Techno Header Top and Before feature image

জয়ের মূল্য এতো !

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর :  ২১০০ ব্যান্ডে শেষ ব্লকের ৫ মেগাহার্টজ স্পেকট্রামের জন্য ৮ ঘন্টার মতো লড়ে গেছে জিপি ও রবি।

শেষ পর্যন্ত ৮০ তম রাউন্ডে গিয়ে প্রতি মেগাহার্টজ ৪৬ দশমিক ৭৫ মিলিয়ন ডলারে পায় জিপি। ওই রাউন্ডে জিপির ইয়েস কার্ডের পর রবি নো কার্ড দেখায়।

কিন্তু দুই অপারেটরের প্রতিযোগিতায় এতো চড়া দামে স্পেকট্রাম কিনে জিপির জয়ের উল্লাস দেখা যায়নি । ৭৩ শতাংশ বেশি দাম দিয়ে এ স্পেকট্রাম কিনতে হয়েছে অপারেটরটিকে।  বরং এতো চড়া দামে প্রতিদ্বন্দ্বীকে স্পেকট্রাম কেনাতে পেয়ে রবির অংশে স্বস্তি দেখা গেছে।

দুপুর হতে ২১০০ ব্যান্ডের শেষ ব্লকের এই ৫ মেগাহার্টজের জন্য দুই অপারেটর জিপি ও রবি মরিয়া মনোভাব প্রদর্শন করে আসছিলো ।

এই ব্লকের ৫ মেগাহার্টজ স্পেকট্রামের নিলাম শুরু হয় ২৭ মিলিয়ন ডলার হতে। প্রথমেই বাংলালিংক নিলাম হতে সরে আসে। এর পর প্রতি রাউন্ডে দশমিক ২৫ মিলিয়ন ডলার করে দর বাড়তে থাকে। ৩০ দশমিক ৭৫ মিলিয়ন ডলারে দাম উঠলে ১৬তম রাউন্ডে টেলিটক পিছু হটে।

২১০০ ব্যান্ডের ২০ মেগাহার্টজে ৫ মেগাহার্টজ করে মোট চারটি ব্লকের তিনটি যেখানে প্রতি মেগাহার্টজ ২৯ মিলিয়ন ডলার করে তিন অপারেটর জিপি, রবি ও বাংলালিংক কিনেছে সেখানে এর শেষ ব্লকের ৫ মেগাহার্টজের দাম উঠেছে ৪৬ দশমিক ৭৫ মিলিয়ন ডলার প্রতি মেগাহার্টজ।

পরিস্থিতি এমন  নিলামের সঞ্চালক দুই-দুইবার বলেই ফেলেন, অপারেটরগুলো যে অভিযোগ করে বিটিআরসি স্পেকট্রামের দাম বেশি রাখছে কিন্তু এই নিলামে দেখা যাচ্ছে স্পেকট্রামের দাম কারা বাড়াচ্ছে। স্পেকট্রামের দাম কীভাবে অপারেটররা বাড়াচ্ছে, এত দামে স্পেকট্রাম কিনে ব্যবসাসফল হওয়া যাবে কি না, সেটাও অপারেটরদের দেখতে বলেন তিনি।

এমনকি সমাপনী বক্তব্যেও এই চড়া দামের প্রসঙ্গটি আসে।

সোমবার রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে চলমান এ নিলামে ডাক ও টেলিযোগাযাগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার, বিটিআরসি চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদারসহ অপারেটরগুলোর শীর্ষ নির্বাহী কর্মকর্তারা রয়েছেন।

বিটিআরসির স্পেকট্রাম বিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. শহীদুল আলম এ নিলাম পরিচালনা করেন।

এডি/২০২১/মার্চ০৮

*

*

আরও পড়ুন