স্যামসাং গিয়ার এস : দেখতে বড় হলেও সিম-অ্যাপে আরও স্মার্ট

স্যামসাং গিয়ার এস

শাহরিয়ার হৃদয়, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : স্মার্টফোনের মতো পরিধানযোগ্য গ্যাজেটের বাজারেও শীর্ষস্থান দখল করার পরিকল্পনা রয়েছে স্যামসাংয়ের। এটি বোঝা যায় সাম্প্রতিক সময়ে কোম্পানিটির বাজারে আসা গ্যাজেটগুলো থেকে।

দক্ষিণ কোরিয়ান কোম্পানিটি গত দু’বছরে যতগুলো স্মার্টওয়াচ এনেছে, অন্য সব কোম্পানি মিলেও তা আনেনি। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে তাদের কোনো স্মার্টওয়াচই তেমন জনপ্রিয়তা পায়নি। না ঘড়ি, না স্মার্ট ডিভাইস—এমন একটি প্রশ্ন জেগেছে প্রতিটি মডেল নিয়ে।

স্যামসাংয়ের স্মার্টওয়াচ গিয়ার এস সর্বশেষ এক মাস আগে উন্মোচন করা হয়। চলতি মাসের শেষের দিকে তা বাজারে পাওয়া যাবে। আগের সব ভুল ত্রুটি শুধরে গিয়ার এস নতুন অভিজ্ঞতা দেবে বলে প্রতিজ্ঞা করেছিল টেক জায়ান্টটি।

আরো পড়ুনঃ এবার স্মার্টওয়াচ আনছে মাইক্রোসফট

স্যামসাং গিয়ার এস

নতুনি কিছু সন্নিবেশ করার পরও ক্রেতা ও সমালোচকদের সন্তুষ্ট করতে পারেনি ডিভাইসটি। তবে এটি স্যামসাংয়ের প্রথম স্মার্টওয়াচ, যেটি গ্যালাক্সি ফোন ছাড়াই স্বয়ংসম্পূর্ণভাবে ব্যবহার করা যাবে।

ডিজাইন
আগের তুলনায় গিয়ার এসে অনেক বেশি ফিচার রয়েছে, তা এর আকার দেখলেই বোঝা যায়। বেশ বড়সড় আকারের হওয়ায় স্বাভাবিকভাবে এটি সবার হাতে সমান শোভা পাবে না। তবে এর কার্ভটি হাতের ওপর খাপে খাপে বসে যাবে, তাই হাতে থাকা অবস্থায় কোনো অস্বস্তি হবে না।

ঘড়ির সঙ্গের স্ট্র্যাপটিও বেশ পুরু ও মোটা, যাদের হাত ছোট তাদের জন্য এটি সমস্যা হতে পারে।

ডিসপ্লে
এর ডিসপ্লে সুপার অ্যামোলেড, আকার দুই ইঞ্চি। রেজুল্যুশন ৩৬০*৪৮০ পিক্সেল। ডিসপ্লে কোয়ালিটি খুবই চমৎকার ও ঝকঝকে। এটি দেখতে গ্যালাক্সি সিরিজের হাইএন্ড ফোনগুলোর মতো।

কানেক্টিভিটি
এটি সিম সাপোর্ট করে, এমনকি থ্রিজিও ব্যবহার করা যাবে। ওয়াই-ফাই, ব্লুটুথ, জিপিএস ও মাইক্রোইউএসবি আছে। সেন্সরের মধ্যে আছে অ্যাক্সেলেরোমিটার, জাইরো, প্রক্সিমিটি, কম্পাস, হার্ট বিট সেন্সর, ব্যারোমিটার।

সিম ও ওয়াই-ফাই সুবিধা থাকায় এসএমএস, এমএমস, ইমেইল সব রকম মেসেঞ্জার সার্ভিস ব্যবহার করা যাবে।

কনফিগারেশন
গিয়ার এসে ডুয়াল কোর ১.০ গিগাহার্জ প্রসেসর রয়েছে। সাথে আছে ৫১২ মেগাবাইট র‍্যাম ও ৪ জিবি ইন্টারনাল মেমোরি।

সফটওয়্যার
স্যামসাংয়ের এর নিজস্ব টাইজেন ওএস ব্যবহার করা হয়েছে এতে। ফলে আগের চেয়ে অনেক পরিবর্তনের দেখা মিলবে ইন্টারফেসে। হোমস্ক্রিনের জন্য কয়েক রকম থিম থেকে পছন্দেরটি বেছে নেওয়া যাবে।

হোম থেকে বামপাশে ফ্লিক করলে নোটিফিকেশন ও ডানপাশে ফ্লিক করে অ্যাপ মেনু দেখাবে।

স্মার্টওয়াচের উপযোগী চমৎকার কিছু অ্যাপ এবার যোগ করেছে জায়ান্টটি। ফিটনেস সম্পর্কিত সব কাজকর্ম করা যাবে নাইকি প্লাস অ্যাপ দিয়ে। নোকিয়া হেয়ার ম্যাপস রয়েছে, যা দিয়ে রিয়েল-টাইম ম্যাপ ডিরেকশন পাওয়া যাবে।

তবে বড় স্ক্রিন আর সবরকম কানেক্টিভিটি দেখে যারা একে ফোনের বিকল্প হিসেবে ব্যবহার করার চেষ্টা করবেন, তারা সম্ভবত হতাশ হবেন। কারণ অন্যান্য ফিচার মোটামুটি সহজ হলেও ফোনের মতো টেক্সট করা এবং কল করার কাজটি দুরুহ। কয়েকবার চেষ্টা করে অনেকেই ফোনে ফিরে যাবেন।

ব্যাটারি
ওয়্যারেবল গ্যাজেট নিয়ে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বড় সমস্যা চার্জ। গিয়ার এসের ৩০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি এ সমস্যা কতোটা মেটাতে পারবে এখনও নিশ্চিত বলা যাবে না। তবে কোম্পানির দাবি, পরিমিত ব্যবহার করলে দু’দিন চার্জ থাকবে।

বাংলাদেশের বাজারে এর দাম হতে পারে ৪০ হাজারের আশেপাশে।

এক নজরে ভালো
– চমৎকার ডিসপ্লে ও ইউজার ইন্টারফেস
– সিমসহ সবরকম কানেক্টিভিটি সাপোর্টেড
– স্ট্যান্ড-অ্যালোন ডিভাইস, অর্থাৎ স্মার্টফোনের উপর নির্ভর করতে হবে না

এক নজরে খারাপ
– আকারে অতিরিক্ত বড়
– ফোন ফাংশনালিটির অভাব

 

আরো পড়ুনঃ

অ্যান্ড্রয়েডের জন্য মাইক্রোসফটের অ্যাপ

স্মার্টঘড়ি আনছে ব্ল্যাকবেরি

এবার স্মার্টওয়াচ আনছে আসুস

*

*

আরও পড়ুন