Samsung HHP Online Campaign

মুখ ফেরাচ্ছে ক্রেতারা, দেশে ব্যাপকহারে বাজার হারিয়েছে অপো

ছবি সোর্স : ইন্টারনেট

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশের বাজারে ব্যাপকহারে বিক্রি কমেছে স্মার্টফোন ব্র্যান্ড অপোর।

২০২২ সালের প্রথম প্রান্তিকে অপো বিক্রি করতে পেরেছে ২ লাখ ৭৮ হাজার ইউনিট। যেখানে ২০২১ সালের একই প্রান্তিকে ব্র্যান্ডটির বিক্রি ছিলো ৪ লাখ ৪১ হাজার ইউনিট।

দেখা যাচ্ছে, ১ লাখ ৬৩ হাজার ইউনিটের মতো বড় সংখ্যায় অপোর বিক্রি কমেছে।

Techshohor Youtube

অথচ একই সময়ে বাজার দখলে আলোচনায় থাকা সুপরিচিত ব্যান্ডগুলোর বিক্রি তো কমেইনি বরং কারও কারও বিক্রি বেড়েছে বেশ। আর যেসব ব্যান্ডের কমেছে তাও এমন ‘অস্বাভাবিক’ সংখ্যায় নয়।

অপোর এই বাজার তথ্য একটি আন্তর্জাতিক স্বীকৃত পরামর্শক ও বাজার গবেষণা সংস্থার তথ্য অনুযায়ী । সংস্থাটি নিয়মিতই বাংলাদেশের হ্যান্ডসেট বাজারের গতি-প্রকৃতি পর্যবেক্ষণ ও গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ করে থাকে।

বাজার বিশ্লেষক ও ব্যবহারকারীদের ভাষ্য, দেশে অপোর কর্মক্ষেত্রে হয়রানি এবং যৌন পৗড়নের অভিযোগকর্মী অধিকার লঙ্ঘন, মানসিক নির্যাতন ও বাংলাদেশের শ্রম আইন লঙ্ঘন, কর ফাঁকি, মানি লন্ডারিংয়ের অভিযোগসহ বিভিন্ন কেলেঙ্কারি নিয়ে ব্যাপক আলোচনা রয়েছে। এসবের একটা নেতিবাচক প্রভাব তো পড়েই। আর ক্যামেরাকেন্দ্রিক স্মার্টফোন ব্র্যান্ডটির ক্যামেরা নিয়ে অভিযোগসহ মান নিয়েও ব্যবহারকারীদের প্রশ্ন রয়েছে।

শুধু দেশে নয় বিশ্ববাজারেও বিক্রি নেমে গেছে অপোর। আন্তর্জাতিক ডেটা করপোরেশন (আইডিসি) এর ‘ওয়ার্ল্ডওয়াইড কোয়ার্টারলি মোবাইল ফোন ট্র্যাকার’ বলছে ২০২২ সালের প্রথম প্রান্তিকে ২ কোটি ৭৪ লাখ ইউনিট শিপমেন্ট হয়েছে অপোর। অথচ ২০২১ সালের একই প্রান্তিকে এই সংখ্যা ছিলো ৩ কোটি ৭৫ লাখ ইউনিট ।

আইডিসির হিসেবে বছর হতে বছর তুলনায় যে পরিবর্তন দেখানো হয়েছে তাতে অপোর শিপমেন্ট কমেছে ২৬ দশমিক ৮ শতাংশ ।

আইডিসির রিপোর্ট অনুয়ায়ী দেশের স্মার্টফোন বাজারে ২০২২ সালের প্রথম প্রান্তিকে শীর্ষে রয়েছে ভিভো। তাদের বাজার শেয়ার ২০ দশমিক ৭ শতাংশ।

দ্বিতীয় অবস্থানে আছে ট্রানশান। ট্রানশানের ব্যান্ড আইটেল ও টেকনো। বাজার শেয়ার ১৯ দশমিক ৯ শতাংশ।

তৃতীয় অবস্থানে রিয়েলমি । বাজার শেয়ার ১৬ দশমিক ৮ শতাংশ। চতুর্থ স্যামসাং, বাজার শেয়ার ১২ দশমিক ৩ শতাংশ এবং পঞ্চম অপো। তাদের বাজার শেয়ার ৯ দশমিক ৭ শতাংশ।

২০২১ সালের প্রথম প্রান্তিকের তুলনায় বেশ বিক্রি বেড়েছে ভিভোর। ২০২২ সালের প্রথম প্রান্তিকে ব্যান্ডটি বিক্রি করেছে ৫ লাখ ৯০ হাজার ইউনিট। যা গত বছরের একই প্রান্তিকে ছিলো ৪ লাখ ৬৯ হাজার।

রিয়েলমি ২০২২ সালের প্রথম প্রান্তিকে বিক্রি করেছে ৪ লাখ ৮০ হাজার ইউনিট । ২০২১ সালের একই সময়ে এটি ছিলো ৪ লাখ ৭ হাজার। স্যামসাং এই বছরের প্রথম প্রান্তিকে বিক্রি করেছে ৩ লাখ ৫১ হাজার ইউনিট । ২০২১ সালের একই সময়ে ৩ লাখ ৮৭ হাজার বিক্রি করেছে তারা।

*

*

আরও পড়ুন