যাপি বার্ডস গেইমটির কথা। এটির মতো বারবার গেইমটি খেলতে ইচ্ছা করবে।

গেইমটির নাম ‘ডেক্সট্রিস হ্যালোইন‘। এটি তৈরি করেছে বাংলাদেশি তরুণদের নিয়ে গঠিত ‘টেকনেক্সট’ নামে মোবাইল গেইম ডেভেলপমেন্টকারী একটি প্রতিষ্ঠান। এ খবর অনেকের জানা। তবে নতুন খবর হলো এ গেইম নিয়ে শুরু হয়েছে একটি গেইমিং প্রতিযোগিতা। জয়ীদের জন্য রয়েছে আকর্ষণীয় পুরস্কার

বাংলাদেশে যে বিশ্বমানের গেইম তৈরি হচ্ছে এটি জানানোর জন্য প্রতিষ্ঠানটি এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছে। প্রতিযোগিতার নাম দিয়েছ ‘মেইড ইন বাংলাদেশ’। এটি চলবে আগামী ১৬ ই ডিসেম্বর পর্যন্ত চলবে ।

আরো পড়ুনঃ দেশে অনলাইন গেইমিংয়ের রঙ্গিন দুনিয়ায় ভিড় বাড়ছে

“ডেক্সট্রিস হ্যালোইন-টেকশহর

প্রতিযোগিতা চলাকালীন সময়ে ডেক্সট্রিস হ্যালোইন গেইমে অংশ নেওয়া গেইমারদের মধ্যে প্রতি সপ্তাহে সেরা ১০ জনকে স্কোরের দ্বিগুন মোবাইলে রিচার্জ দেওয়া হবে। আর ১৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত সেরা দু’জন স্কোরারকে দুটি স্মার্টফোন পুরস্কার দেওয়া হবে।

বাংলাদেশে বসবাসকারী যে কোনো ব্যবহারকারী এ প্রতিযোগীতায় অংশ নিতে পারবেন।

বর্তমানে গুগল প্লে স্টোরে পাওয়া যাচ্ছে গেইমটি। আগামী সপ্তাহে আইফোন এবং উইন্ডোজ ফোনের জন্য আনা হবে গেইমটির সংস্করণ।

গেইমটির নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের ডেভলপাররা জানান, এটি তৈরি করতে প্রায় এক মাস সময় লেগেছে। এটির ডেভেলপার ছিলেন আহমেদ-বিন-জামান, আকিব আশেফ, ডিজাইনার হিসেবে ছিলেন নাঈম আহমেদ এবং নাভিদ জামান ধ্রুব । এ ছাড়াও আরিফুজ্জামান সোহেল এবং আয়মান শশী বিভিন্নভাবে সহায়তা করেন।

 

“ডেক্সট্রিস হ্যালোইন-টেকশহর

টেকনেক্সট প্রতিষ্ঠানের কো-ফাউন্ডার এবং প্রজেক্ট ম্যানেজার সৈয়দ রেজওয়ানুল হক টেকশহরকে বলেন, “বাংলাদেশে প্রচারণা বড় সমস্যা। যদি প্রচারণায় ভালো সাপোর্ট পাওয়া যায়, তাহলে গেইমটি দিয়ে ফ্লাপি বার্ডের জনপ্রিয়তা অতিক্রম করা সম্ভব। ”

টেকনেক্সট প্রতিষ্ঠানটি ২০১২ সালের প্রতিষ্ঠা করেন সৈয়দ রেজওয়ানুল হক এবং শাহজাহান জুয়েল। বর্তমানে এখানে সর্বমোট ১৭ জন ডিজাইনার, ডেভেলপার এবং প্রোগ্রামার কাজ করছেন।

মূলত মোবাইল গেইম ডেভেলপমেন্ট এবং ওয়েব আপ্ল্যিকেশন ডেভেলপমেন্ট নিয়ে কাজ করে থাকে প্রতিষ্ঠানটি। বর্তমানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া এবং কানাডাতে কয়েকটি সফটওয়্যার ফার্মের সাথে বিভিন্ন প্রোডাক্ট ডেভেলমেন্ট নিয়ে কারছে তরুণের এ প্রতিষ্ঠান।

গেইমটি ডাউনলোড করা যাবে এ ঠিকানা থেকে। প্রতিযোগীতার বিস্তারিত তথ্য জানা যাবে এ ফেইসবুক পেইজে এটির প্রমো ভিডিওয়ের লিংক নিচে দেওয়া হলো-

আরো পড়ুনঃ

ভয়ংকর নিষ্ঠুর তবুও জনপ্রিয় ছয় গেইম!

বছরের সেরা গেইম ডার্ক সোলস ২

ভিডিও গেইমের স্কুল হচ্ছে!

মাইক্রোসফটের ডেভ সেন্টারে সবার জন্য রিভিউ উন্মুক্ত

১ টি মতামত

*

*

আরও পড়ুন