বাফেলোয় বন্দুক হামলায় সোশ্যাল মিডিয়ার ভূমিকা নিয়ে তদন্ত শুরু

টেকশহর কনটেন্ট কাউন্সিলর: যুক্তরাষ্ট্রের বাফেলোতে গত শনিবার বন্দুক হামলায় ১০ জন নিহতের ঘটনায় সোশ্যাল মিডিয়া কোম্পানিগুলোর ভূমিকা যাচাইয়ে তদন্তের ঘোষণা দিয়েছেন নিউইয়র্কের শীর্ষ প্রসিকিউটর। নিউইয়র্কের গভর্নর দাবি করছেন এই হামলার কিছুটা দায়ভার এই প্রযুক্তি কোম্পানিগুলোকেও নিতে হবে। অন্যদিকে সমালোচকরা বলছেন অভিযুক্ত বন্দুকধারীর সহিংস পোস্ট সরাতে কোম্পানিগুলো অনেক বিলম্ব করেছে।

অ্যাটর্নি জেনারেলের অফিস থেকে বলা হয়েছে, ‘এই ঘটনার প্রবাহ, প্রচার অথবা পরিকল্পনার’ সঙ্গে সোশ্যাল প্লাটফর্মগুলোর ভূমিকা খতিয়ে দেখা হবে।

বুধবার তদন্তের ঘোষণা দিয়ে অ্যাটর্নী জেনারেল লেটিশিয়া জেমস বলেছেন, ‘বাফেলোতে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা আরো একবার প্রকাশ করেছে যে, অনলাইন ফোরামগুলোর হিংসা ছড়ায় ও প্রচার করে।’

Techshohor Youtube

অভিযুক্ত শেতাঙ্গ বন্দুকধারী গুগলে একটি ঘোষণা পোস্ট করেন এবং অ্যামাজনের মালিকানাধীন সুপারমার্কেট টুইচে এলোপাথারি গুলি করে ১০ জনকে হত্যার ঘটনাটি সরাসরি প্রচার করে। সহিংসতা শুরুর পর দুই মিনিটেরও কম সময় ধরে ঘটনাটি সম্প্রচার করা হয়। কিন্তু ভিডিওটি সরিয়ে নেয়া সত্তে¡ও তা অন্যান্য স্ট্রিমিং সাইটে তা কপি করে প্রচার করা হয়।

ফেইসবুক ভিডিওটি কপির লিংক ১০ ঘন্টারও বেশি সময় রেখেছিলো। আর এ সময়ের মধ্যে ভিডিওটি ৪৬ হাজার বার প্লাটফর্মটি থেকে শেয়ার করা হয়। এছাড়াও বিভিন্ন জায়গায় আপলোড হয়ে থাকা ভিডিওটির কপি তিন মিলিয়নের বেশি দেখা হয়েছে।

বিবিসি/আরএপি

*

*

আরও পড়ুন