স্পেকট্রাম বিক্রি, সেবার মানে আমূল পরিবর্তনের আশা টেলিযোগাযোগ মন্ত্রীর

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : নিলামে বিক্রি হওয়া ১৯০ মেগাহার্টজ স্পেকট্রাম দেশের টেলিযোগাযোগ সেবার মানে আমূল পরিবর্তন আনবে বলে বলছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে ‘রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি অকশন-২০২২’ অনুষ্ঠানের পর প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী বলেন, ‘আমি অনেক অভিযোগ ও জিজ্ঞাসা পাই যে, সংযোগটা সচল, সজীব ও গুণগত করে দিতে পারি কিনা।’

‘এখানে আমি অবশ্যই মনে করি, যে পরিমাণ মানুষের কাছে আমরা কানেক্টিভিটি পৌঁছাচ্ছি সেই পরিমাণ মানুষের কাছে কানেক্টিভিটি পৌঁছানোর জন্য যে গুণগত মান বজায় রাখা দরকার, এটির ক্ষেত্রে ঘাটতি আছেই।’ উল্লেখ করেন তিনি।

Techshohor Youtube

মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘ঘাটতির অন্যতম কারণ যথাযথ স্পেকট্রাম এবং যে পরিমাণ স্পেকট্রাম থাকা উচিত সে পরিমাণ ঘাটতি ছিলো।’

‘বলছি না যে নিলামের পরেই একদম পর্যাপ্ত একটি জায়গাতে আমরা পৌঁছাবো। তবে আমরা ১৫৬ মেগাহার্টজ হতে আজকেই যখন আরও ১৯০ মেগাহার্টজ যোগ করতে পেরেছি, তারমানে হচ্ছে আমাদের অবস্থার একটি আমূল পরিবর্তন আমরা দেখতে পাবো। এটির ফলে আমাদের যে সংকটগুলো আছে, কোয়ালিটি অব সার্ভিসের বিষয়গুলো আছে, সেই বিষয়গুলোর ক্ষেত্রে আমাদের প্রচুর পরিমাণে সহায়তা হবে।’ উল্লেখ করেন তিনি।

মন্ত্রী বলেন, ‘তথ্যপ্রযুক্তির যুগে কানেক্টটিভিটি আমাদের জীবনে কতটা গুরুত্বপূর্ণ তা করোনাকালে আমরা উপলদ্ধি করেছি। চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের যুগে বাংলাদেশ যাতে তথ্যপ্রযুক্তিতে পিছিয়ে না পড়ে সে জন্য আমরা বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করেছি।’

এই নিলামে গ্রামীণফোন ২ দশমিক ৬ গিগাহার্টজ ব্যান্ডে ৬০ মেগাহার্টজ স্পেকট্রাম, রবিও ২ দশমিক ৬ গিগাহার্টজ ব্যান্ডে ৬০ মেগাহার্টজ স্পেকট্রাম কিনেছে।

এছাড়া বাংলালিংক কিনেছে ২ দশমিক ৩ গিগাহার্টজ ব্যান্ডে ৪০ মেগাহার্টজ। আর টেলিটক কিনেছে ২ দশমিক ৩ গিগাহার্টজ ব্যান্ডে ৩০ মেগাহার্টজ স্পেকট্রাম ।

নিলামে দুই ব্যান্ড মিলে স্পেকট্রাম ছিলো ২২০ মেগাহার্টজ । এরমধ্যে বিক্রি হলো ১৯০ মেগাহার্টজ ।

সবমিলে এই স্পেকট্রাম বিক্রি করে বিটিআরসি ১ হাজার ২৩৫ মিলিয়ন ডলার বা ১০ হাজার ৬৪৫ কোটি টাকা রাজস্ব পেয়েছে ।

*

*

আরও পড়ুন