vivo Y16 Project

হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্টের দখল নিচ্ছে স্ক্যামাররা

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : হোয়াটসঅ্যাপের পেছনে আবারো লেগেছে সাইবার অপরাধীরা। সম্প্রতি অসংখ্য অ্যাকাউন্ট বেহাত হওয়ার অভিযোগ পেয়েছে হোয়াটসঅ্যাপ। এর পেছনে বন্ধুরূপে ঘাপটি মেরে থাকা স্ক্যামারদের হাত আছে বলে প্রমাণ পেয়েছে হোয়াটসঅ্যাপের নিরাপত্তা সংশ্লিষ্ট টিম।

সাম্প্রতিক কাণ্ডের ভূক্তভোগীদের মোবাইলে একটি সিকিউরিটি কোড আসে। এরপর তাদের কাছে বন্ধুবেশে অজ্ঞাত হ্যাকাররা সেই কোডটি পাঠানোর অনুরোধ করে। ভূক্তভোগীরা সরল মনে যখনই সেই কোডটি ওপর পাশের অজ্ঞাত লোককে পাঠিয়ে দেন, তখনই হয় সর্বনাশ। মূহুর্তের মধ্যে সিকিউরিটি কোড ব্যবহার করে হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্টের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেয় হ্যাকাররা।

চার্লি নামের একজন ভূক্তভোগী জানায়, আমার খুব ভালো বন্ধু মিশেলের আসল অ্যাকাউন্ট থেকে একটি বার্তা পাই। বার্তায় সে বলেছে, একটি কোড ভুলবশত নিজের নাম্বারের পরিবর্তে তার (চার্লির) নাম্বারে চলে গেছে। কোডটি যেন মিশেলকে পাঠানো হয়। চার্লি বেশি কিছু না ভেবে কোডটির স্কিনশট মিশেলের কাছে পাঠিয়ে দেন। এর পরপরই চার্লির অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়ে যায়। এ ঘটনার পর খোঁজ নিয়ে জানলেন, মিশেলের অ্যাকাউন্টটিও হ্যাক হয়েছিল। সেই হ্যাকারই মিশেলের বেশে চার্লির কোড হাতিয়ে নিয়েছে।

Techshohor Youtube

হোয়াটসঅ্যাপের পক্ষ থেকে সতর্ক করে বলা হয়, মোবাইলে আসা সিকিউরিটি কোড কোনোভাবেই কাউকে দেয়া যাবে না।

সাধারণত নতুন অ্যাকাউন্ট খোলার সময় কিংবা চালু অ্যাকাউন্ট নতুন ডিভাইসে সক্রিয় করার সময় স্বয়ংক্রিয়ভাবে হোয়াটসঅ্যাপের সিস্টেম থেকে সিকিউরিটি কোড চাওয়া হয়। এ ক্ষেত্রে কোডটি যথাযথ জায়গায় প্রবেশ করাতে হয়, কোনো নাম্বারে পাঠানোর প্রয়োজন হয় না। কেউ এই কোড চাইলে বুঝে নিতে হবে এটি ভার্চুয়াল ফাঁদ।

সূত্র : ইন্টারনেট/টিআর/জুন ৭/১৯৬২

*

*

আরও পড়ুন

vivo Y16 Project