Header Top

মোবাইল ব্যাংকিং নিয়ে বাংলাদেশের প্রশংসায় বিল গেটস

বিল-গেটস-টেকশহর
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ঈদের ছুটিতে একটি ভালো খবর এসেছে যুক্তরাষ্ট্র থেকে। ডিজিটাল বাংলাদেশের প্রশংসা করেছেন এমন একজন যার হাত ধরে প্রযুক্তি বিশ্ব নতুন রূপ লাভ করেছে। তার এ উদ্ভাবনও তাকে পরিণত করেছে বিশ্বের শীর্ষ ধনী ব্যক্তিতে।

এ ব্যক্তিত্ব আর কেউ নন বিল গেটস। সফটওয়্যার জায়ান্ট মাইক্রোসফটের এ সহপ্রতিষ্ঠাতা মোবাইল ফোন ব্যবহার করে দরিদ্রদের সফল আর্থিক সেবা দেওয়ায় বাংলাদেশের ব্যাপক প্রশংসা করেছেন।

বাংলাদেশে মোবাইল ব্যাংকিং কার্যক্রমের সঙ্গে বিল গেটসেরও সম্পৃকতা রয়েছে। তার প্রতিষ্ঠিত ‘বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন’ বিকাশে বিনিয়োগ করেছে।

বিল-গেটস-টেকশহর

ব্র্যাক ব্যাংকের সহযোগী প্রতিষ্ঠান বিকাশের মাধ্যমে বর্তমানে দেশে সবচেয়ে বেশি এ সেবা প্রদান করছে।

যুক্তরাষ্ট্রের আরেক প্রতিষ্ঠান মানি ইন মোশন এলএলসির যৌথ উদ্যোগে ব্র্যাক বাংক বিকাশ প্রতিষ্ঠা করে। চলতি বছর এতে বিনিয়োগ করে বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন।

বোস্টনে ব্যাংকিং খাত বিষয়ক এক সম্মেলনে প্রধান বক্তা হিসাবে বক্তৃতাকালে বাংলাদেশে সাম্প্রতিক সময়ে প্রযুক্তি বিকাশের প্রশংসা করেন বিল গেটস। শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের এক প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের র্শীর্ষ অর্থনৈতিক কর্মকর্তা এবং অর্থনীতিবিদদের পাশাপাশি  বিশ্বের অন্যান্য দেশের এ খাত সংশ্লিষ্টরা সম্মেলনে অংশ নেন।

গেটস বাংলাদেশের ডিজিটাল কার্যক্রমের প্রশংসায় ছিলেন পঞ্চমুখ। তিনি মোবাইল ফোনের মাধ্যম ব্যাংকিং সেবা দেওয়াকে দৃষ্টান্ত হিসেবে অভিহিত করেছেন।

বাংলাদেশে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের প্রসারের প্রসঙ্গ টেনে মাইক্রোসফটের এ রূপকার বলেন, “আধুনিক প্রযুক্তির সর্বোচ্চ ব্যবহার করে বিশেষ করে মোবাইল ফোন বাংলাদেশের দরিদ্র জনগোষ্ঠীর জীবনমানের উন্নয়নে ভূমিকা রাখছে। এসব উদ্যোগ প্রশংসার দাবিদার।”

২০১০ সালে মোবাইল ব্যাংকিং শুরুর পর থেকে একজন এ সেবা গ্রহীতার সংখ্যা কোটি ছাড়িয়ে গেছে। ১৯টি ব্যাংক এ সেবা চালু করেছে।

গেটস বলেন, বিকাশের কার্যক্রম শুরুর পর এখন বাংলাদেশের এক কোটি ৩০ লাখ মানুষ অর্থ স্থানান্তর, কেনাকাটা করে বিল পরিশোধের মতো আর্থিক সেবা গ্রহণ করছে।

মাইক্রোসফটের সাবেক এ প্রধান বলেন, “বিশ্বে ধনীরাই কেবল ব্যাংকিং সুবিধা পাচ্ছেন। তারা মোটা অর্থের ঋণ, ইন্স্যুরেন্সের সুবিধাসহ অন্য সব সেবা নিচ্ছেন। অপরদিকে গরীবেরা ব্যাংকিং সেবা থেকে অনেক দূরে।”

এসব গরীবদের কাছে তথ্যপ্রযুক্তি সেবা পৌঁছে দিতে ‘বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা ফাউন্ডেশন’ বহুমুখী পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে বলে জানান বিল গেটস।  ‍

বাংলাদেশে দারিদ্র্য বিমোচনে ডিজিটাল ব্যবস্থার ‘অভূতপূর্ব’ সাফল্য নিয়ে দীর্ঘ আলোচনা করেন বিল গেটস।

– ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল অবলম্বনে আমিন রানা 

*

*

আরও পড়ুন