Samsung HHP Online Campaign

‘ডিজিটাল বাংলাদেশ টাস্কফোর্স’ এবার ‘স্মার্ট বাংলাদেশ টাস্কফোর্স’

আইসিটি টাওয়ার- তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ। ছবি-ইন্টারনেট

আল-আমীন দেওয়ান : প্রায় ১২ বছর পর ডিজিটাল বদলে যাচ্ছে ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ টাস্কফোর্স’।

এর পরিবর্তে গঠন করা হচ্ছে ‘স্মার্ট বাংলাদেশ টাস্কফোর্স’ ।

বাংলাদেশকে একটি জ্ঞানভিত্তিক অর্থনীতি এবং উদ্ভাবনী জাতি হিসেবে প্রতিষ্ঠায় স্মার্ট বাংলাদেশ-২০৪১ ভিশনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এই ‘স্মার্ট বাংলাদেশ টাস্কফোর্স’ গঠিত হবে।

Techshohor Youtube

২০১০ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি সর্বপ্রথম ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ টাস্কফোর্স’ নামে এ টাস্কফোর্স গঠন করা হয়। তার আগে ছিলো ‘তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক জাতীয় টাস্কফোর্স’।

‘ডিজিটাল বাংলাদেশ টাস্কফোর্স’ হওয়ার পর ১২ বছরে ৩টি মূল বৈঠক হয়। প্রথম বৈঠক হয় ২০১০ সালের ৩ আগস্ট, দ্বিতীয় বৈঠক বসে ২০১৫ সালের ৬ আগস্ট এবং তৃতীয় বৈঠক ২০২২ সালের ৭ এপ্রিল অনুষ্ঠিত হয়।

দেশে ভবিষ্যত প্রযুক্তির বিকাশসহ তথ্যপ্রযুক্তি খাতে দেশের সামগ্রিক উন্নয়ন ও সম্প্রসারণে কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন এবং তা বাস্তবায়নের রূপরেখা আসে এই টাস্কফোর্স হতে। টাস্কফোর্সে দেশের সরকারি-বেসরকারি খাতের শীর্ষ পর্যায়ের প্রতিনিধিত্ব থাকে।

নতুন এই টাস্কফোর্স গঠনের সিদ্ধান্ত হয়েছে ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ টাস্কফোর্স’-এর তৃতীয় সভায় । এতে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। যেখানে ডিজিটাল বাংলাদেশের পর ভবিষ্যত বাংলাদেশের রূপরেখা দেন প্রধানমন্ত্রী।

ওই সভায় ‘স্মার্ট বাংলাদেশ ভিশন-২০৪১ উপস্থাপন করেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। যেখানে তিনি বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ ২০২১ ‍রূপকল্পের আওতায় যেমন ডিজিটাল শিক্ষা, ডিজিটাল স্বাস্থ্যসেবা, ডিজিটাল কৃষি ইত্যাদির বাস্তাবায়ন নিশ্চিত করা হয়েছে তেমনি ‘স্মার্ট বাংলাদেশ-২০৪১’ এর আওতায় প্রধান অঙ্গ হবে স্মার্ট শিক্ষা, স্মার্ট স্বাস্থ্যসেবা, স্মার্ট কৃষি , স্মার্ট বাণিজ্য, স্মার্ট পরিবহন ইত্যাদি।

ইতোমধ্যে এই সভার সিদ্ধান্তের কার্যপত্রে স্বাক্ষর করেছেন প্রধানমন্ত্রী। নতুন এই টাস্কফোর্স গঠনের সিদ্ধান্ত তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগকে বাস্তবায়ন করতে বলা হয়েছে।

এরআগে এই ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ টাস্কফোর্সের’ তৃতীয় সভার বিষয়ে জুনাইদ আহমেদ পলক টেকশহর ডটকমকে জানিয়েছিলেন, ‘গত ২০ মার্চ প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় স্মার্ট বাংলাদেশের একটি কৌশলপত্র বা রূপরেখা তৈরি করতে বলেছিলেন। ডিজিটাল বাংলাদেশ টাস্কফোর্সের বৈঠকে ২০৪১ সালের মধ্যে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে তোলার জন্য প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি উপদেষ্টার পরামর্শ এবং নির্দেশনায় স্মার্ট বাংলাদেশের কনসেপ্ট পেপারটা উপস্থাপন করা হয়েছে। যা প্রধানমন্ত্রী পছন্দ করেছেন।’

*

*

আরও পড়ুন