করোনায় প্রযুক্তি ব্যবহার করে দেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতি : পলক

Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : প্রযুক্তি ব্যবহার করে করোনা পরিস্থিতিতেও দেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতি ধরে রাখা সম্ভব হয়েছে বলে উল্লেখ করেছেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

তিনি বলেন, বৈশ্বিক মহামারী করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় প্রযুক্তিকে মূল হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করে গত ১৩ মাসে অনলাইনে পণ্য সরবরাহ, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, বাণিজ্যিক ও বিচারক কার্যক্রম চলমান এবং দেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতি ধরে রাখা সম্ভব হয়েছে।

সোমবার ওয়ালটনের ‘স্টে হোম অফার, অকারণে বাইরে নয়, ঘরে বসেই পণ্য ক্রয়’ কার্যক্রমের অনলাইন অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

পলক বলেন, ২০০৮ সালে দেশে মাথাপিছু পার ক্যাপিটা ইনকাম ছিল ৫০০ ডলারের নিচে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিভিন্ন কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণের ফলে করোনার মধ্যেও মাথা পিছু আয় বৃদ্ধি পেয়ে বর্তমানে ২ হাজার ৬৯ ডলারে উন্নীত হয়েছে। মাত্র ১২ বছরে স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশের কাতারে স্থান করে নিয়েছে বাংলাদেশ।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ২০১৫ সালের ৬ আগস্ট ডিজিটাল বাংলাদেশ টাস্কফোর্সের দ্বিতীয় সভায় দেশে ডিজিটাল ডিভাইসের চাহিদার কথা বিবেচনা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে ৯৪ টি আইটেমের খুচরা যন্ত্রাংশের আমদানি শুল্ক কমিয়ে ১ শতাংশ করা হয় । এর ফলে দেশে ৮টির বেশি মোবাইল যন্ত্রাংশ সংযোজন ও উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে। ওয়ালটন ল্যাপটপসহ বিভিন্ন ইলেকট্রনিক ডিভাইস উৎপাদন এবং বিদেশেও রপ্তানি করছে।

গ্রামে বসেই একজন নাগরিক শহরের সকল আধুনিক সুবিধা যেন পায় সেই লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত আমার গ্রাম আমার শহর কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি নিজস্ব পণ্য ও উদ্ভাবন দিয়ে আত্মনির্ভরশীল ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে সকলের সম্মিলিত প্রয়াসের ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন, ওয়ালটন ডিজিটেকের চেয়ারম্যান রেজাউল আলম, উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইভা রেজওয়ানা, নির্বাহী পরিচালক লিয়াকত আলী, উদ্যোক্তা সাবিহা জেরিন অর্না।

*

*

আরও পড়ুন