টেক-জায়ান্টগুলোতে ছাঁটাইয়ের হিড়িক, আতংকে কর্মীরা

টেকশহর কনটেন্ট কাউন্সিলর: হঠাৎ করেই যেন ইউ-টার্ন নিয়েছে বিশ্বের বড় প্রযুক্তি কোম্পানিগুলো। ‘নিয়োগ’ যেখানে একধরনের ‘নিয়ম’, সেখানে শুরু হয়েছে কর্মী ছাঁটাই! রীতিমতো আতংকেই দিন কাটছে এসব প্রতিষ্ঠানের চাকুড়েদের। মূলত অর্থনৈতিক মন্দার পূর্বাভাসে কর্মী ছাঁটাইয়ের মাধ্যমে খরচের সমন্বয় করতে চাচেছ কোম্পানিগুলো।

লিংকডইন-এ ইদানিং এ ধরনের চিত্র অতি সাধারন হয়ে উঠছে। শীর্ষ পর্যায়ে কর্মরত, একসময়ে জনপ্রিয় উদ্যেক্তা ছিলেন তারাও এখন ছিটকে পড়ছেন। জব ট্র্যাকার ‘লেঅফস ডট ফি’র দেয়া তথ্যানুযায়ী চলতি বছরের এ পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রের ৩৪৯টি ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানে ৫৩ হাজার কর্মী ছাঁটাই হয়েছে। প্রযুক্তি সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানে সবচেয়ে বেশি ছাঁটাইয়ের ঘটনা ঘটছে।

ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানগুলোর কর্তৃপক্ষ ধারণা করছে, সামনে তাদের মূলধনের মূল্যমান কমে যেতে পারে, আর এ কারনে তারা যতটা সম্ভব নিজেদের হাতে নগদ অর্থ ধরে রাখতে চাইছে। অর্থ সাশ্রয়ের অংশ হিসেবে ব্যাপকহারে কর্মী ছাঁটাই করছে এসব ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান।

Techshohor Youtube

অর্থনীতিবিদ অ্যান্থনি কার্নিভেল জানিয়েছেন, ‘প্রযুক্তি শিল্পে আবারো দুর্যোগ আসছে। সত্তরের দশকের শেষ এবং আশির দশকের শুরুর দিকে যা ঘটেছিলো অবিকল তাই হতে যাচ্ছে। বর্তমানে উচ্চ সুদের হার, বেকারত্বের হারও বেশি- আর এ কারনেই প্রযুক্তি খাতে বিনিয়োগ কমে গিয়েছে এবং শিল্পটি সংকুচিত হয়ে আসছে। ’

গেল মাসেই মাইক্রোসফট করপোরেশন জানিয়েছে, হাজারেরও বেশি কর্মী ছাঁটাই করবে তারা। এদিকে জুনে ৩০০ কর্মী ছাঁটাই করেছে নেটফ্লিক্স; এর আগের মাসেও ১৫০ জন কর্মী ছাঁটাই করেছিলো স্ট্রিমিং কোম্পানিটি।

ইলন মাস্কের টেসলা শ্রমশক্তির ৩ দশমিক ৫ শতাংশ ছাঁটাই করেছে। কোম্পানিটির প্রধান নির্বাহি ইলন মাস্ক বলেছেন, তার ধারণা আসছে ১৮ মাস একটি ‘মৃদু মন্দা’ অব্যাহত থাকবে। তাই ছাঁটাই নিয়ে ভাবতেই হচ্ছে কর্তাদের।

অন্যদিকে সামাজিক যোগাযোম মাধ্যম ফেসবুকের মূল মালিক প্রতিষ্ঠান মেটা চলত বছর প্রকৌশলী নিয়োগ কমপক্ষে ৩০ শতাংশ কমানোর পরিকল্পনা করছে।

একই পথে হাঁটবে টেক্সাসভিত্তিক ওরাকলও। চলতি সপ্তাহেই কয়েকশ কর্মীকে ‘বাই বাই’ বলতে যাচ্ছে তারা। খড়্গ মূলত পড়বে বিজ্ঞাপন ও গ্রাহক অভিজ্ঞতা বিভাগে। ওরাকলের কিনে নেয়া কোম্পানি কার্নারেও কিছু কর্মী ছাঁটাই হবে।

আরেক জায়ান্ট রবিনহুড মার্কেটস ইনকরপোরেশন স্থায়ী কর্মীদের মধ্যে ২৩ শতাংশই ছাঁটাই করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

ওপেন সী ২০ শতাংশ কর্মী ছাঁটাই করেছে। হাই-ফ্লাইং আইডি যাচাইকরন কোম্পানি সোকিউর গত মাসে ১৩ শতাংশ কর্মী ছাঁটাই করেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে বড় ক্রিপ্টোকারেন্সি বিনিময়কেন্দ্র কয়েনবেসও ১ হাজার ১০০ কর্মী ছাঁটাই করেছে।

গুগলের সিইও সুন্দর পিচাই গত সপ্তাহে বলেছেন, অর্থনৈতিক শ্লথগতি ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানগুলোকে প্রয়োজনীয় সমন্বয়ের সুযোগ করে দিয়েছে। ব্যবসা যখন বর্ধিত অবস্থার মধ্যে ছিলো তখন এ ধরনের পদক্ষেপ গ্রহন সহজ ছিলো না।

 সূত্র: আরএপি/ইন্টারনেট

আরও পড়ুন

ছাঁটাইয়ের পরিকল্পনা করছে টুইটার?

টেক জায়ান্টদের অফিস ক্যাফে : শীর্ষে ফেইসবুক, অ্যাপল

টেক ইভেন্টে মন্দা কাটাতে চায় ম্যাকাও

*

*

আরও পড়ুন