রোবট আসলে কতোটা উন্নত হয়েছে?

টেকশহর কনটেন্ট কাউন্সিলর: গত সপ্তাহে ক্যালিফোর্নিয়ায় হিউম্যানয়েড বা মানবিক রোবট অপটিমাসের প্রটোটাইপ উদ্বোধন করেন টেসলার মালিক ইলন মাস্ক। রোবটটি এখন বাজারে আসার জন্য প্রস্তুত মাস্ক এ কথা নিজে বললেও এখন পর্যন্ত কোথাও তা দেখা যাচ্ছে না।

বলা হচ্ছে এই রোবট মানুষের সাথে সবচেয়ে সহজে কাজ করতে পারে। আর এর ব্যবহারকারীরাও তাদের সাথে স্বচ্ছন্দ্যে যোগাযোগ করতে পারবে। আর অবশ্যই এই রোবটগুলো দেখতে চমৎকার।

কিন্তু বাস্তবে আসলেই কেমন এই রোবটগুলো?

Techshohor Youtube

পা বনাম চাকা

সেন্সর ড্রাইভেন ভিশন সম্পর্কিত বিশেষজ্ঞ ও স্লামকোরের প্রধান নির্বাহি কর্মকর্তা ওয়েন নিকোলসন বলেছেন, দেখতে আকর্ষণীয় হওয়ায় অনেক কোম্পানিই এখন হিউম্যানয়েড নিয়ে কাজ করছে। তবে চাকায় চলা রোবট এমনকি ড্রোনগুলো এরচেয়ে সহজে নিয়ন্ত্রন করা যায়। হিউম্যানয়েডকে শুধুমাত্র সোজা করে দাঁড় করাতেই প্রচুর কাজ করতে হয়।

রিপোর্টি রোবট

বিভিন্ন আকারের রোবট বিভিন্ন কাজের জন্য তৈরি করা হয়। যেমন-কিছু রোবট তৈরি হয় ঘরবাড়ি পরিষ্কার করতে, কিছু রোবট বৃদ্ধদের দেখা শোনা করা, সার্জারিতে সাহায্য করা, রিসিপশনিস্ট ও ট্যুর গাইড হিসেবে কাজ করা ইত্যাদি। বৈজ্ঞানিক চলচ্চিত্রগুলোতে রোবটককে আরো অনেক কর্মক্ষম হিসেবে দেখানো হয়। কিন্তু এসব চলচ্চিত্রে যা দেখানো হয় না তা হচ্ছে প্রি-প্রোগ্রামি ও ব্যাটারির আয়ুষ্কাল। যেমন- ফুটবল খেলতে সক্ষম রোবটগুলোর ব্যাটারির চার্জ মাত্র ১০ মিনিট। এছাড়া কথা বলতে সক্ষম রোবটগুলোর ক্ষেত্রে অনেক ডিভাইস টাস্ক সম্পূর্ণ করতে পারে না।

দেখতে যেমন

প্রত্যাশা এক ধরনের সমস্যাও সৃষ্টি করে। আশা করা হচ্ছে হিউম্যানয়েড রোবটগুলো মানুষের মতো করেই কাজ করবে। লন তৈরি করা, স্যান্ডউইচ বানানো ও শিশুদের সাথে খেলা করাসহ ভিন্ন ভিন্ন কাজ করবে তারা। এডিনবার্গে ন্যাশনাল রোবোটারিয়ামের প্রফেসর হ্যাস্টি বলেছেন, একসাথে অনেক কাজ করতে পারবে এমন রোবট তৈরির পথ আরো অনেক বাকি। সবচেয়ে বড় বিষয় হচ্ছে রোবটটি যে কাজের জন্য তৈরি করা হয়েছে তার উপযুক্ত করে তোলা।

বোস্টন ডায়নামিকসের কুকুরের মতো দেখতে চারপেয়ে রোবটগুলো কোন ভবনে বোমা খোঁজে পাওয়ার মতো কাজের জন্য আদর্শভাবে তৈরি করা হয়েছে। তবে যেসব রোবট রান্নার কাজের জন্য তৈরি করা হয়েছে সেগুলোয় কিন্তু কোন পায়ের প্রয়োজন নেই। এছাড়া যেসব রোবট বাড়ি দেখাশোনার জন্য তৈরি করা সেগুলো দেখতে আরো বেশি মানবিক হতে হবে।

বিবিসি/আরএপি

*

*

আরও পড়ুন