Samsung HHP Online Campaign

প্রাথমিক শিক্ষায় কোডিং যুক্ত করার লড়াইয়ে সফল হয়েছি: মোস্তাফা জব্বার

টেকশহর কনটেন্ট কাউন্সিলর: ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন , যৌক্তিক চিন্তাভাবনার জন্য প্রোগ্রামিং শিখতে হবে। যদি কেউ প্রোগ্রামিং বা কোডিং জানে তাহলে তার কাছে পৃথিবীর কোন কাজই কঠিন না।

মন্ত্রী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের নিয়ে আয়োজিত তিন দিনের স্ক্র্যাচ প্রোগ্রামিং ক্যাম্পে শিক্ষকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা ও সমাপনী অনুষ্ঠানে একথা বলেন । 

শনিবার , ৪ জুলাই বিকেলে লালমাটিয়া আপন উদ্যোগ ফাউন্ডেশনে ইএমকে সেন্টার ও বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্কের যৌথভাবে আয়োজিত প্রাথমিক শিক্ষায় কোডিং শিক্ষক প্রশিক্ষণ কার্যক্রম প্রণয়ন ক্যাম্পের তৃতীয় দিনের সমাপনী অনুষ্ঠানে ২১টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অংশগ্রহণকারী শিক্ষকের সঙ্গে মতবিনিময় করেন মন্ত্রী।

Techshohor Youtube

স্ক্র্যাচ প্রোগ্রামিং নিয়ে এমন উদ্যোগে শিক্ষকদের অংশগ্রহণ করায় ধন্যবাদ জানান তিনি। এসময় তিনি আরও বলেন, এই প্রশিক্ষণ কার্যক্রম প্রণয়নের মাধ্যমে আপনারা এমনভাবে প্রোগ্রামিং শেখানোর পদ্ধতি তৈরি করবেন, যেন শিক্ষার্থীদের প্রোগ্রামীং ভীতিটা গোড়া থেকেই দূর করে দিতে হবে। যেন তারা বড় হয়ে সফটওয়্যারভিত্তিক জটিল সব সমস্যা সমাধান করতে পারে।   

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট লেখক ও শিক্ষাবিদ ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল। তিনি বলেন, সব কিছুর মূল সমাধান লুকিয়ে আছে শিক্ষায়। যখনই কোন সমস্যা হয়, আমি বলি, সর্বক্ষেত্রে শিক্ষা বিস্তার করো। এতেই সমাধান হয়ে যাবে। আপনারা শিক্ষার্থীদের জীবনযাপনের জন্য এই কাজটিই করছেন। 

জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের প্রাথমিক শিক্ষাক্রম কমিটির সদস্য প্রফেসর ড. এ কে এম রিয়াজুল হাসান বলেন, নতুন কারিকুলাম অনুযায়ী প্রাথমিক শিক্ষায় স্ক্র্যাচ প্রোগ্রামিং তৃতীয় শ্রেণি থেকে পঞ্চম শ্রেণিতে যুক্ত করা হয়েছে। নতুন কারিকুলামে পরীক্ষা পদ্ধতির মূল্যায়ন বদল করা হয়েছে। এছাড়া ধারাবাহিক মূল্যায়নের উপরে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।  

ইএমকে সেন্টারের প্রোগ্রাম অফিসার আয়শা সিদ্দিকা বিডিওএসএন-কে ধন্যবাদ জানান এই প্রকল্প পরিচালনা করার জন্য।

এছাড়া উপস্থিত ছিলেন সোয়াপের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা পারভেজ হোসাইন। তিনি বলেন, দরিদ্র শিক্ষার্থীদের স্বল্প মূল্যে ডিজিটাল ডিভাইস দেওয়া সম্ভব হয় ইলেক্ট্রনিক যন্ত্র রিসাইকেল করার মাধ্যমে।

বাংলাবাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ইসরাত জাহান বলেন, শিক্ষার্থীরা প্রোগ্রামিং বা কোডিং শব্দটাকে ভীতি তৈরি হতে পারে। প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের খেলার মাধ্যমে প্রোগ্রামিং শেখানো যেতে পারে।

আগামী চার মাস ক্যাম্পে অংশগ্রহণকারী শিক্ষকেরা তাঁদের স্কুলে ফিরে গিয়ে শিক্ষার্থীদের স্ক্র্যাচ প্রোগ্রামিং শেখাবেন। শেখানোর মাধ্যমে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের স্ক্র্যাচ প্রোগ্রামিং শেখানোর পদ্ধতি পরিমার্জিত হবে। পরবর্তীতে এই শিক্ষকদের নিয়ে শিখনফল থেকে একটি ক্যাম্প পুনরায় আয়োজন করা হবে। যার মাধ্যমে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে স্ক্র্যাচ প্রোগ্রামিং শেখানোর একটি মডেল তৈরি হবে।  

সূত্র – প্রেস বিজ্ঞপ্তি

*

*

আরও পড়ুন