Techno Header Top and Before feature image

সারাদেশে একদামে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট, ৫০০ টাকায় ৫ এমবিপিএস

Sheikhrussel day

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : সারাদেশে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট এক রেটে মিলবে।

এই ট্যারিফে দেশের যেকোনো প্রান্তে ৫ এমবিপিএসের দাম হবে সর্বোচ্চ ৫০০ টাকা। ১০ এমবিপিএসের দাম হবে ৭০০ হতে ৮০০ টাকা এবং ২০ এমবিপিএসের দাম হবে ১১০০ হতে ১২০০ টাকা।

রোববার রাজধানীর বিটিআরসি সম্মেলন কক্ষে এক অনুষ্ঠানে ‘এক দেশ, এক রেট’ ট্যারিফ উদ্বোধন করেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

তিনি বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার পথে এটি অন্যতম একটি মাইলফলক।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী বলেন, বিদ্যমান করোনা মহামারীর সময় ইন্টারনেটের গুরুত্ব সবাই উপলব্ধি করতে পেরেছে।

ইউনিয়ন পর্যায়ে ইন্টারনেটের সেবার পাশাপাশি ঘরে ঘরে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট পৌঁছে দিতে উদ্যোগ নেয়ার উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, দেশের চরাঞ্চলে ও হাওড় এলাকায় বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের মাধ্যমে ইন্টারনেট সেবা দেওয়া হচ্ছে।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্যে বিটিআরসির সিস্টেমস এন্ড সার্ভিস বিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ নাসিম পারভেজ মোবাইল ইন্টারনেট এবং ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের তুলনামূলক চিত্র উপস্থাপনের পাশাপাশি পুরো ট্যারিফ নির্ধারণ প্রক্রিয়া সর্ম্পকে ধারণা দেন। 

ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব মোঃ আফজাল হোসেন বলেন, আগে ইন্টারনেটের মূল্য নির্ধারণ করে না দেওয়ায় এলাকাভিত্তিক বিভিন্ন প্যাকেজ বিদ্যমান ছিল। নতুন ‘এক দেশ এক রেট’ নির্ধারণের ফলে প্রান্তিক গ্রাহকগণ নির্দিষ্ট মূল্যে ইন্টারনেট সেবা পাবেন এবং এর ফলে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর হারও বাড়বে।

তবে ইন্টারনেট সেবাদানকারীরা যেন প্যাকেজে নির্দিষ্ট গতি পান সে বিষয় নজরদারীর ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

কমিশনের ভাইস-চেয়ারম্যান সুব্রত রায় মৈত্র বলেন, এক দেশে এক রেট ট্যারিফ নির্ধারণের ফলে ইন্টারনেট সেবা প্রদান ও গ্রহণের ক্ষেত্রে শৃংখলা ফিরে আসবে।

ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার অ্যাসোসিয়েশন-আইএসপিএবির সভাপতি আমিনুল হাকিম বলেন, এর ফলে আইএসপিদের সাথে ব্যবহারকারীদের দূরত্ব কমবে। এনটিটিএন ও আইআইজিদের ট্যাারিফ নির্ধারণের জন্য বিটিআরিসির প্রতি অনুরোধ জানান ।

তিনি এছাড়াও বিটিসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডঃ মোঃ রফিকুল মতিন এবং এনটিটিএন ও আইআইজি অপারেটরদের প্রতিনিধিগণ বিটিআরসির এ পদক্ষেপকে স্বাগত জানান এবং ভবিষ্যতে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেন।

সভাপতির বক্তব্যে বিটিআরসির চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার সাধারণ মানুষের জীবনমান উন্নয়ন এবং সেবা প্রাপ্তিকে আরও সহজ করতে ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহারের গুরুত্ব উল্লেখ করে বলেন, বিটিআরসি টেলিযোগাযোগ খাত সংশ্লিষ্ট সবার সাথে আলোচনা অব্যাহত রেখে সমস্যা সমাধানে কাজ করে যাবে।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, বর্তমানে ইউনিয়ন পর্যায়ে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সেবার কোনো ট্যারিফ না থাকায় শহর ও গ্রামের সেবার মান ও মূল্যে বিস্তর তফাৎ রয়েছে এবং গ্রাহক কম থাকায় অনেক আইএসপি ইউনিয়ন পর্যায়ে যেতে আগ্রহী হয় না অথবা গেলেও বেশি মূল্য ধার্য করেন। নতুন এক দেশ এক রেট ট্যারিফের মাধ্যমে সকল ইউনিয়নের জন্য ইন্টারনেট ব্যান্ডউইথ মূল্যের সর্বোচ্চ সীমা নির্ধারণ করায় প্রান্তিক পর্যায়ের ব্যবহারকারীরা সাশ্রয়ী মূল্যে ইন্টারনেট সুবিধা পাবে।

অনুষ্ঠানে বিটিআরসির ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড অপারেশনস বিভাগের কমিশনার প্রকৌশলী মোঃ মুহিউদ্দিন আহমেদ, লীগ্যাল এন্ড লাইসেন্সিং বিভাগের কমিশনার আবু সৈয়দ দিলজার হুসেইন, স্পেকট্রাম বিভাগের কমিশনার এ.কে.এম শহীদুজ্জামান, প্রশাসন বিভাগের মহাপরিচালক মোঃ দেলোয়ার হোসাইন, স্পেকট্রাম বিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ শহীদুল আলম, ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড অপারেশনস বিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ এহসানুল কবির, লিগ্যাল এন্ড লাইসেন্স বিভাগের মহাপরিচালক আশীষ কুমার কুন্ডু, অর্থ, হিসাব ও রাজস্ব বিভাগের মহাপরিচালক প্রকৈাশলী মোঃ মেসবাহুজ্জামানসহ পিজিসিবি, বাংলাদেশ রেলওয়ে, এনটিটিএন ও আইআইজিএবির প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, দেশে ৯৮ লাখ ব্রডব্যান্ড ব্যবহারকারী রয়েছেন। যারা দেশের ৫৮ শতাংশ ইন্টারনেট ব্যবহার করেন।

বিশ্বব্যাংকের তথ্যানুসারে প্রতি ১০ শতাংশ  ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট পেনিট্রেশনের মাধ্যমে ১ দশমিক ৩৮ শতাংশ  জিডিপির প্রবৃদ্ধি ঘটে। এই ‘এক দেশ এক রেটে’ কার্যক্রমে দেশে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের ব্যবহার দ্রুত বাড়বে বলে আশা সংশ্লিষ্টদের।

*

*

আরও পড়ুন