ইউক্রেনকে সাহায্যের অজুহাতে অনলাইনে মিথ্যা তথ্য ছড়িয়ে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে অনেকে

টেকশহর কনটেন্ট কাউন্সিলর: রাশিয়ার হামলায় ইউক্রেনের জনগনকে সহমর্মীতা জানাতে অনেক ধরণের পন্থা নিচ্ছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারকারীরা। এদের মধ্যে অনেকে নগদ অর্থের মাধ্যমে সাহায্যের আহ্বান জানিয়ে পোস্ট করছেন । তবে এক্ষেত্রে অনেক সময়ই ছড়ানো হচ্ছে ভুয়া তথ্য, ছবি, ভিডিও। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো আমরা জানি না যে পর্দার ওপাশে কে আছে। ইনস্টাগ্রামে যে ব্যাক্তি নিজেকে যুদ্ধের অঞ্চলের বলে দাবি করছেন আসলেই কি তার কোন অস্তিত্ব আছে? নাকি তারা মানবিক বিপর্যয়ের ফায়দা নিতে পুরনো সামরিক ছবিকে নতুন বলে চালিয়ে দিচ্ছেন?

অনলাইনে মিথ্যা নিউজ ছড়িয়ে অনেকেই প্রচুর অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে। এ ধরনের ভূয়া খবরে প্রতারিত হবেন না। কিভাবে বিভ্রান্তিমূলক কৌশলগুলো বোঝতে পারবেন তার জন্য কিছু টিপস:

১. অনুসরনকারীদের সংখ্যা উপেক্ষা করুন এবং মানসম্পন্ন অনুসারীদের অনুসরন করুন :

Techshohor Youtube

ইনস্টাগ্রাম, টুইটার এবং টিকটকে মিম অ্যাকাউন্টগুলোয় দ্রুত লাখ লাখ ফলোয়ার যুক্ত হয়। এসব ফলোয়ারের মধ্যে সত্যি-মিথ্যা দুই ধরনের মানুষই রয়েছে। বৈধ অ্যাকাউন্ট বোঝার সবচেয়ে ভালো লক্ষন হলো সেখানে সরকারি কর্মকর্তা অথবা শীর্ষ সংবাদ সংস্থার সাংবাদিকদের উপস্থিতি।

২. যে মিডিয়া ব্যবহার করছেন তা যাচাই করুন:

আগের কোন যুদ্ধ বা সামরিক মহড়ার ছবিকে রাশিয়া-ইউক্রেনের যুদ্ধ হিসেবে চালিয়ে দিয়ে ভুল সংবাদ ছড়ানো হচ্ছে। ইমেজ সার্চের মাধ্যমে আপনি এ ছবিগুলো যাচাই করতে পারেন। ভিডিওর বিষয়গুলো কিছুটা ভিন্ন। ভিডিওগুলো ভুয়া কিনা তা বোঝা কঠিন। আর এ কারনেই বিপুল সংখ্যক স্ক্যামার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এসব ভিডিও ব্যবহার করে থাকে। ভিডিও গেম থেকে শুরু করে সম্প্রতি অন্য কোন যুদ্ধের ছবি ব্যবহার করেও এসব মিথ্যা সংবাদ ছড়ানো হয়।

৩. শেয়ার করার আগে ভাবুন:

আপনাদের চেনাজানা বন্ধুদের মধ্যে আপনার শেয়ার করা প্রতিটি লিংক, ছবি বা ভিডিও বড় ধরনের প্রভাব ফেলে। শুধুমাত্র যাচাইকৃত সরকারি অ্যাকাউন্ট অথবা নিউজ মিডিয়ার তথ্যগুলো শেয়ার করার মাধ্যমেই সবাইকে নিরাপদ রাখা যায়।

৪.তহবিল সংগ্রাহকদের থেকে সতর্ক থাকুন

সামাজিক যোগাযোগের প্লাটফর্মগুলো ব্যবহার করে যে কেউ-ই তহবিল সংগ্রহের সুযোগ নিতে পারে। আপনি যদি ইউক্রেনের সেনাবাহিনীকে অর্থ দান করতে চান তাহলে দেশটির টুইটার অ্যাকাউন্টে যোগাযোগ করুন। সেখানে দেয়া লিংকের মাধ্যমে অর্থ দান করতে পারেন

৫. ডিএম থেকে দূরে থাকুন

যদি আপনার অচেনা কেউ আপনাকে গোপন ম্যাসেজে দেয়ার মাধ্যমে কোন একটি অ্যাকাউন্ট অনুসরন করতে বলে, আরো তথ্যের জন্য লিংকে ক্লিক করতে বলে অথবা অর্থ দান করতে বলে তাহলে সাড়া দিবেন না। এ ধরনের অ্যাকাউন্ট রিপোর্ট করে ব্লক করুন এবং এখান থেকে বের হয়ে যান।

৬. অর্থ অনুসরন করুন

যদি কেউ ইউক্রেনকে দান করার অনুরোধ করে তাহলে এই অর্থ কিভাবে সাধারন মানুষের প্রয়োজনে পৌঁছে দেয়া হবে সে বিষয়ে নির্ধিদ্বিধায় প্রশ্ন করবেন। সবাই যে স্ক্যামার হবে তা কিন্তু নয়, যদি তহবিল সংগ্রহকারী বৈধ হয় তাহলে তিনি অবশ্যই ইউক্রেন সরকারের আর্থিক লিংকের মতো অফিসিয়াল চ্যানেলগুলোর মাধ্যমে অর্থ সরবরাহের পরিকল্পনার কথা বলবেন।

ইন্টারনেট/আরএপি

*

*