vivo Y16 Project

যুদ্ধের ধ্বংসস্তুপের উপর দাঁড়িয়েও বঙ্গবন্ধু প্রযুক্তি কাঠামো দাঁড় করিয়েছেন - মোস্তাফা জব্বার

টেকশহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, ১৫ আগস্ট, ২১ আগস্ট, ৩রা নভেম্বরের রক্তের প্রবাহ মাস্টার দা সুর্যসেন, প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদার, তিতুমীর আর হাজী শরিয়ত উল্লাহর রক্ত প্রবাহ এক হয়ে মিশে আছে।

মন্ত্রী বলেন, সাড়ে ৩ বছরে যুদ্ধের ধ্বংসস্তুপের উপর দাঁড়িয়েও বঙ্গবন্ধু প্রযুক্তি কাঠামো দাঁড় করিয়েছেন। প্রাথমিক ও কারিগরি শিক্ষার উপর জোর দিয়েছিলেন, পরমাণু শক্তি কমিশন গঠন, টিএন্ডটি বোর্ড স্থাপন করেছেন, উপগ্রহ ভূ-কেন্দ্র স্থাপন করেছেন। কুদরত-ই –খোদা শিক্ষা কমিশনের মাধ্যমে শিক্ষার আমুল পরিবর্তনের সূচনা করে ছিলেন। দেশের প্রায় প্রতিটি সেক্টরকে যুগের চাহিদা মেটানোর উপযোগী করে গড়ে তোলার উদ্যোগ তিনি গ্রহণ করেন। বস্তুত পক্ষে একবিংশ শতাব্দির আজকের জীবন যাপন এবং ৪১ সালে যেখানে বাংলাদেশ পৌঁছাবে তার বীজ বপন করে গেছেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাড়ে ১৮ বছরে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের পথ বেয়ে তা অংকুরিত করে বৃক্ষে রূপান্তরিত করেছেন।

মন্ত্রী সোমবার ঢাকায় জিপিও মিলনায়তনে জাতীয় শোক দিবস ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষ্যে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

Techshohor Youtube

ডাক ও টেলিযোগাযোগ সচিব মো: খলিলুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিটিআরসির চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার, ডাক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো: ফয়জুল আজিম এবং বিটিসিএলর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মো: রফিকুল মতিন বক্তৃতা করেন। বীর মুক্তিযোদ্ধা ল্যাফট্যানেন্ট কর্নেল (অব:) কাজী সাজ্জাদ আলী জহির অনুষ্ঠানে মূখ্য আলোচক হিসেবে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বের দৃঢ়তার বিভিন্ন ঘটনাবলী তুলে ধরেন।

মোস্তাফা জব্বার বলেন, ইয়াহিয়া খানের লিগ্যাল ফ্রেম ওয়ার্কের অধীনে অভ্যন্তরিণ বিরোধীতা সত্ত্বেও সত্তরের নির্বাচনে অংশ গ্রহণ ছিল বঙ্গবন্ধুর দৃরদৃষ্টিসম্পন্ন সিদ্ধান্তের ফসল। এরই ধারাবাহিকতায় আমাদের স্বাধীনতার যুদ্ধকে বিচ্ছিন্ন আন্দোলন বলার সুযোগ ছিল না। ৭০ এর নির্বাচনে বঙ্গবন্ধুর নিরঙ্কুশ বিজয়ে পুরো দেশের সকল জনতা এক হবার পাশাপাশি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় বাঙালির এই যুদ্ধে ব্যাপক সমর্থন লাভ করে ।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ সচিব বঙ্গবন্ধুকে জানতে নতুন প্রজন্মের জন্য বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনীসহ বঙ্গবন্ধুকে অধ্যয়ন করার প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করে বলেন, তার মতো একজন মহান নেতার জন্ম হয়েছিলো বলেই আজ আমরা একটি স্বাধীন দেশ পেয়েছি। তিনি বঙ্গবন্ধুর কারাজীবন এবং তার দৃঢ় নেতৃত্বের বিভিন্ন দিক তুলে ধরে বলেন, বঙ্গবন্ধুর কাছে আমাদের ঋণের শেষ নেই।

বিটিআরসির চেয়ারম্যান ১৯৪৭ সাল থেকে বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক জীবনের নানা ঘাত প্রতিঘাত তুলে ধরে বলেন, আমরা ভাগ্যবান জাতি কারণ আমরা বঙ্গবন্ধুর মতো একজন নেতা পেয়েছি।

মূখ্য আলোচক বীর মুক্তিযোদ্ধা ল্যাফট্যানেন্ট কর্নেল (অব:) কাজী সাজ্জাদ আলী জহির পাকিস্তানের কারাগারে বঙ্গবন্ধুর বন্দী অবস্থায় এবং সেখান থেকে মুক্তি লাভের নেপথ্যের বিভ্ন্নি হৃদয়স্পর্শী ঘটনাবলীসহ বঙ্গবন্ধুর রাজনীতি জীবনের অজানা বর্ণাঢ্য বিভিন্ন ঘটনাবলী তুলে ধরেন।

এর আগে সকালে ধানমন্ডী ৩২ নম্বরে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ ও এর অধীন সংস্থা সমূহের পক্ষ থেকে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুস্পার্ঘ অর্পণ করা হয়। পরে মন্ত্রী জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে ঢাকায় বেসিস সদর দপ্তরে বেসিস আয়োজিত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয় ।

সুত্র – প্রেস বিজ্ঞপ্তি

*

*

আরও পড়ুন

vivo Y16 Project