Techno Header Top and Before feature image

বাংলাদেশে ড্রোন ও জিও স্পেশালাইজড ল্যাব করতে চায় দক্ষিণ কোরিয়া

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ড্রোন টেকনোলজি এবং জিও স্পেশালাইজড ল্যাব স্থাপনে বাংলাদেশের সঙ্গে যৌথভাবে কাজ করতে আগ্রহী দক্ষিণ কোরিয়া । 

সোমবার তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগে তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের সঙ্গে দ্বি-পাক্ষিক বৈঠকে এই আগ্রহের কথা জানান দক্ষিণ কোরিয়ার রাষ্ট্রদূত লি জ্যাং-কিউন। 

বৈঠকে তথ্যপ্রযক্তি বিভাগের অতিরিক্ত সচিব খন্দকার আজিজুল ইসলাম, উপ-সচিব মোঃ মনির হোসেন, বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বিকর্ণ কুমার ঘোষ, দক্ষিণ কোরিয়ার দূতাবাসের প্রথম সচিব জিংইউন লি, দক্ষিণ কোরিয়ার খ্যাতনামা টেকনোলজি প্রতিষ্ঠান হোজাং সলিউশনস কোম্পানি লিমিটেডের প্রধান নিবার্হী সিউক লি উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে কোরিয়া বাংলাদেশে ড্রোন প্রযুক্তি ব্যবহার করে ওয়াটার কোয়ালিটি ম্যানেজমেন্ট , অ্যাকোয়াকালচার বিষয়ে বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে একটি পাইলট প্রকল্প বাস্তবায়নের করার কথা জানায়। এ জন্য বাংলাদেশের পরিবেশ ও বন ও জলবায়ু পরিবর্তন , মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ, ভূমি ,বিমান চলাচল ও পর্যটন এবং পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় ও সংস্থার কর্মকর্তাদের সক্ষমতা তৈরির কথাও তারা জানান।

তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী বলেন, দক্ষিণ কোরিয়া বাংলাদেশের  বিশ্বস্ত বন্ধু। ড্রোন প্রযুক্তি ব্যবহারের জন্য তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের সঙ্গে অন্যান্য মন্ত্রণালয়ের সমন্বয় করে কার্যকরী ব্যবস্থা নেয়া যেতে পারে।

এ জন্য বাংলাদেশের পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ, ভূমি ,বিমান পরিবহন ও পর্যটন এবং পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় ও সংস্থার কর্মকর্তাদের সক্ষমতা তৈরির ওপর গুরুত্বারোপ করেন তিনি।

বৈঠকে তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের পক্ষ হতে তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ, সড়ক, পরিবহন ও সেতু, বিদ্যুৎ , জ্বালানি ও খনিজ  সম্পদ, এলজিআরডি ,কৃষি ও পূর্ত মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের উক্ত প্রক্রিয়ার সাথে সংযুক্ত করার পরামর্শ দেয়া হয়।

দক্ষিণ কোরিয়ার রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের উন্নয়নে সর্বাত্মক সহায়তার আশ্বাস দিয়ে বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে তথ্যপ্রযুক্তি খাত অনেক এগিয়ে গেছে। বর্তমানে বাংলাদেশ বিশ্বের উদীয়মান অর্থনীতির দেশ হিসেবে মূল্যায়িত হয়েছে।

তিনি বলেন ,আগামী দিনগুলোতে দক্ষিণ কোরিয়া বাংলাদেশ সাথে প্রযুক্তিসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে যৌথভাবে কাজ করবে।

এছাড়াও বৈঠকে বাংলাদেশ পক্ষ থেকে জিও স্পেশালাঈজড ল্যাব স্থাপন বিষয়ে সরকারি কর্মকর্তাদের দক্ষতা বৃদ্ধিতে কোরিয়ান প্রতিষ্ঠান কোইকার মাধ্যমে কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণের অভিমত ব্যক্ত করা হয়। ড্রোন টেকনোলজি এবং জিও স্পেশালাইজড ল্যাব প্রতিষ্ঠার বিষয়ে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে কো-অর্ডিনেশন বৈঠক করার বিষয়ে উভয় দেশ একমত হয়েছে।।

*

*

আরও পড়ুন