vivo Y16 Project

শিক্ষার্থীদের ক্রয়ক্ষমতায় বাজারে ওয়ালটনের দুটো নতুন ল্যাপটপ

টেকশহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : এন্ট্রি লেভেলের ক্রেতাদের চাহিদা এবং শিক্ষার্থী ও তরুণদের ক্রয়ক্ষমতা অনুযায়ী দুটো ল্যাপটপ বাজারে এনেছে ওয়ালটন।

মডেল র‍্যাম ও ব্যাটারি, দ্রুতগতির স্টোরেজসহ কনফিগারেশন ও ফিচার মডেলভেদে দাম যথাক্রমে ৩৯,৭৫০ এবং ৪১,৯৫০ টাকা।

ওয়ালটন কম্পিউটার পণ্যের প্রধান বাণিজ্যিক কর্মকর্তা তৌহিদুর রহমান রাদ , অত্যন্ত হালকা ও স্লিম হওয়ায় যাদের কাজের প্রয়োজনে বেশি ভ্রমণ করতে হয়, তাদের জন্য ল্যাপটপ দুটি আদর্শ। প্রয়োজনীয় কাজ ও বিনোদনে ওয়ালটনের প্রিলুড সিরিজের নতুন ল্যাপটপ ব্যবহারকারীকে দেবে অনন্য অভিজ্ঞতা।

Techshohor Youtube

ওয়ালটন জানিয়েছে , উন্নত পারফরমেন্সের জন্য ‘প্রিলুড এন৪১ প্রো’ (Prelude N41 Pro) মডেলে ব্যবহৃত হয়েছে ১.১ গিগাহার্জ গতির ইন্টেল সেলেরন এন৪১২০ কোয়াড কোর প্রসেসর। রয়েছে বিল্টইন ইন্টেল আল্ট্রাএইচডি গ্রাফিক্স ৬০০।

আর ‘প্রিলুড এন৫০ প্রো’ (Prelude N50 Pro) মডেলের ল্যাপটপে ব্যবহৃত হয়েছে ১.১ গিগাহার্জ গতির ইন্টেল পেন্টিয়াম এন৫০৩০ , বেশি সংখ্যক ফাইল, সফটওয়ার, গেম, মুভি ইত্যাদি সংরক্ষণের জন্য রয়েছে ২৫৬ জিবি এমডটটু এসএসডি স্টোরেজ। ৫১২ জিবি পর্যন্ত স্টোরেজ সাপোর্ট করবে ।

উভয় ল্যাপটপে ২৬৬৬ মেগাহার্টস গতির ৮ গিগাবাইট ডিডিআর৪ র‍্যাম থাকায় প্রয়োজনীয় কাজ করা যাবে অনায়াসেই।

ল্যাপটপদুটির ডাইমেনশন ৩২৪.৯/২১৯.৫/১৭.৯ মিমি ব্যাটারিসহ ওজন মাত্র ১.২৯ এবং ১.৩৫ কেজি। দিচ্ছে ২ বছরের ওয়ারেন্টি।

কালো রঙের ল্যাপটপদুটিতে ব্যবহৃত হয়েছে ১৪ ইঞ্চির ফুল এইচডি ম্যাট এলইডি ব্যাকলিট ডিসপ্লে। পর্দার রেজ্যুলেশন ১৯২০ বাই ১০৮০ পিক্সেল। গেম খেলা, কাজ করা বা মুভি দেখায় পাওয়া যাবে অসাধারণ অনুভূতি। এর ম্যাট ডিসপ্লে প্যানেল আলোর প্রতিফলন রোধ করে চোখকে আরাম দেবে।

দীর্ঘক্ষণ পাওয়ার ব্যাকআপের জন্য উভয় ল্যাপটপে ব্যবহৃত হয়েছে ৩৬ ওয়াট আওয়ারের স্মার্ট লিথিয়াম- আয়ন ব্যাটারি, যা ৫২০ মিনিট ব্যাকআপ দিতে সমর্থ। স্পষ্ট ও জোড়ালো শব্দের জন্য রয়েছে দুইটি বিল্ট ইন ২ ওয়াটের স্পিকার। স্পষ্ট ভিডিও কল ও কনফারেন্সের জন্য রয়েছে ১ মেগাপিক্সেলের এইচডি ক্যামেরা এবং বিল্ট ইন মাইক্রোফোন।

মাল্টি-ল্যাঙ্গুয়েজ আইসোলেটেড কিবোর্ড এবং মাইক্রোসফট পিটিপি মাল্টি-জেসচার ও স্ক্রলিং ফাংশনসহ বিল্ট-ইন ক্লিক প্যাড থাকায় এই ল্যাপটপে টাইপিং হবে দ্রুত ও মসৃণ। এতে স্ট্যান্ডার্ড ইংরেজির পাশাপাশি রয়েছে বিল্ট-ইন বাংলা ফন্ট এবং বিজয় বাংলা সফটওয়্যার। ফলে যে কেউ অনায়াসেই এই ল্যাপটপে বাংলা লিখতে পারবেন।

ল্যাপটপগুলোতে কানেকটিভিটির জন্য রয়েছে ১টি করে ইউএসবি টাইপ এ ২.০ এবং ৩.২ পোর্ট, ১টি ইউএসবি ৩.২ টাইপ সি পোর্ট, মাইক্রোএসবি কার্ড রিডার, ২টি এমডটটু কার্ড স্লট, ব্লুটুথ ভার্সন ৫.১, ডুয়াল ব্যান্ড ওয়াইফাই ৫.০, এইচডিএমআই পোর্ট, হেডফোন ও মাইক্রোফোন জ্যাক ইত্যাদি।

সুত্র – প্রেস বিজ্ঞপ্তি

*

*

আরও পড়ুন

vivo Y16 Project