Techno Header Top and Before feature image

ফেইসবুক ও অ্যাপল একে অপরের শত্রু, কারণ কী?

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : কর্পোরেট জগতে বড় বড় প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে আছে কোকাকোলা-পেপসি, বোয়িং-এয়ারবাস, ম্যাকডোনাল্ড’স-বার্গার কিং ইত্যাদি। এখানে খেয়াল করার বিষয় হচ্ছে–প্রতিদ্বন্দ্বীরা প্রায় সম পর্যায়ের বা তাদের ব্যবসার ধরন অভিন্ন । তাই তাদের মধ্যে প্রতিযোগিতা, প্রতিদ্বন্দ্বিতা কিংবা সম্পর্ক খারাপ হওয়া অস্বাভাবিক কিছু না।

তবে স্বাভাবিক সূত্রকে পাশ কাটিয়ে ব্যতিক্রম একটি দৃষ্টান্ত দাঁড় করিয়েছে ফেইসবুক ও অ্যাপল। তারা একে অপরকে প্রতিদ্বন্দ্বী মনে করে, অপছন্দ করে; অথচ তাদের ব্যবসার ধরনে বহু ফারাক। তাদের এই অপছন্দের ব্যাপারটি মোটেও গোপন নয়।

বছর কয়েক আগে অ্যাপলের টিম কুক ক্ষোভ ঝেরে বলেন, ফেইসবুক এর ব্যবহারকারীদের পণ্য মনে করে, তাদের কাছে বিজ্ঞাপন বেঁচে আয় করে, এমনকি তাদের গোপনীয়তা নিয়েও পরোয়া করে না।

ঘটনা এখানেই শেষ হয়নি, গত বছর অ্যাপলের প্লাটফর্ম থেকে ফেইসবুক ডেভেলপার টুল বন্ধ করে দেওয়া হয়। ফেইসবুকের সহ-প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গও অ্যাপলের প্রতি অসন্তোষ প্রকাশ করেন।

চলতি বছরের শুরুতে ব্যবহারকারীদের ডাটা নিয়ন্ত্রণ ও নিরাপদের জন্য ‘অ্যাপ ট্র্যাকিং’ সেবা চালুর ঘোষণা দেয়। এটি মূলত ফেইসবুক ও এ ধরনের অ্যাপকে উদ্দেশ্য করে করা হয়েছে। কারণ এ ধরনের অ্যাপগুলো ব্যবহাকারীদের ডেটা ট্র্যাক করে, এর ওপর ভিত্তি করে বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করানো হয়।

এর প্রতিক্রিয়ায় ফেইসবুক বলেছে,‌ ‘তারা (অ্যাপল) নিজেদের অবস্থানকে পুঁজি করে বাজার নিয়ন্ত্রণ করতে চায়। যদিও ফেইসবুকের ডেটা কালেকশন নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বীদের কিছু করার সুযোগ প্রায় অসম্ভব।’

তবে বিশ্লেষকদের মতে, অ্যাপলের বিজ্ঞাপন বাজার বর্তমানে ছোট হলে আগামী কয়েক বছরে এর পরিধি বড় হবে। এ দিক থেকে ভবিষ্যতে অ্যাপলের বড় প্রতিদ্বন্দ্বী হতে পারে ফেইসবুক।

সূত্র : ইন্টারনেট, টিআর, নভেম্বর ২৭/২০২০/১৭২৯

আরও পড়ুন

পেঁয়াজ নিয়ে ফেইসবুকের আপত্তির রহস্য কী?

ফেইসবুকে বেশি লাইক মানেই বেশি ভিউ নয়!

পুরানো পণ্য ভাঙার বদলে বিক্রি, অ্যাপলের মামলা

অ্যাপলের ঘড়িতে ব্লাড অক্সিজেন সেন্সর, কাজ করবে তো?

*

*

আরও পড়ুন