ভার্চুয়াল বাজার : দেশে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কোম্পানি ৫০ ছাড়িয়ে

ফেয়ার-টেকশহর
Evaly in News page (Banner-2)

ফখরুদ্দিন মেহেদী, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশের শীর্ষ ইংরেজি দৈনিক ডেইলি স্টার সম্প্রতি ডিজিটাল মিডিয়া মাকের্টিংয়ের প্রধান কর্মকর্তা নিয়োগে বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে। আরও কিছু দিন আগে তথ্যপ্রযুক্তি খাতের গুরুত্বপূর্ণ সরকারি প্রকল্প এটুআই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারণা বাড়াতে প্রতিষ্ঠান নিয়োগের আগ্রহপত্র বা দরপত্র চেয়েছে।

এর আগে সিটি ব্যাংক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাদের পণ্যের কথা ছড়িয়ে দিতে ট্রন নামের একটি সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এজেন্সির সহায়তা নিয়েছে। এমন উদাহরণের সংখ্যা প্রতিনিয়ত বাড়ছে।

এগুলো থেকে বোঝা যায় দেশে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম (সোশ্যাল মিডিয়া) পণ্যের বিপণনে নতুন মাত্রা যোগ করেছে। মাধ্যমটি হয়ে উঠেছে সম্ভাবনাময় ভার্চুয়াল বাজার। আর ফেইসবুকের লাইক বাণিজ্যে ঢাকার শীর্ষে থাকার সেই পুরনো খবরও প্রমাণ করে দেশে নতুন এ বিপণন মাধ্যমের প্রসারের বিষয়টি।

ফেয়ার-টেকশহর

শুধু এ তিনটি প্রতিষ্ঠান নয়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের বিশাল জনপ্রিয়তাকে ব্যাবসায়িক কাজে লাগাচ্ছে শীর্ষস্থানীয় ব্র্যান্ড এবং ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলো। ভাচুর্য়াল এ বাজারের ক্রেতা ধরতে তৎপর হচ্ছে প্রতিষ্ঠানগুলো।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারের প্রবণতা আগে শুধু ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা ও ব্যক্তি পর্যায়ে সামীবদ্ধ থাকলেও এখন এদিকে নজর বাড়ছে বড় কোম্পানিগুলোর।

এ মাধ্যমের প্রসার বাড়তে থাকায় বিশেষায়িত এই সেবাদাতার সংখ্যাও বাড়ছে। তরুন উদ্যোক্তারা এগিয়ে আসায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বাণিজ্যিকভাবে সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের সংখ্যাও স্বল্প সময়ে অনেক বেড়েছে।

বর্তমানে দেশে ৫০টিরও বেশি ডিজিটাল এজেন্সি সোস্যাল মিডিয়া মার্কেটিং সেবা দিচ্ছে। এমনকি বিভিন্ন অ্যাড এজেন্সিও আলাদাভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং শুরু করেছে।

ডিজিটাল মার্কেটিং সেবাদানকারী অন্যতম প্রতিষ্ঠান আই ডিজিটালের তথ্য অনুসারে, দেশে বর্তমানে পাঁচ হাজারেরও বেশি জনবল ফুলটাইম ডিজিটাল মার্কেটিংয়ে কাজ করছেন। এদের সঙ্গে প্রায় ৪০ হাজারেরও বেশি ফ্রিল্যান্সার পার্ট টাইমার হিসাবে সেবা দিচ্ছেন।

জানা গেছে, অ্যানালাইজেন, ম্যাংগো ডিজিটাল, আই ডিজিটাল লিমিটেড, কুকিজার, সফটউইন্ড টেক, ম্যাগনিটো ডিজিটাল, ম্যলোনজেড ইত্যাদি প্রতিষ্ঠানগুলো ভার্চুয়াল বিপণন সেবা দিতে এগিয়ে রয়েছে।

ইন্টারনেট-মার্কেটিং-সোশ্যাল মিডিয়া-টেকশহর

সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, দেশের নামকরা প্রতিষ্টানগুলো তাদের পণ্যের পোর্টফোলিওসহ প্রতিষ্ঠানের ব্র্যান্ডিং করতে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে ডিজিটাল মার্কেটিং সেবা। আর এতে ফেইসবুকের মতো সামাজিক মাধ্যমগুলো যেন ভার্চুয়াল বাজারে পরিণত হচ্ছে। সম্প্রতি দেশে শীর্ষ এ মাধ্যমটির ব্যবহারকারী কোটির ঘর পেরিয়ে যাওয়ার বিষয়টি নতুন মাত্রা যোগ করেছে মিডিয়া মার্কেটিংয়ে।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটারদের মতে, ছোট ও বড় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান তাদের প্রসারের জন্য এদিকে ঝুঁকছে। এমনকি পাড়ার একটি ক্লাবের কার্যক্রম প্রচারে ডিজিটাল মার্কেটিং ব্যবহার করতে দেখা গেছে।

মূলত সব শ্রেণীর গ্রাহকের কাছে খুব দ্রত পৌঁছাতে প্রতিষ্ঠানগুলো অনলাইন মার্কেটিং করছে এবং ফেইসবুকের মতো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিজ্ঞাপন দিচ্ছে।

স্যোসাল মিডিয়া সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান ট্রনের সোস্যাল মিডিয়া এক্সপার্ট নাফিজ  ইমতিয়াজ বলেন, বর্তমানে অন্যান্য যোগাযোগ মাধ্যম যেমন পত্রিকা, টেলিভিশন ও রেডিও থেকে ফেইসবুক, টুইটার, গুগলসহ অন্যান্য সোস্যাল মিডিয়ায় কোন পণ্য বা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন অনেক সহজ এবং কম খরচে দেওয়া যায়। তা ছাড়া এর মাধ্যমে কাঙ্খিত গ্রাহকের কাছেও খুব সহজেই পৌঁছাতে পারে প্রতিষ্ঠানগুলো।

social-media-marketing-by-apps-TechShohor

এই সোস্যাল মিডিয়া এক্সপার্ট  বলেন, বাজার ধরতে এখন চলছে অনলাইন মার্কটিংয়ের যুগ। কেননা তরুণ গ্রাহকদের বেশিরভাগই ফেইসবুকের মতো সামাজিক মাধ্যমে এখন অনেক সময় ব্যয় করে। এদের লক্ষ্য করেই চলছে প্রচারণা। শুধু তাই নয় আউটসোর্সিং এবং ফ্রিলান্সিং এর কাজেও ফেইসবুক ব্যবহার করে লাভবান হচ্ছেন অনেকে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

সোস্যাল মিডিয়া সেবাদানকার আরেক জনপ্রিয় প্রতিষ্ঠান আই ডিজিটালের কর্মকর্তারা জানান, এখন সব ধরনের প্রতিষ্ঠানই সামাজিক মাধ্যমে তাদের মার্কেটিং সেবা চালু করছে।

তাদের হিসাবে ২০ শতাংশ প্রতিষ্ঠান ফেইসবুকে পণ্য বা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিচ্ছে। এগুলোর মধ্যে ইউনিলিভার, টয়োটা, পারটেক্স স্টার, আকিজ ফুডের মতো টপ ব্র্যান্ড রয়েছে।

তবে দেশের টেলিকম অপারেটরগুলো এখন পর্যন্ত ডিজিটাল মার্কটিংয়ে এগিয়ে বলে জানান প্রতিষ্ঠনটির কর্মকর্তারা।

আই ডিজিটালের বিজনেস রিলেশন ম্যানেজার আমিনুর রহমান জানান, দেশের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো নতুন এ বিপণন ধারায় যোগ দিচ্ছে। অন্যরাও এ মাধ্যমে বিজ্ঞাপন দিতে দ্রুত কাজ শুরু করেছে। বিশেষ করে বহুজাতিক কোম্পানি ও টেলিকমিউনিকেশন প্রতিষ্ঠানগুলো খুব বেশি করে এ মাধ্যমে তাদের পণ্যের ব্র্যান্ডিং করছে।

তা ছাড়া আউটসোর্সিং এবং ফ্রিলান্সিং খাতে ৫ থেকে ৭ শতাংশ ফেইসবুকের মাধ্যমে তাদের পণ্যের মার্কেটিং করছেন বলে এই কর্মকর্তা জানান।

সোশ্যাল-মিডিয়া-মার্কেটিং-টেকশহর

দেশের প্রথম ডিজিটাল মার্কেটিং সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান অ্যানালাইজেনের সৈয়দ আহসান রাহাত জানান, নন প্রফিট সংস্থাগুলোও সোস্যাল মার্কেটিংয়ে। এমনকি অনেকে নিছক বিনোদনের জন্য ফেইসবুকে মার্কেটিং করার উদ্যোগ নিয়ে পরবর্তীতে ব্যবসায়িকভাবে সফল হতে শুরু করেছেন।

এ কর্মকর্তা বলেন, প্রথম দিকে ডিজিটাল মার্কেটিং নিয়ে অনেক বড় প্রতিষ্ঠান হাসি তামাশা করলেও দুই বছরের মাথায় তারাও এখন এটির ব্যবহার করছেন।

রাহান বলেন, বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়ায় নতুন মাত্রা যোগ করেছে ভিডিও বিজ্ঞাপন। এগুলো বেশ জনপ্রিয়তা পাচ্ছে।

সংশ্লিষ্টদের মতে, দেশে ফেইসবুকের জনপ্রিয়তা বেশি। তাই এটিই এখন ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের প্রধান ক্ষেত্র। অ্যানালাইজেনের তথ্য মতে, দেশের প্রায় ৯০ থেকে ৯৫ শতাংশ ডিজিটাল মার্কেটিং এ মাধ্যমে হয়ে থাকে।

তবে আই ডিজিটাল জানিয়েছে, সাম্প্রতিক সময়ে গুগল ও টুইটারে মার্কেটিংয়ের ক্ষেত্রেও প্রতিষ্ঠানগুলো আগ্রহ দেখাচ্ছে।

আরও পড়ুন:

ইন্টারনেট মার্কেটিংয়ে সফল হওয়ার কিছু দিক

ইন্টারনেট মার্কেটিংয়ে সফল হওয়ার কিছু দিক

দেশে ইউএক্সের কাজের সুযোগ বাড়াতে চায় ইউজারহাব

*

*

আরও পড়ুন