ফেইসবুকে যে কারনে মাল্টি-ফ্যাক্টর অথেনটিকেশন ব্যবহার করতে হবে

টেকশহর কনটেন্ট কাউন্সিলর: অনেকেরই ফেইসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়। বিশেষ করে যেসব অ্যাকাউন্টে ফলোয়ারের সংখ্যা বেশি। এই অ্যাকাউন্টগুলোয় বাড়তি সুরক্ষা দিতে ফেসবুক প্রোটেক্ট নামে একটি বিশেষ ফিচার এনেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটি। অনেকের কাছেই এখন ফেইসবুক কর্তৃপক্ষের থেকে ই-মেইল আসছে এই ফিচারটি চালু করার জন্য।

ফেইসবুক প্রোটেক্ট কি?

ফেইসবুক প্রোটেক্ট মূলত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটির মাল্টি-ফ্যাক্টর অথেনটিকেশনের সংস্করন। শুরুর দিকে গুজব প্রতিরোধে নির্বাচিত কর্মকর্তা, রাজনৈতিক প্রার্থী এবং তাদের অ্যাকাউন্টগুলো হ্যাকারদের থেকে সুরক্ষার জন্য ফিচারটি তৈরি করা হয়েছিলো। সম্প্রতি রাশিয়া-ইউক্রেনের যুদ্ধ ঘিরে নানারকম গুজব ছড়িয়ে পড়ার কারনে বেশি ফলোয়ার রয়েছে এমন ব্যাক্তিদের অ্যাকাউন্ট অথবা পেজগুলোর নিরাপত্তা বৃদ্ধিতে ফেইসবুক পোটেক্টের পরিধি বিস্তার করা হয়েছে।

Techshohor Youtube

এই ফিচারটি মূলত অ্যাকাউন্টের মাল্টি-ফ্যাক্টর অথেনটিকেশনের ভিত্তিতে কাজ করার পাশাপাশি আরো সহজে অ্যাকাউন্ট পর্যবেক্ষণের সুযোগ করে দেয়। এক্ষেত্রে পেইজ অ্যাডমিনদের প্রধান দেশের নামের নিশ্চয়তা দিতে হবে এবং নিজের প্রকৃত নাম উল্লেখ করতে হবে।

সক্রিয়ভাবে আপনার নিরাপত্তা হালনাগাদ করতে হবে

আপনাকে যদি এখন পর্যন্ত ফেইসবুক প্রোটেক্ট ব্যবহার করতে না বলা হয় তাহলে আপনি প্রয়োজনের মাল্টি-ফ্যাক্টর অথেনটিকেশন পদ্ধতির মাধ্যমে অ্যাকউন্ট সুরক্ষিত রাখতে পারেন। অথেনটিকের পদ্ধতি পরিবর্তন করতে হলে প্রথমেই আপনার ফেইসবুক অ্যাকাউন্টের সিকিউরিটি ও লগইন সেকশনে যেতে হবে অথবা মোবাইল ডিভাইসের পাসওয়ার্ড অ্যান্ড সিকিউরিটি সেকশনে থাকতে হবে। এরপর টু-ফ্যাক্টর অথেনটিকেশন সেটআপ সিলেক্ট করে ফেসবুকের পাসওয়ার্ড দিতে হবে। আপনি যদি আপনার ফোন হারিয়ে ফেলেন এবং ভেরিফিকেশন কোড না পান তাহলে আপনাকে ভিন্ন অথেনিটিকেশন পদ্ধতি বাছাই করতে হবে অথবা এটি রিকভারি কোড তৈরি করতে হবে।

ইন্টারনেট/আরএপি

*

*

আরও পড়ুন