vivo Y16 Project

ফোন, কম্পিউটারের জন্য চুম্বক কি সত্যিই ক্ষতিকর?

প্রচলিত ধারণা, আশেপাশে চুম্বক থাকলে তা ইলেক্ট্রনিকস পণ্যের জন্য ক্ষতিকর। এখানে কিছু বৈজ্ঞানিক ব্যাপারস্যাপারও রয়েছে। তবে এ নিয়ে ভয় পাওয়ার আগে জেনে রাখা ভালো চুম্বকের মাধ্যমে ইলেক্ট্রনিকস পণ্য নষ্ট হওয়ার ঘটনা বলতে গেলে বিরল।

আমাদের পরিবেশের বেশিরভাগ চুম্বক (ফ্রিজ ম্যাগনেট, ম্যাগনেটিক ল্যাচ, ম্যাগনেটিক ফোন মাউন্ট) খুবই দূর্বল। তবে কিছু কিছু চুম্বক অনেক শক্তিশালী। বড় নিওডিয়াম ম্যাগনেট ও ইলেক্ট্রোম্যাগনেটের মতো অনেক শক্তিশালী চুম্বকগুলো ইলেক্ট্রনিক ডিভাইসে সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে। এমনকি নির্দিষ্ট কিছু ক্ষেত্রে ডাটাও হারিয়ে যেতে পারে। তবে স্বস্তির বিষয় হচ্ছে এ ধরনের চুম্বকগুলো সাধারনত শিল্প, মেডিকেল অথবা বৈজ্ঞানিক কোন কাজে ব্যবহৃত হয়। এসব কারখানা সচল থাকা অবস্থায় সেখানে যদি কোন ডিভাইস থাকে তাহলে সেটি ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।

চুম্বক কি কম্পিউটার অথবা ল্যাপটপের ক্ষতি করে?
কম্পিউটারের সাথে যদি গতানুগতিক হার্ড ড্রাইভ থাকে তাহলে তা খুব শক্তিশালী চুম্বকের মাধ্যমে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার আশংকা রয়েছে। তবে যতক্ষণ না পর্যন্ত হার্ড ড্রাইভের পাশে বড় আকারের নিওডিমিয়াম চুম্বক না থাকে ততক্ষণ চিন্তার কিছু নেই। তাই এখন থেকে ল্যাপটপ অথবা পিসির পাসে ফ্রিজের চুম্বক অথবা ম্যাগনেটিক খেলনা থাকলে উদ্বেগে না থাকলেও চলবে। কারন ছোট চুম্বকগুলোর শক্তি হার্ড ড্রাইভের ভেতরে থাকা ছোট ছোট চুম্বকগুলোর শক্তির কাছাকাছি যেতে পারবে না কোনভাবেই। এছাড়া ল্যাটপট অথবা ডেস্কটপে যদি শুধুমাত্র স্টেট ড্রাইভ থাকে তাহলে সেখানে নষ্ট হওয়ার মতো কোন ম্যাগনেটিক ড্রাইভ অথবা ম্যাগনেটাইজড ডাটা থাকবে না।

Techshohor Youtube

চুম্বক মোবাইলের ক্ষতি করে কিনা?
ফোনের মধ্যে ম্যাগনেটিক মিডিয়া থাকে না। হার্ড ড্রাইভের ভেতরেও না। প্রতিটি ফোনের ক্ষেত্রেই এ কথা সত্য। তবে কিছু কিছু ফোনে তুলনামূলক বড় ম্যাগনেট থাকে। অবশ্য যেটিই হোক না কেন চুম্বক ফোনের জন্য খুব ক্ষতিকর নয়। বিভিন্ন কারনে ফোনগুলোয় খুব ছোট চুম্বক ব্যবহার করা হয়। যেমন-লেন্সের জন্য ইমেজ স্ট্যাবিলাইজেশন অ্যারেতে ম্যাগনেট ব্যবহার করা যায়। একটি ম্যাগনেটিক কেস অথবা মাউন্টের কাছে কোন চুম্বক থাকলে সাময়িকভাবে এগুলো অকেজো হয়ে যেতে পারে। ফলে ফোনের জন্য একটি থার্ড পার্টি লেনস কিট কেনা যায়। এই লেন্স কিটগুলো ম্যাগনেটিক মাউন্ট ব্যবহার করে ফলে এই কিটটি ইনস্টল করার পর অটোফোকাস অথবা ইমেজ স্ট্যাবিলাইজেশন ফিচারগুলো সম্পূর্ণরূপে কাজ করে।

আরএপি

*

*

আরও পড়ুন

vivo Y16 Project