vivo Y16 Project

হ্যাক হয়েছে স্যামসাং, বিপাকে কর্তৃপক্ষ

স্যামসাং লোগো। ছবি : ইন্টারনেট

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর: স্যামসাং ও এনভিডিয়াসহ বেশ কিছু প্রতিষ্ঠানে সফল হামলা চালিয়েছে কুখ্যাত হ্যাকিং গ্রুপ ল্যাপসাসডলার। শুধু তাতেই ক্ষান্ত হয়নি তারা, এর মধ্যে স্যামসাং ইলেক্ট্রনিকসের থেকে হ্যাক করা ১৯০ গিগাবাইট ডেটা ‘ডাম্প পোস্ট’ করেছে তারা। ফলে স্যামসাংয়ের বিভিন্ন নিরাপত্তা ব্যবস্থামূলক তথ্য এবং কোয়ালকমসহ ব্যবসায় অংশীদারদের গোপন কোডও ফাঁস হয়ে গিয়েছে। এ ঘটনায় প্রযুক্তি বিশ্বে তোলপাড় চলছে। তবে কোন ক্রেতা অথবা কর্মীর ব্যাক্তিগত তথ্য ফাঁস হয়নি বলে জানিয়েছে স্যামসাং।

তথ্য ফাঁসের ঘটনা স্বীকার করে স্যামসাং জানিয়েছে, ‘আমরা সম্প্রতি জানতে পেরেছি কোম্পানির নিরাপত্তা সংশ্লিষ্ট নির্দিষ্ট কিছু অভ্যন্তরীণ তথ্য ফাঁস হয়ে গিয়েছে। এ ঘটনা জানার সঙ্গে সঙ্গেই আমরা নিজেদের নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরো জোরদার করেছি। প্রাথমিক পর্যবেক্ষণ অনুযায়ী গ্যালাক্সি ডিভাইস পরিচালনা সংশ্লিষ্ট কিছু কোডের সোর্সের তথ্য ফাঁস হয়েছে। কিন্তু আমাদের কর্মী অথবা গ্রাহকদের ব্যক্তিগত কোন তথ্য ফাঁস হয়নি। আমাদের ব্যবসা এবং ক্রেতাদের ওপর এ ঘটনা কোন প্রভাব ফেলবে না বলে আমরা আশা করছি।’

কোম্পানিটির পক্ষ থেকে আস্বস্ত করা হয়েছে যে তারা অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা পদক্ষেপ আরো জোরদার করেছে। তাই অদূর ভবিষ্যতে এ ধরনের আরেকটি তথ্য ফাঁসের ঘটনার সম্ভাবনা খুব কম।

Techshohor Youtube

কিন্তু এরপরেও টেক বিশেষজ্ঞরা স্যামসাং সার্ভিসের জন্য ব্যবহৃত পাসওয়ার্ড পরিবর্তনের পরামর্শ দিচ্ছেন এবং আরো সতর্কতামূলক পদক্ষেপ হিসেবে টুএফএ (টু ফ্যাক্টর অথেনটিকেশন) চালু করতে বলছেন।

এদিকে হ্যাকাররা মাত্র ১৯০ জিবি ডেটা প্রকাশ করার পর আর কি পরিমান তথ্য তাদের হাতে রয়েছে তা কেউ নিশ্চিত নন। আবার, ফাঁস হয়ে যাওয়া সোর্স কোডের মাধ্যমে প্রতিদ্বন্দ্বীরা স্যামসাংয়ের ব্যবসার অনেক গোপন খবরই জেনে যাওয়ার শঙ্কাও আছে। সার্বিক পরিস্থিতি সামলে নিতে স্যামসাংয়ের কিছুটা সময় প্রয়োজন হবে।

এই তথ্য  ফাঁসের ঘটনা স্যামসাংয়ের শেয়ারহোল্ডারদের ক্ষুব্ধ করে তুলেছে। শেয়ারহোল্ডাররা এখন কোম্পানির উর্ধ্বতন ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষকে জবাবদিহিতায় আনতে চাইছে।

ইন্টারনেট/আরএপি

*

*

আরও পড়ুন

vivo Y16 Project