Header Top

নিরাপত্তার আতংক ফেলে ক্লাউড সিস্টেমে আসাটাই গুরুত্বপূর্ণ

ফখরুদ্দিন মেহেদী, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ক্লাউড ডাটা স্টোরেজ সিস্টেম ব্যবস্থাকে আরও নির্ভুল করে উন্নয়শীল দেশগুলো প্রযুক্তিতে এগিয়ে থাকা বিশ্বের সাথে প্রতিযোগিতা করতে পারে। তাই এর নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন না তুলে সিস্টেম উন্নয়নের দিকে মনযোগী হওয়া দরকার।

মঙ্গলবার দেশে অনুষ্ঠিত প্রথম কমনওয়েলথ টেলিযোগাযোগ সংস্থার (সিটিও) সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনে ’ক্লাউড কম্পিউটিং : অপর্চুনিটিস এন্ড ইস্যুজ ফর ডেভেলপিং কান্ট্রিজ’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন।

10668485_366154420203504_1382350632_n

আলোচনায় ইউএনডিপির প্রধান প্রযুক্তি কর্মকর্তা শিরিন হামিদ জানান, ক্লাউড ডাটা স্টোরেজ সিস্টেম হচ্ছে কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রমের তথ্য একটি প্রযুক্তিক প্রক্রিয়ার মাধ্যমে নিরাপদ রাখা।

তিনি বলেন, ক্লাউড সিষ্টেম প্রবর্তনের মাধ্যমে উন্নয়নশীল দেশগুলো খরচ কমানো, বিশ্বাসযোগ্যতা নিশ্চিতকরণ, নিরাপদ অনলাইন সেবা, অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা এবং গতিশীলতা নিশ্চিত করতে পারে। এটি যে কোন পেশার মানুষের ভার্চুয়াল তথ্য সম্ভার।

এই সিস্টেমের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ইউএনডিপি মাইক্রোসফট ও গুগলসহ আটটি এজেন্সির সাথে কাজ করে যাচ্ছে। সাইবার অপরাধীদের হাত থেকে নিরাপদ থাকতে সেবা প্রদানকারীদের দায়িত্বশীলতা ও মান নিশ্চিত করতে বলেন তিনি।

ক্লাউড সিস্টেমের মাধ্যমে দেশের সকল কার্যক্রম এবং মানুষের সকল প্রয়োজন কাঠামোবদ্ধ হতে পারে বলে সেমিনারে উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের একসেস টু ইনফমেশন (এটুআই) এর পলিসি এডভাইজার আনীর চৌধুরী।

তিনি জানান, বাংলাদেশ এনালগ থেকে ডিজিটাল সিস্টেমে যেতে গত সাত বছর ধরে কাজ করছে। আর ডিজিটাল প্রযুক্তির অন্যতম উদ্ভাবন ক্লাউড সিষ্টেম। এর সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত করতে পারলে যেকোন কাজে আর মুখাপেক্ষী থাকতে হবে না। যেকোন স্থান থেকে ডাটা সংগ্রহ ও প্রয়োজনীয় কাজ করা আরো সহজ হবে।
ক্লাউড সিস্টেমের নিরাপত্তা নিয়ে সংশয় চলছে বিশ্বব্যাপী। ক্লাউডগুলো থেকে সাইবার অপরাধীরা গুরুত্বপূর্ণ ডাটা হাতিয়ে নিয়ে যে কারো ক্ষতি করতে পারে বলেও চলছে শোরগোল।

বিষয়টি উল্লেখ করে এর নিরাপত্তা সম্পর্কে আনীর বলেন, এটি পুরো একটি জাতিকে নিয়ন্ত্রিত সিষ্টেমের মধ্যে নিয়ে আসতে পারে। তাই নিরাপত্তার বিচেনায় পুরো সিষ্টেমকে প্রশ্নেরমুখে ফেলা উচিত নয়।

দেশের প্রতিটি মানুষের পরিচয়ও এখন অনলাইন ভিত্তিক হয়ে গেছে। এগুলো নিয়ন্ত্রণে ক্লাউড সিষ্টেমের বিকল্প নেই। তাই গুরুত্বপূর্ণ ডাটা নিরাপদ রাখতে সচেতনতা বৃদ্ধি এবং হ্যাকিং প্রতিরোধ ব্যবস্থাগুলো ব্যবহার করলেই নিরাপদ থাকা সম্ভব করেন মনে করেন তিনি।

ডাটা স্টোরেজের আধুনিক অবকাঠামো বাংলাদেশের মতো উন্নয়নশীল দেশের নেই বলে হ্যাকিংয়ের আতঙ্কে ক্লাউড সিস্টেমকে অকার্যকর বিবেচনা করা থেকে সরে আসা উচিত বলে মনে করেন বাংলাদেশ প্রকৌশলী বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সাইন্স এবং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান ড. মাহফুজুল ইসলাম।

তিনি জানান, ক্লাউড সিস্টেম তথ্য রাখার উন্মুক্ত জায়গা। উন্নয়নশীল দেশগুলোর জন্য এটি ব্যবহারের অপরিসীম সুযোগ রয়েছে। তাই সাইবার সিকিউরিটির আতঙ্ক থাকলে তার জন্য প্রয়োজনীয় আইন নির্ণয় এবং সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে। কারন প্রযুক্তিতে উন্নত বিশ্বের সাথে প্রতিযোগিতা করতে এর বিকল্প নেই।
তিনি বলেন, বিশ্বের সবচেয়ে বড় ওয়েব পোর্টাল বাংলাদেশের ’জাতীয় তথ্য বাতায়ন। এখানে এমন নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়েছে যে এটি সহজে সাইবার হামলার শিকার হবে না।

আইসিটি অথরিটি মরিশাসের চেয়ারম্যান ভিমালেন রেডি’র সভাপতিত্বে আলোচনায় আরো বক্তব্য রাখেন প্রডকমস ইন্ডিয়ার এর সহকারী প্রতিষ্ঠাতা এবং প্রধান পরিকল্পনা কর্মকর্তা চন্দন ঘোষ এবং বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব কল সেন্টার এবং আউটসোর্সিং এর চেয়ারম্যান ইমদাদুল হক।

*

*

আরও পড়ুন