রংপুরের পর বরিশাল বিভাগেও ফোরজিতে ‘ঠকাচ্ছে’ গ্রামীণফোন

grameen-phone-startup-techshohor
গ্রামীণফোন। ছবি : ইন্টারনেট

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : গ্রাহককে ফোরজি সেবা বললেই সেখানে সর্বনিম্ন গতি থাকতে হবে ৭ এমবিপিএস।

অথচ গ্রাহক সংখ্যায় দেশের সবচেয়ে বড় অপারেটর গ্রামীণফোন গ্রাহককে ফোরজির কথা বলে এই সর্বনিম্ন গতিও দিচ্ছে না।

আর এটি শুধু দেশের দু-একটি জায়গায় এমন নয় আটটি বিভাগের মধ্যে দুটি বিভাগেই অপারেটরটির ফোরজির সেবায় কাঙ্খিত গতি নেই।

Techshohor Youtube

সম্প্রতি বরিশাল বিভাগের ৪ টি জেলা ও ১৩টি উপজেলায় এই গতি যাচাইয়ের পরীক্ষা করেছে বিটিআরসি। এরআগে রংপুর বিভাগের ৭ টি জেলা ও ২৮টি উপজেলায় এই গতি যাচাইয় করে তারা। দুই বিভাগ মিলে প্রায় ২০ দিন ধরে এই কোয়ালিটি অব সার্ভিসের ড্রাইভ টেস্ট চালায় নিয়ন্ত্রণ সংস্থাটি।

ববিশাল বিভাগে গ্রামীণফোনের ফোরজির গতি পাওয়া গেছে ৫ দশমিক ০৫ এমবিপিএস। রংপুরে এটি ছিলো ৫ দশমিক ০৬ এমবিপিএস । রংপুরে গ্রামীণফোনের থ্রিজি গতিও নেই। কোয়ালিটি অব সার্ভিস (কিউওএস) নীতিমালা অনুযায়ী,  থ্রিজি প্রযুক্তির ইন্টারনেটে ডাউনলোডের সর্বনিম্ন গতি ২ এমবিপিএস পর্যন্ত ।  সেখানে গ্রামীণফোনের গতি ১ দশমিক ১৭ এমবিপিএস ।

ঝালকাঠিতে বসবাসকারী আমিনুল ইসলাম । গ্রামীণফোনের বেশ পুরোনো গ্রাহক তিনি। পেশায় তিনি একজন ফ্রিল্যান্সার। বলছিলেন, কথা বলতে বলতে সংযোগ নাই হয়ে যায়, এটা এখন নিয়মই হয়ে গেছে। ফোরজিতে ৭ এমবিপিএস তো দূর থ্রিজিতে ২ এমবিপিএসও ঠিকঠাক পান না তিনি।

‘ফোরজির নাম দিয়ে গ্রাহকদের ঠকানো হচ্ছে’ বলছিলেন তিনি। অথচ এক সময় গ্রামীণফোনের নেটওয়ার্ক ভালো এমন জেনেই তাদের সিম নিয়েছিলেন, উল্লেখ করেন তিনি।

শুধু আমিনুল নয়, অপারেটরটির এই থ্রিজি-ফোরজি সেবা নিয়ে অভিযোগ হাজার হাজার। গ্রাহকরা এতোটাই বিরক্ত যে স্যোশাল মিডিয়াসহ বিভিন্ন প্লাটফর্মে ভোগান্তির কথা তুলে ধরছেন, ক্ষোভ জানাচ্ছেন।

রংপুর শহরের বাসিন্দা শোভন আহমেদ। বলছেন, বিভাগ অনেক বড় এলাকা, রংপুর সিটির মধ্যে গ্রামীণফোনের নেটওয়ার্ক ঠিকঠাক পান না তারা।

বরিশাল সদরে থাকেন ইলহাম মিয়া। ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ফোরজি-থ্রিজি দূর। ঠিকমতো কথাই বলা যায় না।

গ্রামীণফোনের নেটওয়ার্কের এমন অবস্থাকে হতাশাজনক বলছেন খাত সংশিষ্টরা। নিয়ন্ত্রণ সংস্থা বিটিআরসি পর্যন্ত অপারেটরটির নেটওয়ার্ক নিয়ে বিরক্তি প্রকাশ করছে। সংসদে মন্ত্রীরা পর্যন্ত ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ।

যদিও বরিশাল বিভাগে ফোরজির বেঞ্চমার্ক ঠিক রাখতে পারেনি কোনো অপারেটির। আর রংপুরে রবি ছাড়া বাংলালিংক ও টেলিটকও ফোরজির নির্ধারিত বেঞ্চমার্ক ঠিক রাখতে পারেনি।

ভয়েস কল, ডেটা ও  নেটওয়ার্কের কাভারেজ এলাকা-এই তিন মূল বিভাগে মোবাইল ফোন অপারেটরদের সেবার মান যাচাই করা হয়।

*

*

আরও পড়ুন