Techno Header Top and Before feature image

প্রতিদ্বন্দ্বীতায় সরব এআইইউবির সিএস ফেস্ট

এআইইউবি-সিএস-ফেস্ট-টেকশহর
Evaly in News page (Banner-2)

সাইমুম সাদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বিকেল সাড়ে তিনটা। আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি-বাংলাদেশর (এইআইবি) ছয় তলার অডিটোরিয়াম কানায় কানায় পূর্ণ। রঙ বেরংয়ের বেলুনে সাজানো হয়েছে মূল মঞ্চ। এক পলকেই বুঝতে বাকি থাকবে না এখানে চলছে জাকজমক এক অনুষ্ঠান। ঠিক তাই।

তিন দিনের সিএস ফেস্টের দ্বিতীয় দিনের পুরস্কার বিতরণের জন্যই এমন রঙিন সাজে সেজেছিল এআইইউবির মিলনায়তনটি। উপস্থাপক একে একে নাম ডাকছেন আর পুরস্কার বিজয়ীরা ক্রেস্ট-সনদপত্র সংগ্রহ করছেন। দর্শকরা হাততালি দিয়ে বিজয়ীদের অভিবাদন জানাচ্ছেন।

মঙ্গলবার ও বুধবার সত্যিকার অর্থেই বিশ্ববিদ্যালয়ে উৎসবের রঙ লেগেছিল। শির্ক্ষার্থীদের সরব উপস্থিতিতে জমজমাট হয়ে ওঠা এ উৎসব শেষ হবে বৃহস্পতিবার।

আরও পড়ুন: নানা আয়োজনে জমজমাট এআইইউবি’র  সিএস ফেস্ট

এআইইউবি-সিএস-ফেস্ট-টেকশহর

প্রোগ্রামিং কনটেস্ট, মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন শোকেজিং, গেমিং কনটেস্ট, অ্যাপ্লিকেশন শোকেজিং,আপ্লিকেশন প্রেজেন্টেশন পোস্টার এ উৎসবকে রঙ্গিন মাত্রা যোগ করে।

প্রতিটি বিভাগে ছিল শিক্ষার্থীদের নজরকাড়া অংশগ্রহণ। তথ্যপ্রযুক্তিতে কেউ যে পিছিয়ে নেই তা প্রমাণ করতে সবাই ছিলেন সচেষ্ট। প্রোগ্রামিং ও গেইমিং কনটেস্ট নতুন মাত্রা যোগ করে উৎসবে।

অ্যাপ কনসেপ্ট প্রেসেন্টেশন
পোস্টারের মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা তাদের নিজ নিজ অ্যাপের উপর আইডিয়া উপস্থাপন করেছে। পঞ্চাশের অধিক অ্যাপ থেকে বিচারকরা তিনটি দলের অ্যাপকে সেরা নির্বাচন করেন।

অ্যাপ কনসেপ্টে প্রথম হয়েছেন রাইসুল কবির, উময় বিশ্বাস ও আশিকুল হকের দলটি। দ্বিতীয় হয়েছেন আবু হুমাইর জিহান, ইহতেশাম চৌধুরী, খালিদ বিন মোহিদ ও মাহমুদুর রহমান এবং তৃতীয় হয়েছেন ইমরান হোসাইন, মামুন রশিদ, আশিক মাহমুদ, হাসান ই রেজুয়ানের টিম।

এআইইউবি-সিএস-ফেস্ট-টেকশহর

প্রোগ্রামিং কনটেস্ট
এআইইউবি শিক্ষার্থীরা প্রোগ্রামিংকে অনেকটায় এগিয়ে গেছে। যার প্রমান তারা প্রোগ্রামিং কনটেস্টে দেখিয়েছেন। কনটেস্টে শিক্ষার্থীদের মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হয়েছে। বিচারকরদের এ কারণে বেশ সচেতন থাকতে হয়েছে।

উত্তেজনাপূর্ণ এ প্রতিযোগিতায় প্রথম হয়েছে আতাই রাব্বি। তিনি এআইইউবির সিএসই ডিপার্টমেন্টের ৯ম ব্যাচের শিক্ষার্থী। প্রেগ্রোমিংই তার ধ্যান-জ্ঞান। আড়াই বছর ধরে প্রোগ্রামিং করছেন। এর আগেও বেশ কয়েকটি পুরস্কার নিজের ঝুলিতে ভরেছেন।

রাব্বি জানালেন প্রোগ্রামিংয়ের প্রতি তার অন্যরকম ভাল লাগার কথা। প্রোগ্রামিংয়ের প্রবলেম সলভ করতে ভালবাসেন তিনি। তিনি বলেন, সেই ভাল লাগা থেকেই আমার প্রোগ্রামিংয়ে আসা।’

প্রোগ্রামিং কনটেস্টে দ্বিতীয় হয়েছে আমির ইব্রাহিম রাহাত, তৃতীয় আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ।

এআইইউবি-সিএস-ফেস্ট-টেকশহর

মোবাইল অ্যাপ্লিকেন শোকেজিং
এ ক্যাটাগরিতেও অনেকেই অংশগ্রহণ করেন। কেউ একা অংশ নিয়ে জিতে যাবেন সে সুযোগ ছিল না। মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন শোকেজিংয়ের এ কনটেস্টে যৌথভাবে প্রথম হয়েছেন সাদেকুর রহমান, ইমরান আতিকুল হক, সাদিয়া হক।

দ্বিতীয় হয়েছেন রেজোয়ানুর রহমান। তৃতীয় রাকিব উদ্দিন, কামরুল হাসান ও হাসিব হাসান।

অ্যাপ্লিকেশন শোকেজিং
এ প্রতিযোগিতায় সেরা হয়েছেন দিপঙ্কর তালুকদার ও আশিক মাহমুদ। দ্বিতীয় কাজী জসিম উদ্দিন কামরুল ইসলাম হাফিজ আব্দুল্লাহ এবং তৃতীয় নাজমুস সাকিব ও তাউসিফ খান।

গেমিং কনটেস্ট
গেমিং কনটেস্টের তিনটি ক্যাটাগরিই উত্তেজনায় ভরপুর ছিল। সবচেয়ে বেশি উত্তেজনা ছিল চেজে। মাজেদুল হক চৌধুরী ও নাজমূল হকের মধ্যকার ফাইনাল খেলাটা এতই প্রতিদ্বন্দীতাপূর্ণ ছিল যে খেলাটি ড্রয়ে শেষ হয়।

সিএসই ৯ম ব্যাচের শিক্ষার্থী মাজেদুল হক খেলায় জিততে না পারলেও খেলাটা যে উত্তেজনায় ঠাসা ছিল এটা স্বীকার করে জানালেন, জিততে পারিনি বলে আফসোস নেই কিন্তু খেলাটা খেলার মতোই হয়েছে।’

এ ছাড়া নিড ফর স্পিড ক্যাটাগরিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন মাহমুদুল হাসান। ফিফায় চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন রাশেদুল আবেদিন।

পুরস্কার বিতরণী পর্বের শেষে এআইইউবি পারফর্মিং ক্লাবের সহযোগিতায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

আমেরিকান ইন্টারন্যামনাল ইউনিভার্সিটি-বাংলাদেশ (এআইইউবি) কম্পিউটার ক্লাবের আয়োজনে এ ফেস্টের পৃষ্ঠপোষকতা করেছে ফাস্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড, গ্লোবাল ব্র্যান্ড প্রাইভেট লিমিটেড এবং ওয়ার্কস্পেস ইনফটেক। লজিস্টিক সাপোর্ট পার্টনার হিসাবে সহযোগিতা করেছে ইনফোলিঙ্ক এবং কোডনোভো।

আরও পড়ুন:

ক্লাউড গেইমিং সুবিধা আনছে সনি

আইইউবিএটি বিশ্ববিদ্যালয়ে আইওএস কর্মশালা শুক্রবার

বিশ্বকাপের ফেইসবুক কুইজ বিজয়ীদের পুরষ্কৃত করলো এডেটা

*

*

আরও পড়ুন