Techno Header Top and Before feature image

৩৪ কোটি টাকা লাভে বছর শুরু রবির

Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বছরের প্রথম প্রান্তিকে ৩৪ কোটি ৩০ লাখ টাকা লাভ করেছে রবি।

এই অংক ২০২০ সালের একই প্রান্তিকের চেয়ে প্রায় দ্বিগুণ। ওই প্রান্তিকটিতে অপারেটরটির লাভ ছিলো ১৮ কোটি ৮০ লাখ টাকা।

তবে ধারাবাহিক প্রান্তিকের মূল্যায়নে আবার লাভ কমেছে। ২০২০ সালের শেষ প্রান্তিকে তাদের লাভ ছিলো ৩৯ কোটি টাকা।

রোববার ২০২১ সালের প্রথম প্রান্তিকের প্রতিবেদন নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে রবির ম্যানেজিং ডিরেক্টর অ্যান্ড সিইও মাহতাব উদ্দিন আহমেদ জানান, বছরের শুরু থেকেই আর্থিক অগ্রগতির হার আশাব্যাঞ্জক। এই ইতিবাচক অগ্রগতির ফলে একটি অন্তর্র্বতীকালীন নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করা গেছে।

‘তবে মূল আয়ের উপর ২ শতাংশ ন্যূনতম করের প্রভাবে মুনাফা প্রত্যাশিত হারে বাড়েনি। শুধু তাই নয়, এই করের প্রভাবে তালিকাভুক্ত টেলিযোগাযোগ কোম্পানিগুলোর জন্য কর্পোরেট করে (৪০ শতাংশ) যে কিছুটা ছাড় দেয়া হয়েছে সে সুবিধা থেকেও রবি বঞ্চিত হচ্ছে। এটি অত্যন্ত উদ্বেগের বিষয় যে তাদের সাধারণ শেয়ারহোল্ডাররা পুঁজিবাজারে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখার পরও তাদের কাঙ্খিত প্রাপ্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।’ বলছিলেন তিনি।

রবি সিইও বলেন, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ যেন তাদের এই অন্যায্য কর হতে মুক্তি দেন।

বাজার ব্যবস্থায় বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতার কথা উল্লেখ করে মাহতাব বলেন, দীর্ঘদিন ধরে ডিডব্লিওডিএম (ডেনস ওয়েভলেঙ্গথ ডিভিশন মাল্টিপ্লেক্সিং) সরঞ্জামগুলোর ব্যাপারে অনুমোদন না পাওয়ার কারণে রবি এখনও হাজার হাজার কিলোমিটার ফাইবার অপটিক নেটওয়ার্ক ব্যবহার করতে পারছে না। এটি সেবার মান আরও উন্নত করার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

তিনি বলেন, এসএমপি বিধিমালার কার্যকর প্রয়োগের অভাবে টেলিযোগাযোগ বাজারে একটি অসম প্রতিযোগিতা বিরাজ করছে। এর ফলে বাজারে অদূর ভবিষ্যতে গ্রাহক স্বার্থ ক্ষুন্ন হওয়ার আশংকা রয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে রবির চিফ করপোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অফিসার সাহেদ আলমসহ উধ্বর্তন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে উত্থাপিত প্রথম প্রান্তিকের প্রতিবেদনে জানানো হয়, রবির সক্রিয় গ্রাহক সংখ্যা ৫ কোটি ১৯ লাখ। তাদের  ইন্টারনেট গ্রাহক সংখ্যা ৩ কোটি ৬৭ লাখ, যা মোট গ্রাহকের ৭০ দশমিক ৬ শতাংশ।

প্রান্তিকটিতে মোট আয়ের পরিমাণ ১ হাজার ৯৮১ কোটি টাকা যা গত প্রান্তিকের তুলনায় ৩ দশমিক ২ শতাংশ বেশি।  ৪১ শতাংশ মার্জিনসহ ইবিআইটিডিএ ৮১১ দশমিক ৭ কোটি টাকা, এটিও গত প্রান্তিকের তুলনায় ৬ দশমিক ৪ শতাংশ বেশি

২০২০ সালের প্রথম প্রান্তিকের তুলনায় ভয়েস সেবা থেকে রবির রাজস্বের হার ৪ দশমিক ২ শতাংশ কমেছে।

রবি বলেছে, ভয়েস কল করার ক্ষেত্রে ওটিটি প্ল্যাটফর্মগুলোর আগ্রাসী ভূমিকারই প্রতিফলন। অন্যদিকে ডেটা সেবায় রাজস্ব গত প্রান্তিকের তুলনায় ৮ দশমিক ৫ শতাংশ এবং গত বছরের একই প্রান্তিকের তুলনায় ১৬ দশমিক ৩ শতাংশ বেড়েছে।

ইতোমধ্যে কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ কোম্পানির পরিশোধিত মূলধনের ওপর ৩ শতাংশ হারে অন্তর্র্বতীকালীন নগদ লভ্যাংশের প্রস্তাব দিয়েছে (প্রতিটি ১০ টাকার শেয়ারে ৩০ পয়সা)। গত ৮ এপ্রিল অনুষ্ঠিত বোর্ড সভায় এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। রবির ২৫তম বার্ষিক সাধারণ সভা ১২ এপ্রিল অনুষ্ঠিত হবে।

এডি/২০২১/এপ্রিল১১

*

*

আরও পড়ুন