vivo Y16 Project

সিটিও ফোরাম ইনোভেশন হ্যাকাথন'২২ নিবন্ধন শুরু

টেকশহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : তরুণদের সৃজনশীলতাকে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে নিয়ে যেতে শুরু হলো সিটিও ফোরাম ইনোভেশন হ্যাকাথনের তৃতীয় আসর।

আগামী ৩১ আগস্ট পর্যন্ত উচ্চমাধ্যমিক থেকে পরবর্তি পর্যায়ের যে কোন বাংলাদেশি নাগরিক সিটিও ফোরাম বাংলাদেশ এর ওয়েবসাইট থেকে নিবন্ধন করতে পারবেন। হাইব্রিড মডেলে ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট ও রাজশাহী বিভাগে একযোগে ১ সেপ্টেম্বর আইডিয়া রাউন্ড দিয়ে শুরু হবে উদ্ভাবনী ধারণা অন্বেষণে এই আয়োজন। ৮ অক্টোবর ফিজিক্যাল ডেমোন্সট্রেশান এবং ২২ অক্টোবর চুড়ান্ত প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে নির্বাচিত করা হবে সেরা উদ্ভাবনী দল।

শনিবার কারওয়ানবাজার সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কে সংবাদ সম্মেলন করে জাতীয় পর্যায়ের এই হ্যাকাথনের নিবন্ধন প্রক্রিয়ার ঘোষণা দেয়া হয় ।

Techshohor Youtube

সংবাদ সম্মেলনে সিটিও ফোরাম সভাপতি তপন কান্তি সরকার বলেন, বাংলাদেশ গোল্ডেন ডিভিডেন্ট যুগে রয়েছে, এই তরুণদের কে যদি সঠিক ভাবে কাজে লাগিয়ে তাদের এই সকল ইনোভেটিভ আইডিয়া কে সঠিক নার্সিং করা যায় তবেই হবে ডিজিটাল বাংলাদেশ। তাই দেরি না করে নিজেদের আইডিয়াগুলোকে সামনে নিয়ে আসতে এবং এ সকল আইডিয়ার বাস্তবায়ন নিশ্চিত করতে এই ইনোভেশন হ্যাকাথনে অংশগ্রহণ করা দরকার ।

সংবাদ সম্মেলনে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক অথরিটির ব্যাবস্থাপনা পরিচালক ও আইসিটি ডিভিশনের অতিরিক্ত সচিব ডঃ বিকর্ণ কুমার ঘোষ বলেন, বাংলাদেশকে বিশ্বের কাছে ডিজিটাল হাবে পরিনত করতে এই ইনোভেশন হ্যাকাথন একটি
মাইল ফলক হয়ে থাকবে , তিনি ইনোভেশন হ্যাকাথনের পার্টনার হিসেবে হাইটেক পার্ক থেকে সকল ধরনের সহযোগিতা প্রদানের কথা বলেন। এটুআই প্রকল্পের প্রজেক্ট ডিরেক্টর তাঁর বক্তব্যে সরকারের প্রায় ২ হাজারের ও অধিক সকল সেবাগুলোকে ডিজিটালাইজেশন প্রক্রিয়ায় নিয়ে আসতে ইনোভেশান প্রক্রিয়া গুরুত্ব তুলে ধরেন।

আয়োজন সহযোগী সংগঠন বেসিস পরিচালক আহমেদুল ইসলাম বাবু বলেন, সম্ভাবনাময় উদ্ভাবনী উদ্যোগগুলোকে বাস্তাবায়নে বেসিস প্রতিষ্ঠানগুলোকে বিনিয়োগের জন্য সুযোগ তৈরি করে দেয়া হবে।

আয়োজনের টাইটেল স্পন্সর হিসেবে বাংলাদেশের বৃহৎ টেকনোলজি ইন্ডাস্ট্রি ফেয়ার গ্রুপ তাদের ফেয়ার টেকনোলজি ও গাড়ির ব্র্যান্ড হুন্দাইকে সাথে নিয়ে এই আয়োজনে অংশীদার হওয়ার ঘোষণা দেন । ফেয়ার গ্রুপের পক্ষে বিপনন প্রধান জে, এম, তসলিম কবীর বলেন, হ্যাকাথনে অংশগ্রহনকারীদের ভবিষ্যতে চাকরির সুযোগ থাকবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন ফেয়ার গ্রুপের সম্মানিত চেয়ারম্যান রুহুল আলম আল মাহবুব।

এটুআই প্রকল্প পরিচালক দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ুন কবির বলেন, আমরা আশা করছি স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনের চ্যালেঞ্জগুলোর সমাধান এই হ্যাকাথন থেকে পাওয়া যাবে।

আয়োজনের আহবায়ক প্রফেসর ডঃ সৈয়দ আখতার হোসেন বলেন, হ্যাকাথনে মেন্টরদের মাধ্যমে উদ্ভাকদের ধারণাগুলোর বাণিজ্যিক সফলতার উপর আমরা বেশি গুরুত্ব দেবো।

হ্যাকাথনের অরগানাইজিং কমিটির চেয়ার প্রফেসর ডঃ তৌহীদ ভুঁইয়া উদ্ভাবনে অগ্রগামী বিভিন্ন দেশের উদাহরণ দিয়ে বলেন, সেখান কার টেকনোলজি গুলোকে এডাপ্ট করার জন্য এই ইনোভেশন হ্যাকাথন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

জুরি ও মেন্টর কমিটির চেয়ারম্যান প্রফেসর ডঃ দ্বিপ নন্দি এই হ্যাকাথনে দেশের ও দেশের বাইরের প্রথিতযশা একাডেমিশিয়ান এবং ইন্ডাস্ট্রি এক্সপার্ট গন জুরি ও মেন্টর হিসেবে অংশগ্রহণ করা নিশ্চিত করে বলেন, উদ্যক্তা তৈরি করতে উদ্ভাবনকে গুরুত্ব দিতেই এই আয়োজন ।

সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে তরুণদের ইনোভেশন হ্যাকাথনে নিবন্ধন করে অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে গণমাধ্যম কর্মীদের সহযোগিতা কামনা করেন সিটিও ফোরামের সাধারণ সম্পাদক আরফে এলাহী মানিক।
সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখে ইভেন্ট কমিটির চেয়ার আশরাফুল হক, ফিন্যান্স কমিটির চেয়ার মুহাম্মাদ মুসা, কার্য নির্বাহী সদস্য মোঃ আসিফ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

সংবাদ সম্মেলনে “ক্ষুধা মুক্ত বিশ্ব, সুস্বাস্থ্য, গুণগত শিক্ষা, ই-কমার্স, এমার্জিং টেকনোলোজি, ভার্চুয়াল এসিস্টেন্স, অনলাইন সার্টিফিকেট ভেরিফিকেশান” সহ এমন আরো মুক্ত চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় এই হ্যাকাথন থেকে সেরা উদ্যোগগুলো আন্তর্জাতিক
পর্যায়ে তুলে ধরা হবে বলে জানানো হয়।

ইনোভেশন হ্যাকাথন ২০২২ এর টাইটেল স্পন্সর ফেয়ার টেকনোলজিসের হুন্দাই ব্র্যান্ড। আর হ্যাকাথনে সহযোগী হয়েছে বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক অথরিটি ও এস্প্যায়ার টু ইনোভেট (এটুআই) এবং বেসিস।

সুত্র – প্রেস বিজ্ঞপ্তি

*

*

আরও পড়ুন

vivo Y16 Project