দেশে ইউএক্সের কাজের সুযোগ বাড়াতে চায় ইউজারহাব

ইউজারহাব-ইউ-এক্স-অপটিমাইজেশন-টেকশহর

তথ্যপ্রযুক্তির প্রতি টান থেকে প্রচলিত চিন্তাধারার বিপরীতে ভিন্ন এক উদ্যোগের পথে হেঁটেছেন তরুন এ দম্পতি। গড়ে তুলেছেন ইউজারহাব নামের এক প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠান। তাদের স্বপ্নের এ উদ্যোগের কথা জানাচ্ছেন ফখরুদ্দিন মেহেদী।

একটি ওয়েবসাইটের ক্ষেত্রে ইউজার এক্সপেরিয়েন্স (ইউ এক্স) খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। একটি ওয়েবসাইট কিংবা অ্যাপ্লিকেশন শুধুই এখন আর দেখবার বিষয় নয়। এটির সঙ্গে জড়িত ব্যবসায়িক লাভক্ষতি এবং গ্রাহক বা ব্যাবহারকারীর প্রয়োজনের দিকটিও জড়িত।

একই সঙ্গে পণ্য ব্যবহারে গ্রাহক বা ব্যবহারকারীদের অনুভূতি, সুবিধা অসুবিধা, মূল্যায়ন ইত্যাদি বিষয় ইউএক্সের আলোচনার বিষয়। এ কাজটিই ইউ এক্স অপটিমাইজেশনের মাধ্যমে করা হয়ে থাকে।

আরও পড়ুন: ভার্চুয়াল মার্কেটের লিডার হতে চায় স্বর্গ ডটকম

ইউজারহাব-ইউ-এক্স-অপটিমাইজেশন-টেকশহর

বিশ্বজুড়ে তথ্যপ্রযুক্তি, ই-কমার্স বা সফটওয়্যার খাতে ইউএক্স অপটিমাইজেশন পরচিতি পেলেও দেশে এটির ব্যবহার কম। এসইও, সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং যতটা জনপ্রিয় এটি তেমন নয়। অথচ এ পদ্ধতিটি বেশ কার্যকরি।

এ বিষয়ে তথ্যপ্রযুক্তি খাতে দক্ষ কর্মীর তৈরির ভাবনা থেকেই ওয়াহিদ বিন আহসান এবং নিলীম আহসান দম্পতি এ উদ্যোগ শুরু করেছেন। দীর্ঘ সময় ধরে এ বিষয়ে একটি ভিত্তি তৈরির চেষ্টা করেছেন।

দেশে প্রথমবারের মতো ইউজারহাবের উদ্যোগে সফটওয়্যার কোম্পানিগুলো পাচ্ছে সফটওয়্যার এবং ওয়েব অ্যাপ্লিকেশন ডিজাইনের জন্য ইউ এক্স অপটিমাইজেশন সল্যুশন। দেশে এবং বিদেশে দক্ষ ইউ এক্স প্রফেশনাল গড়ে তোলার লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠানটি এ বিষয়ে সার্টিফিকেশন কোর্স এবং বিভিন্ন কর্মশালা চালু করেছে।

তরুন এ দম্পতি ইউজারহাবকে একটি পূর্নাংগ ইন্সটিটিউটে রূপ দিতে চান। ইউএক্সের বিশাল কাজের ক্ষেত্রও বাংলাদেশ তৈরি করতে চান।

ইউজারহাব-লোগো-ইউএক্স-টেকশহর

ওয়েব ডেভেলাপারদের বিভিন্ন মেয়াদী ট্রেনিং এর পাশাপাশি বিভিন্ন বিষয়ে পরামর্শ এবং বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে জানাতে কর্মশালারও আয়োজন করে ইউজারহাব। ২০১৪ এর ফেব্রুয়ারিতে প্রতিষ্ঠিত হয় প্রতিষ্ঠানটি ডেভেলাপারদের কাছে বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে।

ইউজারহাবের মূল উদ্যোক্তা এবং হেড অফ রিসার্চ অ্যান্ড ট্রেইনিং ওয়াহিদ বিন আহসান দীর্ঘ ১৫ বছর ধরে বিভিন্ন দেশি, বিদেশি সফটওয়্যার কোম্পানিতে ডিজাইনার, প্রজেক্ট ম্যানেজার, আইটি এনালিস্ট হিসেবে কাজ করেছেন। বর্তমানে তিনি একটি আমেরিকান সফটওয়্যার কোম্পানিতে ইউএক্স আর্কিটেক্ট হিসেবে কাজ করছেন।

প্রতিষ্ঠানটির সহ-উদ্যোক্তা এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) নিলীম আহসান ২০০৪ সাল থেকে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট ও আউটসোর্সিং কাজের সঙ্গে জড়িত। দেশে আইসিটির বিভিন্ন কাজের সঙ্গে তিনি জড়িত। এ নারী উদ্যোক্তা একজন ইউ এক্স ডিজাইনার অ্যান্ড রিসার্চার, অনলাইন মার্কেটার ও মেন্টর ইন ডিজিটাল আর্ট।

আরও পড়ুন: স্বল্প পুঁজির সফল উদাহরণ মিষ্টিক ওয়েব সলিউশন

ইউজারহাব-ইউ-এক্স-অপটিমাইজেশন-টেকশহর

শুরুর কথা
এ উদ্যোগের সহ-উদ্যোক্তা এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) নিলীম আহসান বলেন, এটি রাতারাতি গড়ে ওঠা কোনো প্রতিষ্ঠান নয়। বছর দু’য়েক আগে ‘ইউ এক্স’ দিয়ে এর পথ চলা শুরু হয়। ‘ইউ এক্স স্যাটারডে উইথ ওয়াহিদ’ নামের একটি প্রোগাম নিয়ে তারা দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে যেতেন। সেখানে এটির প্রয়োজনীয়তা এবং গুরুত্ব তুলে ধরতেন।

এ ছাড়াও নিজ উদ্যোগে এ দম্পতি বিভিন্ন ইভেন্ট, ওয়ার্কশপ এবং অনলাইন ওয়েবিনার মাধ্যমে ইউএক্সের গুরুত্ব হাতে কলমে শেখানোর মাধ্যমে শিক্ষার্থী, প্রফেশনাল ডেভেলপার, প্রকৌশলীদের সঙ্গে শেয়ার করতেন।

মূলত প্রতি শনিবার রাতে অনলাইনে ওয়েবিনারের মাধ্যমে তাদের যাত্রা শুরু হয়। ইউ এক্সের গুরুত্ব, প্রয়োজনীয়তা এবং প্রয়োগবিধি ইত্যাদি নিয়ে প্রশ্ন-উত্তর পর্বের মাধ্যমে এটি জনপ্রিয়তা পায়। ফেইসবুকে এটি নিয়ে আলোচনা শুরু হয়।

এ ছাড়া ইউএক্সের ওপর আগ্রহী বিভিন্ন পেশার কর্মজীবী ও ছাত্রদের বিনামূল্যে অনলাইন ট্রেনিংয়ের মাধ্যমেও ব্যাপক সাড়া পান তরুন এ দম্পতি। এতে বিষয়টি অনেকের কাছে বোধগম্যও হয়।

নিলীম জানান, গত বছরের শুরুতে ওয়াহিদের ফেইসবুক পেইজ ‘ইউ এক্স স্যাটারডে উইথ ওয়াহিদ’ পেইজে প্রথম অনসাইট সেশনটি হয় খুলনার প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুয়েট)।

এরপর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইআইটি, ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির কম্পিউটার বিজ্ঞান বিভাগ এবং গাজীপুরে ঢাকা ইউনিভার্সিটি অফ ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজিতে (ডুয়েট) অনসাইট সেশন হয়।

চলতি বছরের মার্চ থেকে রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতি মাসে একটি করে ইউ এক্স কর্মশালা পরিচালনা করে আসছেন তারা।

এভাবে কার্যক্রম চালানোর মাধ্যমে এ বিষয়ে অনেকের মধ্যে আগ্রহী তৈরি হলে তাদের স্বপ্নের প্রতিষ্ঠান ইউজারহাব প্রতিষ্ঠা করেন ২০১৪ সালের ফেব্রুয়ারিতে। অল্প সময়ে ডেভেলাপারদের কাছে বেশ জনপ্রিয়তাও পেয়েছে।

আরও পড়ুন:  ‘নো রিস্ক নো গেইনে’ সফল এক নাম ক্রয়বিক্রয় ডটকম

ইউজারহাব-ইউ-এক্স-অপটিমাইজেশন-টেকশহর

ইউজারহাবের লক্ষ্য
ইউ এক্সের জনপ্রিয়তা বিশ্বের বিভিন্ন দেশ ছাড়িয়ে এখন বাংলাদেশের সফটওয়্যার কোম্পানিগুলোতেও বাড়ছে। নতুন কর্মক্ষেত্র তৈরি হওয়ায় বাড়ছে ইউ এক্স প্রফেশানলদের চাহিদা। এ চাহিদা মেটাতে প্রয়োজন অনেক দক্ষ জনবল। এ প্রয়োজন সঠিক গাইডলাইন ও প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা দেওয়ার লক্ষ্য ইউজারহাবের।

নিলীম জানান, টিউটরিয়াল দেখে কিংবা এক গাদা আর্টিকেল পড়ে ভালো ইউ এক্স এক্সপার্ট হয়ে ওঠা দূরহ। কেননা এর পরিধি আরও ব্যাপক। এত তাত্বিক জ্ঞানের পাশাপাশি ব্যাবহারিক জ্ঞানের প্রয়োজনীয়তাও গুরুত্বপূর্ণ।

এ উদ্যোক্তা বলেন, বিশ্বের অন্যান্য দেশে ইউ এক্সের ওপর অনেক ইন্সটিটিউশন আছে যেগুলোতে বিভিন্ন মেয়াদী কোর্স করানো হয়। ইউজারহাব সেগুলো গবেষণার পর আন্তর্জাতিক মানের কোর্স কারিকুলাম তৈরি করেছে। এখানে একজন শিক্ষার্থীকে কোর্সটির বেসিক থেকে অ্যাডভান্স লেভেল পর্যন্ত শেখানো হয়। পাশাপাশি ওয়েব ডিজাইনাররা শর্ট কোর্সগুলোর মাধ্যমে নিজেকে ইউ এক্স প্রকৌশলী হিসেবে নিজেকে আপগ্রেড করতে পারবেন বলে তিনি জানান।

ইউজারহাব-ইউ-এক্স-অপটিমাইজেশন-টেকশহর

ওয়েব ডেভেলাপারদের বিভিন্ন মেয়াদী ট্রেনিংয়ের পাশাপাশি বিভিন্ন বিষয়ে পরামর্শ ও বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে জানাতে কর্মশালার আয়োজন করে ইউজারহাব বলে নিলীম জানান। ‘ইউ এক্স অপটিমাইজেশন ক্লিনিক’ নামে একটি ইভেন্টও চালুর কথা জানান তিনি। এতে ওয়েব অ্যাপ্লিকেশনগুলোর ইউ এক্স রিভিউ এবং এনালাইসিস করে সমস্যাগুলোর সমাধান দেওয়া হয়।

এ ছাড়া ওয়েবসাইট কিংবা সফটওয়্যারকে ব্যবসায়িক দিক দিয়ে সফল করতে ইউ এক্সের মাধ্যমে ইউজার ও টার্গেট গ্রুপকে সন্তুষ্ট করার সমাধান দেওয়া হয় বলে জানান এ নারী উদ্যোক্তা।

ভবিষ্যত পরিকল্পনা 
ইউজারহাব নিয়ে অনেক পরিকল্পনা ও স্বপ্নের কথা জানান এটির সিইও নিলীম। তিনি ইউজারহাবকে একটি পূর্ণাঙ্গ ইন্সটিটিউটে রূপ দিতে চান। সবাইকে সমানভাবে কাজ শেখার সুবিধা দিতে দেশের সব অঞ্চলে শাখা করতে চান।

যোগাযোগ
ইউজারহাব এবং ইউ এক্স সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে যোগাযোগ নিচের ঠিকানায়

www.theuserhub.com
www.facebook.com/userhub

আরও পড়ুন:

দেশের ই-কমার্সে ভিন্নতা এনেছে কুকুরবিড়াল ডটঅর্গ

ওয়েব যোগাযোগে ভিন্নতা আনতে চায় মিডিয়া টেক্সট কমিউনিকেশন

বিদেশেও কান্ট্রি ম্যানেজার নিয়োগ দিয়েছে হোয়াইট থিওরি

 

*

*

আরও পড়ুন